অর্থহীন সাধ

আমি জেগে উঠেছি আজ
বড় অসময়ে অকারণ –
কিশোরের চিবুকের খাঁজে
বেমানান অর্থহীন স্পর্ধার মতো
শশ্রুরেখা যেমন দু’একটি।

শিল্পির শুরুর আঁচড়ে যেমন
ছবিরা থেকেও নেই
কিংবা ওরা তখনও নিরাবয়ব।
অথবা অস্তাচলের অরুণাভের যেমন
আলিঙ্গন গোধুলীর আঁধারের সাথে।
হয়তবা ভোরের কুয়াশার ভীরে
ক্ষীণতর আলোয় দেখা মুখ।
নয়তবা তার চেয়েও অর্থহীন অস্পষ্ট
কালো মেঘে বিদ্ধ হওয়া অদৃশ্য
সিঁদুরে মেঘের আনাগোনা।

আমি এখনও প্রবল ঘুমের মাঝে
আচমকা স্বপ্ন হয়ে উঠিনি কোনো
বিপ্লবী মনে কিংবা তার মনের ধারে কোথাও।
আমি শুধু একটি নিরেট অর্থহীন সাধ
হয়ে উঁকি দেই মাঝেমাঝে।

তবুও হয়তো আমিই একদিন
উল্কাপিণ্ডের ন্যায় আছড়ে পড়ে
ধ্বংস ডাকতে পারি,
আবার নতুন করে গড়ার জন্য
অথবা নতুন সুরে ভাসাতে
গ্লানির অপবাদ অবসাদে ভরা
পাথর সময় আর পুরনোকে।
আমিই সকল কারণ ও অকারণ,
আমিই ধ্বংস-সৃষ্টির মাঝে বিরাজিত
সেই অত্যাশ্চর্য অর্থহীন সাধ,-বিপ্লব।।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

− 6 = 3