মাদ্রাসা শিক্ষা নাকি জঙ্গি শিক্ষা??

বাংলাদেশের যদি সত্যিকার অর্থে উন্নতি ঘটাতে হয় তাহলে একটা জিনিস অবশ্যই করতে হবে। তা হল, এদেশ থেকে কওমি মাদ্রাসা উঠিয়ে দিতে হবে অথবা কওমি মাদ্রাসায় ধর্মীয় শিক্ষার পাশাপাশি বিজ্ঞান শিক্ষা দিতে হবে। এদেশের কওমি মাদ্রাসা গুলি যতসব সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের মূল কেন্দ্র। কারণ এই মাদ্রাসাগুলিতে কোরআন শিক্ষা ব্যতিত আর কিছুই শিখানো হয় না। কোরআন শিক্ষা আর যাই কিছু শিখাক না কেন, তা বাস্তব জীবনে সালাম দেওয়া, সত্য কথা বলা, পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়া, হজ্জ করা ছাড়া কিছুই দেয় না। একটা মানুষের দু’বেলা খাবার জোগাড় করতে গেলে একটা ভাল চাকরীর প্রয়োজন। সেই চাকরীর জন্য প্রয়োজন ভাল শিক্ষা তথা একটা ভাল ডিগ্রি। আজকাল কোন বাড়ির দারোয়ানের চাকরি করতে গেলেও ন্যূনতম ৮ম শ্রেণী পাশ লাগে। কওমি মাদ্রাসাগুলিতে এই সুযোগ কোথায়? হয়ত তারা জীবনে অনেক ভাল ধর্মপ্রাণ মানুষ হতে পারবে কিন্তু শিক্ষিত হতে পারবে না। ধর্মীয় শিক্ষাই মূল শিক্ষাই নয়। এর ফলে তারা আস্তে আস্তে ধর্মান্ধ হয়ে যায় যার সুযোগ নেয় মৌলবাদী গোষ্ঠী। পরে এই মাদ্রাসা ছাত্রদেরকেই দেশদ্রোহী জঙ্গি হিসেবে তৈরি করা হয়। উচ্চশিক্ষা না পেলে হয় মসজিদ মাদ্রাসার বড় আলেম, মুরুব্বী, যারা কোরআনের ভুল ব্যাখ্যা ছাড়া কিছুই করতে পারে না।

এখন কেউ যদি বলেন, কোরআন শরীফ কি বিজ্ঞান ভিত্তিক নয়?? আমি জবাব দিবো, না। যদি বিজ্ঞান ভিত্তিক হত, তাহলে দুনিয়ার প্রতিটি দেশে শিল্প উন্নয়নের জন্য কোটি কোটি টাকা খরচ না করে কেবল কোরআন শরীফ রিসার্চ করা হত। আমরা না হয় ভোদাই মার্কা দেশ। কিন্তু অন্যান্য দেশ! টাকার মূল্য সবাই বুঝে। কেউ ভেবে বসবেন না যে, আমি কোরআন শরীফ অবমাননা করছি। আমি বলতে চাইছি, আধুনিক বিজ্ঞানের যুগে পৌরাণিক কল্প কাহিনী নিয়ে বসে না থেকে উচ্চশিক্ষায় শিক্ষিত হন, তাতে দেশ ও জাতির পাশাপাশি নিজের মনকেও সমৃদ্ধ করা যাবে। কওমি মাদ্রাসা ছাত্রদের বলছি, সারাদিন বসে বসে হুরপরি পাবার নেশায় যদি অপর একটি মানুষের অন্ন ধ্বংস করার কাজে লিপ্ত হন, তাহলে একসময় দেখবেন রাস্তার বেশ্যাও আপনাদের পাত্তা দিবে না।
ধর্ম ব্যাপার টা নিজের মানসিক শান্তির ঐচ্ছিক উপায়, উহা জীবিকা নির্বাহের পথ নহে। ব্যাপারটা বুঝিতে হইবে।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

৫ thoughts on “মাদ্রাসা শিক্ষা নাকি জঙ্গি শিক্ষা??

  1. কওমি মাদ্রাসাগুলো কেবল ধর্মীয়
    কওমি মাদ্রাসাগুলো কেবল ধর্মীয় শিক্ষা দিয়ে ছাত্রদের মানসিকতা বাস্তবতা থেকে সরিয়ে দেয়। পরে যখন তাদের সত্যিকার জীবনের মুখোমুখি হতে হয়, তখন হতাশা ছাড়া তাদের পাবার মত আর কিছু থাকে না…

  2. অসাড় মাদ্রাসা শিক্ষাব্যবস্থা
    অসাড় মাদ্রাসা শিক্ষাব্যবস্থা ও জামাতি সহিংসতা আর সরকারের করনীয়।
    আপনার লিখাটি প্রাসঙ্গিকভাল একটি প্রয়াস। উল্লেখিত লিখাটি পড়লে আইনি ব্যপারটাও বুঝতে পারবেন…
    ধন্যবাদ… :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা:

  3. ধর্মীয় শিক্ষার সাথে সাথে
    ধর্মীয় শিক্ষার সাথে সাথে বাস্তবভিত্তিক শিক্ষাও জীবিকা নির্বাহের জন্য একান্ত জরুরী। এটি ভূললে চলবে না…..

  4. আসলে একজন মানুষকে যখন
    আসলে একজন মানুষকে যখন শুধুমাত্র তার বিশ্বাস সম্পর্কিত শিক্ষা দেওয়া হয়, তখন সে নিজেই ভুলে যায় তার নিজের বিশ্বাস , নিজের স্বাতন্ত্র্য ।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

17 − 11 =