কোরআন শরীফ একটি কাল্পনিক গল্পের বই মাত্র…!!

মক্তবের হুজুর কোরানের পবিত্রতা রক্ষার্থেছিলেন কঠোর, এমন এমন বয়ান দিতো যে ভয়ে কোরান মাথায় নিয়ে হাটার জন্য প্রস্তুত থাকতাম। হুজুরের ছোট একটি বয়ান- যে কোরানকে অবহেলা করবে বা কোরানের যত্ন নেবে না তার জন্য বেহেস্ত হারাম ও কোটি কোটি বছর জাহান্নামেরআগুনে পোড়ানো হবে!! কেউ স্ব-ইচ্ছায় কোরান শরীফ যদি লাথি মারে বা তাহার উপর পা রাখে সাথে সাথে তার পা লুলা হয়ে পঁচে যাবে বা কিছু দিনের মধ্যে মারাও যেতে পারে!!!



ছোট বেলায় যখন মক্তবে পড়তে যেতাম তখন কোরান শরীফকে বুকে জড়িয়ে শক্ত করে ধরতাম আর খেয়াল রাখতাম কোন প্রকার যাতে বুক থেকে পড়ে যাওয়ার আশংকা না থাকে আর কত কি করতাম কোরান শরীফ রাখার জন্য নতুর গজ কাপড় কিনে খোলস বানাইতে হতো আবার প্রত্যেক সপ্তাহে সেইটা ধুয়ে দিতে হতো নইলে ময়লা পড়ে অপবিত্র হয়ে যাবে!! এর চাইতে বেশি যত্ন করে বাসায় রাখা হতো আমাদের সো-কেচ এর একদম উপরে যাতে কোরানের পবিত্রতা রক্ষা পায়!

মক্তবের হুজুর কোরানের পবিত্রতা রক্ষার্থেছিলেন কঠোর, এমন এমন বয়ান দিতো যে ভয়ে কোরান মাথায় নিয়ে হাটার জন্য প্রস্তুত থাকতাম। হুজুরের ছোট একটি বয়ান- যে কোরানকে অবহেলা করবে বা কোরানের যত্ন নেবে না তার জন্য বেহেস্ত হারাম ও কোটি কোটি বছর জাহান্নামেরআগুনে পোড়ানো হবে!! কেউ স্ব-ইচ্ছায় কোরান শরীফ যদি লাথি মারে বা তাহার উপর পা রাখে সাথে সাথে তার পা লুলা হয়ে পঁচে যাবে বা কিছু দিনের মধ্যে মারাও যেতে পারে!!!

একদিন কোরান শরীফ নিয়ে ভোরবেলায় মক্তবের উদ্দেশ্যে বাসা থেকে বের হলাম আর প্রতিদিনের মতো শক্ত করে ধরে হাটছিলাম, আমাদের পাড়ায় ছিলো কুকুরের ঝাক তখন আরো ভাদ্র মাস অতিবাহিত হচ্ছিলো! আমি আমাদের বাসার গলি থেকে বের হয়ে কিছু দূর যাওয়ার হঠাৎ দুই তিনটা কুকুর দৌড়ে এসে আমার চারপাশে শুকতে লাগলো। আমি ভয়ে দৌড়ে পালাচ্ছিলাম আর হোঁচট খেয়ে পড়ে গেলাম আর কোরানটাও আমার কাছ থেকে অনেক দূরে গিয়ে ছিটকে পড়ে, আমার ভয়ে প্রায় প্রাণ যায় যায় এই বুঝি আমার পা লুলা হয়ে পঁচে গেলো!! বার বার হাত পায়ের দিকে তাকাচ্ছিলাম!! ভয়ে ভয়ে বিষয়টা মক্তবের হুজুরকে জানালাম তিনি বললেন আল্লা মাফ করে দিবে আর এক বোতল পানি পড়া দিলেন যাতে আমার ভয় কেটে যায়!!!

কিছু দিনপর আমাদের পাড়ার একটি ঘরে হঠাৎ ধাও ধাও করে আগুন জ্বলে উঠলো, ঘরটি ছিলো এক লাইব্রেরীর মালিকের। তিনি বেশ ইমানদার বান্দা, ঘরে অনেকগুলো হাদিস ও কোরান লাইব্রেরীতে বিক্রয়ের জন্য স্টোক করে রাখা হয়েছিলো। আগুনে সব পুড়ে ছাই হয়ে গেছে!!! কোরানের পবিত্রতা ও আজগুবী শক্তি সমন্ধে টের পেতে বেশিক্ষন হয়তো লাগেনি আমার!!

এখন একটি গুরুত্বময় বিষয় না লিখে পারছি না–হুমায়ুন আজাদ স্যারের একটি কবিতা বাংলা বই থেকে বাতিল করা হয়েছে, কি কারনে করা হয়েছে! যে বই তোমাকে ভয় দেখায়, সে বই তুমি পড়বে না, যে বই তোমাকে অন্ধকারে নিয়ে যায় সে বই তুমি পড়বে না।।এই কবিতাটি বাতিল হওয়ার মূল কারনটা হলো এই যে, কোরান নামের কাল্পনিক বইটির বেশিরভাগ আয়াতে ভয় দেখানো হয়েছে! আর শিক্ষাবোর্ডের ইমানদার বান্দারা সেইটা টের পেয়েছে, তারা যানে কোরানে মানুষকে ভয়ভীতি দেখিয়ে আল্লা নামের কাল্পনিক ঈশ্বরে বিশ্বাস করাচ্ছে!!!

এইবার আসুন অন্য একটি বিষয় নিয়ে কথা বলি-“বিসমিল্লাই গলদ” নামের একটি কথা আমরা অহরহ শুনতে পাই আর এই বিসমিল্লাহ আয়াতটি যে আল্লার নাজিলকৃত আয়াত না তার একটি ছোট প্রমাণ দিচ্ছি!”বিসমিল্লাহির রাহমানির রহিম” এর বাংলা অর্থ- পরম করুণাময় আল্লার নামে শুরু করছি!আর এই আয়াতটি আল্লার কাছ থেকে যদি প্রেরিত হয় বা আল্লার নাজিল করা হয়, তাহলে আল্লা এখানে কোন আল্লাকে স্মরণ করছেন ? মুমিন বান্দারা চুপ!! এইসব প্র্যাক্টিকাল তথ্য ও বিসমিল্লা নামের ভূয়া আয়াতটি জানার পর কোরান শরীফ নামের গল্পের বইটি নিয়ে আর কিছু বলার থাকে না, আর কোরান নামের গল্পের বইটিতে সাধারন বইয়ের মতই নবীদের জীবনী লিখে একটি বই প্রকাশ করেছিলো মুহাম্মদের সাহাবীরা। আর মুহাম্মদও সেটাকে আল্লার বাণী বলে প্রচার করেছিলো। আর এখন কিছু ধর্মান্ধ মোল্লারা ব্যাবসার তাগিদে কোরান প্রচার করে বেড়াচ্ছে…..

রি-পোষ্ট

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

৫ thoughts on “কোরআন শরীফ একটি কাল্পনিক গল্পের বই মাত্র…!!

  1. আগুনে সব পুড়ে ছাই হয়ে গেছে!!!

    আগুনে সব পুড়ে ছাই হয়ে গেছে!!! কোরানের পবিত্রতা ও আজগুবী শক্তি সমন্ধে টের পেতে বেশিক্ষন হয়তো লাগেনি আমার!!

    কোরানে শুধু আগুন কেন, কোরানের উপর হাগা-মুতা করলেও কারো কিছু হবে না। কারন কোরান একটা কাগজের বই মাত্র। কাগজের বইয়ে তো অলৈকিকত্ব থাকার কথা না। তবে এটা একটা জীবন বিধান। যেটা মানলে স্বর্গ পাবার আর না মানলে নরকে যাবার বিরাট সম্ভাবনা আছে। কোরান তেমনটাই দাবী করে। তাই কোরানের বিধানগুলা অলৈকিক হতে পারে। কিন্তু কাগজে ছাপান কোরান অলৈকিক হবার কোন সম্ভাবনা নাই। কোরান বোধহয় তেমনটা দাবীও করে নাই।

    তবে ছাগলা দাড়ির হুজুর আর মাথা মোটা নাস্তিকরা এটা নিয়ে বিরাট বিতর্ক করে। এগুলা স্রেফ ছাগলামী।

  2. পড়লাম। ৫৭ ধারার কারণে কথা
    পড়লাম। ৫৭ ধারার কারণে কথা বলবো না

    ==============================================
    আমার ফেসবুকের মূল ID হ্যাক হয়েছিল ২ মাস আগে। নানা চেষ্টা তদবিরের পর গতকাল আকস্মিক তা ফিরে পেলাম। আমার এ মুল আইডিতে আমার ইস্টিশন বন্ধুদের Add করার ও আমার ইস্টিশনে আমার পোস্ট পড়ার অনুরোধ করছি। লিংক : https://web.facebook.com/JahangirHossainDDMoEduGoB

  3. ধর্ম কে এইভাবে সবার জন্য এক
    ধর্ম কে এইভাবে সবার জন্য এক পাল্লায় তুললে হবে না । ধর্ম হল ব্যক্তিগত এবং ধর্ম থেকে শান্তি এক এক জন এক এক রকম পায় ।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

− 1 = 1