।। মিছিলের জবাব মিছিল দিয়েই হোক ।।

বছর ১৪/১৫ আগে কমরেড বিমল বিশ্বাসের সফর সঙ্গী হিসাবে একবার কোলকাতা যাবার সৌভাগ্য হয়েছিলো । বিশেষ স্মৃতি বলতে তেমন কিছু নেই, কিন্তু এক বয়স্ক ভদ্রলোকের কথা খুব মনে পড়ে। নাম মনে নেই, চেহারাটাও ভাসা ভাসা মনে পড়ে। দৈনিক গণশক্তি অফিসে গিয়েছিলাম এক সাংবাদিকের সঙ্গে দেখা করতে, বাংলাদেশে একবার তার সাথে দেখা হয়েছিলো সেই সৌজন্যে।

সেখানেই ভদ্রলোকের সঙ্গে আলাপ । তিনি বাংলাদেশ থেকে এসেছি শুনেই সহাস্যে এগিয়ে এলেন। কুশল বিনিময়ের পরে জিজ্ঞেস করলেন বাংলাদেশের কোথায় থাকি? বললাম আদি বাড়ি গোপালগঞ্জ, বর্তমানে থাকি ফরিদপুর ।

ফরিদপুরের নাম শুনতেই ভদ্রলোকের চোখে মুখে বিদ্যুৎ চমকানোর মতন এক আলোক ছটা দেখেতে পেলাম ! আমায় বলেন তুমি ফরিদপুর থেকে এসেছ ? বাংলাদেশের ফরিদপুর ? যেন তার বিশ্বাসই হচ্ছে না ! আমি শান্ত হয়ে বললাম হ্যাঁ । একনাগাড়ে অনেক কিছু বলে চললেন তিনি, তোমাদের ফরিদপুরে কি এখনো ফুটবল খেলা হয় ? আমাদের সময় সে যে কি খেলা হতো ! মৃণাল সেন কে তো চেনো ? নাটক হয়না ?

আমি বললাম হয়, ফুটবল খেলা হয়, মঞ্চ নাটক হয়, মেলা-যাত্রা পালা সবই হয়। আসুন না এক সময় বেড়িয়ে যাবেন ফরিদপুরে। তিনি অবাক হয়ে বললেন, তুমি আমাকে ফরিদপুরে বেড়াতে যাওয়ার আমন্ত্রণ জানাচ্ছ ? যেন তিনি বিশ্বাসই করতে পারছেন না যে আমি তাঁকে ফরিদপুরে যাওয়ার দাওয়াত দিতে পারি !

হ্যাঁ একটা সময় ফরিদপুর খেলা ধুলা, সংস্কৃতি চর্চা ও অসাম্প্রদায়িকতার দিক দিয়ে অনেক অগ্রসরমান একটি জেলা ছিল, এখনো আছে । আমি নিজেই একমাস ব্যাপী মঞ্চ নাটকের মঞ্চায়ন দেখেছি, দেখেছি পথ নাটক ।

আমি তখন বাম ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্র মৈত্রীর সঙ্গে যুক্ত ছিলাম। সনাতন ছিল বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের সঙ্গে যুক্ত, বয়সে কিছুটা অনুজ হয়তো হবে । সংগঠনের প্রতি তার অঙ্গীকার ছিল চোখে পড়ার মতো । আমরা (ছাত্র মৈত্রীর ও ছাত্র ইউনিয়ন) রাজেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে যৌথ ভাবে ছাত্র সংসদের নির্বাচনে প্যানেল দিয়েছিলাম। দ্বিতীয়বারে ছাত্র মৈত্রী থেকে লুবনা নাদিয়া লোপা একটি সম্পাদক পদে নির্বাচিতও হয় ।

ব্যক্তিগত সীমাবদ্ধতায় একটা সময় রাজনীতির সঙ্গে আর যুক্ত থাকা হয়নি কিন্তু খবরাখবর রাখতাম মাঝে মাঝেই । ২০১৩ সালে যখন গণজাগরণ মঞ্চ তৈরি হোল সেখানে সনাতনকে আবার দেখি ! সেই একই অঙ্গীকার নিয়ে শ্লোগানের পর শ্লোগান দিয়ে চলেছে ।

পরবর্তীকালে গণজাগরণ মঞ্চ বিতর্কিত হয় । কিন্তু সাম্প্রতিককালে সুপ্রিম কোর্টের প্রাঙ্গণে ভাস্কর্য সরিয়ে ফেলা নিয়ে গণজাগরণ মঞ্চের প্রতিবাদ মিছিল আবার আলোচনায় আসে। মিছিলের একটি শ্লোগান নিয়ে মামলাও হয়। মামলায় ইমরান এইচ সরকারের সঙ্গে সনাতনের নামও এসেছে শুনেছি । দৈনিক পত্রিকায় দেখলাম এই ঘটনার জন্য ফরিদপুরে তার বাড়িতে হামলার প্রেক্ষাপটও তৈরি হয়েছিলো।

ভুল ভ্রান্তি যাই হোক আমরা বিশ্বাস সেই অগ্রসরমান জেলা ফরিদপুরের অসাম্প্রদায়িক, সংস্কৃতিবান, পরমত সহিষ্ণু, মুক্ত চিন্তার মানুষেরা এমনটি হতে দেবেন না !

মিছিলের জবাব মিছিল দিয়েই হোক, শ্লোগানের জবাব পাল্টা শ্লোগান দিয়ে ~~

ঢাকা।
১ জুন, ২০১৭

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

35 + = 39