লুঙ্গি কোথায়?

সকালে দাঁত মেজে কুলি করার জন্য বাসা থেকে বের হবার পরে মেইন গেটের সামনে এসে হঠাৎ এক দমকা হাওয়ায় ফরহাদ সাহেবের ঢিলা করে গিট্টা দেয়া লুঙ্গি উড়ে যায় ওই দূর আকাশে।

সকালে দাঁত মেজে কুলি করার জন্য বাসা থেকে বের হবার পরে মেইন গেটের সামনে এসে হঠাৎ এক দমকা হাওয়ায় ফরহাদ সাহেবের ঢিলা করে গিট্টা দেয়া লুঙ্গি উড়ে যায় ওই দূর আকাশে।

ছোটবেলায় ঘুড্ডির পিছনে অনেক দৌড়েছেন, লুঙ্গির পিছনে কেন নয়? এই ভেবে তাত্ত্বিক এই গুরু দিলেন ছুট লুঙ্গির পিছে, যদিও সাথে করে গামছা আর মোবাইল ফোনের চার্জার নিতে ভুল করেননি। গামছা দরকার ছিল যদি পানিতে নামা লাগে এই ভেবে।

তো এভাবে দৌড়াতে দৌড়াতে ফরহাদ সাহেব যশোর পৌঁছে যান নিমিষেই, এতই নিমিষে যে তিনি নিজেই হুঁশ করতে পারেননি ব্যাপারটা। ঢাকা খুলনা হাইওয়েতে অনেকেই নাকি তাকে দেখেছে নাঙ্গা হয়ে আকাশের দিকে তাকিয়ে দৌড়াতে এবং এও বলেছেন যে তার পড়নে কোন জাঙ্গিয়া ছিলনা।

… এরপর যশোরে আসার পর আচুক্কা পুলিশ তাকে আটক করেন, যা মোটেই উচিত হয়নি। পুলিশ প্রাথমিক ভাবে জাঙ্গিয়া না থাকার ব্যাপারটি স্বীকার করেছেন যে, আটক করার সময় লুঙ্গি বাদে কোন জাঙ্গিয়া ছিল না।

আরও জানানো হয়েছে যে, জাঙিয়া কেন ছিলনা তা ২ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করে খতিয়ে দেখা হবে। লুঙি উড়া এবং জাঙিয়া হাওয়ার পিছনে জড়িতদের ৪৮ ঘন্টার মধ্যে লুঙি কাছা দিয়ে ধরা হবে।

অপর একটি বিশ্বস্তসুত্র থেকে জানা গেছে যে, সকালের সেই কুলির পানি তার মুখেই আছে, ফেলতে পারেন নি, তাই তিনি কথা বলতে পারছেন না।। কথা বলতে গেলেই নাকি পানি বের হচ্ছে। সবাই এখন ফরহাদ সাহেবের মুখের পানি বের করার চেষ্টায় ব্যাস্ত।

জয় মজহার, জয় লুঙ্গি।।

©অনিক অমনিবাস

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

+ 61 = 63