অদ্ভুত বাচালতা ১০


প্রিয়তমেষু,
ইদানিংকালে নিজের মাঝে
কোথায় যেন বৃষ্টির জলের সাথে মিল পাই।
অসম্ভব মন খারাপ করা দিন গুলোতে
কোথায় যেন আকাশটাও টের পেয়ে যায়।
মেঘ গুড় গুড়,ঘন কালো আঁধার নামায়,
দুটো আকাশেই ঝড় ঝড়িয়ে বাদল নামে।
আজো বোধগম্য না আবহাওয়ার সাথে
আমার শত্রুতা নাকি বন্ধুত্ব?
শত্রুতাও কি আজন্ম নাকি দিনে দিনে?
কখনো মন খারাপ করা বিকেল,
কখনো ঝড়ো ঝড়ো কষ্টের রাত,
কখনো বা বিষাদে ভরপুর দুপুর।
বারান্দায় ধূমায়িত চায়ের কাপ,
হাতে স্কেচ বুক আর…. আর….
এক টুকরো মন খারাপ।
ব্যাস! তাহলেই হয়েছে!
প্রকৃতিও যেন সেই মন খারাপে
শরীক হতে দেরী নেই।
চুপচাপ দেখতে হয়,
কোথাও যেন পরম শান্তিও পাই।
অঝোর ধারায় ঝরতে থাকে প্রকৃতি,
টের পাই পাখি গুলোও ডানা ঝাপটিয়ে
ধড়মড় করে নীড়ে ফেরার প্রয়াস।
কোথায় যেন হাহাকার বড্ড বেশি বাজে,
সেই শূন্যতায় আপনা আপনি
সুর উঠে আসে-
“আজি ঝরো ঝরো,মুখর ও বাদর দিনে”
আজো ভালোবাসার সংজ্ঞাটাই
আমার ঠিক বোধগম্য নয়!
মাঝে মাঝে ভাবি –
“আদৌ কি ভালবাসতে পেরেছি?”
এই যে তোমার প্রতি এত শত অভিমান,
মোবাইলের কল লিস্টে
তোমার মিসকলের ভর্তি লিস্ট,
মেসেঞ্জার এ রিপ্লাই না দেয়া,
কোথায় যেন আমি
ভালোবাসা আর অভিমানে মাঝে
এক বিরাট দ্বিধা দ্বন্দে আছি।
সব অনুভূতি গুলো কেন জানি
মিলেমিশে একাকার।
তোমার রুক্ষতা সইতেও পারি না
অনেক দূরে সরে থাকি তাই।
বলতে পারো অভিমান আমাকে সেই
দেয়ালটা পার করতে দেয় না।
অথচ তোমার কন্ঠ শোনার তৃষ্ণায়
প্রাণ ওষ্ঠাগত আমার।
যেন খাঁচায় বন্দী পাখি
ছটফট করছে জলের হাহাকারে।
অথচ ভয়,লজ্জা,অপমান
অনুভূতিদের টুটি চেপে ধরছে।
বার বার হত্যা করছে
নির্লজ্জ ভাবে।
আবার তোমায় না দেখলে
এক মুহূর্ত চলেও না;
এক মুহূর্ত ও না।
ঘন্টার পর ঘন্টা তোমার বোবা ছবি
গুলোর সাথে কথা হয়;
তুমি জানোও না তোমার অগোচর এ
তোমারই সাথে আমার কত গল্প হয়
একফোঁটাও ক্লান্তি নেই।
কোথায় যেন অতি সুক্ষ্ণভাবে
যে কোনো মুহুর্তে হারাবার ভয় কাজ করে;
অথচ হয়তো তুমি কখনো আমারই নও-
ভালোলাগা আর ভালবাসা
এই দুইটি এক নয়।
কিন্ত আমি তোমার প্রতি আসক্ত ,
এটাকে ঠিক ভালোবাসা
বলা যায় কি না জানি না।
তবে এত শত কাব্যের ভীরেও-
বার বার কি যেন উঁকি দিয়ে যাও ,
ঠিক তখনই মনে হয় সময়টা থমকে গেছে।
অথচ যতবার তোমায় সামনে দেখি
ততবার মস্তিষ্কের নিউরন গুলো ভয়াবহ ভাবে বিস্মিত ।
সব রকম স্টিমুলেশন
উল্টাপালটা রেসপন্স শুরু করে
পাছে ভালো লাগা ,আবেগ এর
তীব্রতা যদি ধরা পড়ে যায়?
সেই ভয়ে তোমার সামনাসামনি
মুখ ফিরিয়ে , মাথা নামিয়ে
সায় দেই কথায়।
কিন্ত আড়াল হলেই যেন
মনে হয় আজন্ম
ওই চোখে চোখ রেখে কাটিয়ে দিতে পারি ।
ভালোবাসার ও বুঝি রকম ফের আছে।
আমার ভালোবাসা বুঝি বোকা ভালোবাসা।
ভাবনার জগতে হারাই,বারান্দায় চায়ের কাপে
তোমার প্রিয় রঙ চা ঠান্ডা হতে থাকে,
যেন চোখে আঙুল দিয়ে বুঝিয়ে দিতে থাকে
বোকা ভালোবাসারা শুধু বৃষ্টির জলের মত
গড়িয়ে পড়ে যেতে জানে,
জানে না কি করে লেপ্টে যেতে হয়।
বড্ড বোকা আমার ভালোবাসা।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

4 + 6 =