প্রেমপত্র-৯৯

মায়াবতী,
তুমি আমকে অক্টোপাস এর মত ভালবাসো,আস্টেপৃস্ঠে জড়িয়ে রাখো,আমি কথা দিচ্ছি মরনের পরেও তোমাকে ছাড়ব না।তোমাকে অাঠা দিয়ে লাগিয়ে রাখব হৃদয়ের ক্যানভাসে,তুমি ধিরে ধিরে মিশে যাবে আমার চামড়ায়।সুধু আমারি হও,সত্যি বলছি এক জনমে আমি সুধু তোমারি হব।
বুঝলে মায়াবতী গুড়ি গুড়ি বৃষ্টিতে শহরকে ভিজতে দেখে,আমারও খুব তোমাকে মনে পড়ে।আমার বেখেয়ালি মন হঠাৎ আবিষ্কার করে, আমার দৃষ্টি কেমন ঘোলা হয়ে গেছে।মোড়ের ওদিকটায় ঘর ছাড়া পলাতক মানুষের দৃষ্টি দিয়ে দেখি,সে রাজ্যের বিস্ময় নিয়ে আল্লাদী মেখে বৃষ্টি দেখায় মগ্ন।বৃষ্টি ঝরঝরিয়ে না পড়তেই তার এতো মুগ্ধতা ভাল! আমিও ভেবে বেড়াই তোমাকে খুব মনে পড়ে যে, এ কথা তোমাকে না জানালে বিশেষ তেমন কিছু হয়ে যাবে না।
হয়তোবা তোমাকে জানালে, তুমিও মুখ বাকিয়ে মুগ্ধতা নিয়ে বৃষ্টি দেখা শুরু করবে।
তবে কখনোই হয়তোবা জানবে না, এই তোমাকে নিয়ে আমার কতই না অনুযোগ।
বাচ্চা আমি বেটার কাউকেই ডিজাৰ্ভ করি না তুমি ছাড়া,আমি তোমাকেই ডিজাৰ্ভ করি কারন আমি তোমায় ভালবাসি ।ঘোরলাগা ভালবাসা এবং তুমি একটা প্রশ্নের উত্তর দাও তো তুমি কি আমাকে মিস করো না?আমি না থাকার দিন গুলোতে মনে পড়ে না?
কি হবে অন্য কারো সাথে থেকে যদি যার জন্য বুকের ভেতরে তোলপাড় সেই তোমাকেই না পাই?
বুঝলে আমারনা অনেক কিছু হতে ইচ্ছে করে এই যেমন,ভাবছি আমি তোমার হব
দুপুর বেলার আলসেমিতে জড়িয়ে ধরা বালিশ হব।ভাবছি তোমার শাড়ি হব
কপালের ঐ টিপ হব চুলে করা বিনুন হব হাতে কাঁচের চুড়ি হব।আসলৈ আমি ভাবছি.
কি করে তোমার প্রেমিক হব?
পাগলী আমার,তুমি এতো দীর্ঘ ঘুমিয়ে ক্যানো আজ?এসো আমার রুমালে তোমার মুছে দিবে দুঃখ যা আছে এই আমার। ছিটিয়ে দিবে এসো সবুজের প্রাণ কবির কবিতায় তুমিহীনা যে পুড়ে যাচ্ছে আমার এ শহর।তুমিহীনা কে করবে তবে আমার চোখের জলের ন্যায্য অনুবাদ আজ!তোমার অভাবই করছি অনুভব রক্তে-রন্ধে শিরায়-শিরায়, মায়বতী।বড্ড প্রয়োজন তোমাকে আজ,তোমাকে তো আসতেই হবে।হাতে নিয়ে লাল গোলাপ।হতাশায় হাপিয়ে উঠা এই আমার চোখে ফুঁকে দিতে প্রেম স্বপ্ন বারেবার।তুমি শোনছো?শুনছো কি তুমি,মায়াবতী তোমাকে ছিলো আজ বড্ড প্রয়োজন।বড্ড প্রয়োজন ছিলো যে তোমাকেই এই অবেলায়!আচছা বাবু ধরো এক নদীর ধারে কিংবা চিলে কোঠার বারান্দাতে যেথায় মাথার উপর ছোট্ট নিল আকাশে সাদা মেঘেদের আনাগোনা সেথায় বসে তোমার পাশে ধরে শক্ত করে ধরে তোমার হাত খানি ওই দূর চক্রবাকে,যেন চাইছি আটকে দিয়ে সময় খানি থেমে যাক সময় তারপর নিস্পলক চোখে তাকিয়ে তোমার দিকে,একটাই প্রার্থনা, ধরো তুমি বৃষ্টিতে ভিজে ঠান্ডা লাগছে তোমার হাঁচি আসছে খুব অথবা ভরদুপুরে হাটার সময় তোমার নাকের বিন্দু বিন্দু ঘাম মোছার জন্য হলেও তোমার পাশে থাকতে চাই বলো..কি দিবা না থাকতে?
এ চাওয়া আর কিছু নয়, কেবল তোমার কাছে যাওয়া এখন তোমার কাছে যাবো
তোমার ভিতরে এক সাবলীল শুশ্রূষা আছেন।তিনি যদি আমাকে বলেন, তুই ক্ষত মোছ আকাশে তাকা–আমি ক্ষত মুছে ফেলবো আকাশে তাকাবোআমি আঁধার রাখবো না!
তোমার চিবুকে সেই গাভীর দুধের শাদা, সুবর্ণ রাখাল তিনি যদি আমাকে বলেন, তুই কাছে আয় তৃণভূমি কাছে আয় পুরনো রাখাল! আমি কাছে যাবো আমি তোমার চিবুক ছোঁবো, কালিমা ছোঁবো না!
ক্যালেন্ডারের পাতায় দাগ কেটে রাখি হারিয়ে যাওয়া দিনটি ছাপিয়ে যায় নতুন তারিখে।আমি সংসার সাজাই তোমার সাথে।ক্যালেন্ডারে, ডায়রিতে রাখি আবেগ
আমরা ক্রমশই একটি ডায়রি হয়ে যাই!পাগলী তুমি কি বলতে পারবে আমার জন্যে তোমার একটি বারও ভালবাসা হয়নি?তোমার রক্তজবা চোখে আষাড় শ্রাবন,
ভাসিয়ে দেওয়া ভালোবাসার প্লাবন তোমার আঙ্গুল ছোবে আমার ঠোঁট,কয়টা আদর জমবে সর্বমোট?তোমার স্পর্শে টুকরো পাথর হৃদয়ছুঁয়েই দেখো ছোঁয়ার পরে কি হয়?
দেখো ছুঁয়ে সর্বনাশের বীজকে কোথায় আমি হারিয়ে ফেলি নিজকে।একটা আংগুল ধরবো বলে হায় ভুলে ভরা জীবন চলে যায়।
তোমাকে একটি কথা বলতে চাই তুমি কি আমার স্বপ্নের একটি চরিত্র হবে?তোমাকে তেমন কিছু করতে হবে না।শুধু তোমার অস্তিত্বের জানান দিয়ে যাবে।আমি দিব্যি তোমায় ভালোবেসে আমার গল্প সাজাবো।শুধু আমার বিশ্বাসের জায়গাটাতে তুমি থেকো আমি পরের অংশটুকু দেখে নিবো।আমি খুব আশাহত একটা মানুষ
আমার গল্পের পরতে পরতে আছে ব্যর্থতা কিন্তু সত্যি বলছি,আমি এতোটা ভগ্ন ছিলাম না বরাবরি, সব ঠিক থাকেশুধু……….শুধু ভাগ্যের জায়গায় এসে মার খেয়ে গেছি।
তবু,আমি আশাবাদী হই যখন তোমায় দেখি নিজেকে খুব শক্তিহীন মনে হয়।নিজেকে খুব ভাগ্যবান মনে হয় তোমার দেখা পেয়েছি তাই তোমার হাতটি চেয়ে ধরতে চাই।
কিন্তু সেই সাহস নেই তোমার হাতের ছায়া দিও অথবা তোমার একটা ভাঙা চুরি
আমি চালিয়ে নিবো সত্যি বলছি।আমি চালিয়ে নিবোযদি তুমি থাকো, আমি সব না পাওয়া কে মানিয়ে নিবো।শুধু তোমার অস্তিত্বে টিকে থাকতে চাই তোমার বোধে বেঁচে থাকতে চাই দিবে?
একটা কথা বলি,
তোমায় আপন করে পেতে পিচঢালা ভেঁজা রাস্তায় দু’হাত ছাড়িয়ে বুক-শার্টের বোতাম খুলে হেটে বেড়াই আমি আনমনে।কি ব্যাথা কি অদম্য চাওয়া।যেদিন ততুমি বিন্দুসম বুঝবে তবে জগতের সবচেয়ে বেশি আমাকেই ভালবাসবে।এতটুকু আমি হলফ করে বলতে পারি।
ইতি
তোমার পাগল

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

45 − 35 =