বিপদজনক মানুষ, পশুপাখি নয়


লেকের পাশে বসে খুব মনোযোগ সহকারে বার্গার ভক্ষণ করছিলাম। আশেপাশে মানুষজনের সংখ্যাও কম ছিল না। কেউ গল্প করছিল, কেউ ভালোবাসার মানুষকে আদর করছিল, কেউ গান গাইছিল, কেউ পান করছিল। আর আমি মনোযোগ দিয়ে ভক্ষণ করেই যাচ্ছিলাম।

হঠাৎ মনে হল, আমার সামনে ও পাশে কেউ আছে। কিছু একটা হচ্ছে! বার্গার কামড়াতে কামড়াতেই তাকিয়ে দেখি আমার সামনে ও পাশে অনেকগুলি পাখি। পাখিগুলির নাম ঠিক জানা নেই। পাখিগুলি এমনভাবে আমার পাশে বসে আছে যেন আমিও বুঝি একটা পাখি! পাখিগুলির কোন ভয়ডর নেই। তারা তাদের মনের মতো পকপক করেই যাচ্ছে। আবার কখনো কখনো আমার দিকে লক্ষ্য করছে। অনেকক্ষণ পর টের পেলাম, পাখিগুলি আমার পাশে রাখা একটি বার্গার মনের মাধুরী মিশিয়ে ভক্ষণ করছে।

আমাদের দেশে এমন চিত্র লক্ষ্য করা যায় না। কারণ আমরা পশুপাখি কারো সাথেই আপন নই। এমনকি মানুষের সাথেও নই। আমাদের দেশের মানুষগুলির ভাবনা, নিজেই যেখানে বাঁচতে পারি না সেখানে পশুপাখিকে আদরযত্ন বিলাসিতা ছাড়া আর কিছু নয়। পাখি দেখলে ঢিল ছুঁড়তে হবে, চিৎকার করতে হবে, কুকুরবিড়াল দেখলে ঢিল মারতে হবে বা লাত্থি দিতে হবে এমনই হয়ে থাকে আমাদের অঞ্চলে। মানুষ হিসেবেই যেখানে আমরা মানুষকে বিবেচনা করি না, মানুষের বিপদে ছুটে আসি না, সাহায্যের হাত বাড়াই না- সেখানে কুকুরবিড়াল ও পাখির প্রতি মায়ামমতা দেখানোর সময় মানুষের নেই। এমন নয় যে, পশুপাখিদের যত্ন বাদ দিয়ে দেশের প্রতিটি মানুষ, প্রতিটি পরিবার নিজ নিজ ক্ষেত্রে, অংশে খুব চমৎকারভাবে জীবনযাত্রা চালিয়ে যাচ্ছে।

আমাদের দেশে ‘কুকুরের বাচ্চা’ ‘কুত্তার বাচ্চা’ খুব জনপ্রিয় গালি। মানুষ গালমন্দ করে এই বলে যে ‘তুই তো ব্যাটা একটা কুত্তা’, মেয়েদের বলা হয় ‘কুত্তার মতো ঘেউ ঘেউ করে’! অথচ আমাদের দেশের মানুষেরা জানেই না যে মানুষের আচরণ, ব্যবহারের উপর অনেকাংশই কুকুরের আচরণ নির্ভর করে।

জাতিগতভাবে বাঙালি খুবই আক্রমণাত্মক ও হিংসাত্মক। কখনো কখনো বিষাক্তও বটে। কথায় কথায় গালাগাল, মারপিট এগুলো বীরত্বের সাথে দেখা হয়। মানুষ খুব উচ্চস্বরে বলে থাকে- ‘তুই তো একটা পাগলা কুত্তা’। অথচ একুশ শতাব্দীতে বাস করেও এখানের মানুষ জানতে পারলো না যে মানুষের আচরণ ও ব্যবহারের কারণেই কুকুর কখনো কখনো ক্ষিপ্ত হয়। পাগলা কুত্তার চেয়েও বিপদজনক যে মানুষ তা মানুষ বুঝে উঠল না। কুকুরের উপর ভরসা করে আজীবন থাকা যায়। কারণ কুকুর বিশ্বাসঘাতকতা করে না কিন্তু মানুষ ঠিকই করে। বিষাক্ত মানুষের ছোবলে মানুষের সাথে পশুপাখিও মারা পড়ে।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

+ 77 = 85