বিপন্ন জাতি রোহিঙ্গা ও কিছু সংকীর্ণ বাইঞ্চোদ বাঙালি -১

বিপণ্ন জাতি রোহিঙ্গা ও কিছু সংকীর্ণ বাইঞ্চোদ বাঙালি -১

কিছুদিন আগে একটি নিউজের হেডিং হয়েছিলো রোহিঙ্গারা ৭ বাঙালীকে প্যাঁদিয়েছে, কেন প্যাঁদানি খেয়েছে এ প্রশ্ন একবারো কেউ করেনি! কিন্তু সারা দেশে ছড়িয়ে দেয়া হয়েছে রোহিঙ্গারা বাঙালিদের মারা শুরু করছে। রোহিঙ্গারা হ্যান-ত্যান।

আসুন নিউজটি আসলে কেমন ছিলো সেটা বলি- রোহিঙ্গারা যখন মিয়ানমারের মিলিটারীদের হাতে প্রথম দফায় নির্যাতিত হয়ে বাংলাদেশে ঢুকছে অল্প সহায়ক গবাদিপশু, টাকা, স্বর্ণালংকার সহ বিভিন্ন দ্রব্যাদি নিয়ে। তখনই এমন অবস্থায় বাংলাদেশী কিছু শুয়ারছানা তাদের সেইটুকু সহায় পর্যন্ত ছিনিয়ে নিচ্ছে। এমন করুণ অবস্থায় দ্বিতীয় দফা নির্যাতিত হচ্ছে।

ধরে নিন যারা অযথা’ই রোহিঙ্গাদের পেছনে লেগেছেন তারা যে কোন কারনে বাংলাদেশে নির্যাতিত হয়ে বর্ডার ক্রস করে কলকাতায় গিয়েছেন সাথে আপনাদের মা-বোন এবং অল্প কিছু টাকা নিয়ে, সেখানে কিছু খাচ্চর আপনার সেই সম্বলটুকু ছিনিয়ে নিতে এসেছে, এমন অবস্থায় আপনি কি করবেন? আপনার সাথে থাকা বোন বা টাকা পয়সা তাদের দিয়ে দিবেন না প্রতিরোধ করবেন? হ্যাঁ সেদিন যে নিউজটিতে রোহিঙ্গাদের উপর দোষ চাপিয়ে দেয়া হয়েছিলো। হেডিংটা হওয়ার কথা ছিলো এমন ‘৭ ছিনতাইকারীকে বেধড়ক পিটিয়েছে নির্যাতিত রোহিঙ্গারা’ কিন্তু হয়েছে তার উল্টো!

এবার আসুন, বিজিবি এবং পুলিশের ওপর নাকি হামলা করেছে রোহিঙ্গারা এমনও একটি খবর প্রচারিত হয়েছে কয়েকটি টিভি চ্যানেল ও প্রিন্ট মিডিয়ায়! এতে অনেকেই রোহিঙ্গাদের জঙ্গি ও সন্ত্রাসী বলে ট্যাগ দিয়ে রোহিঙ্গা জনগেষ্ঠীকে আশ্রয়বিচ্ছিন্ন করার চেষ্টা চালাচ্ছে।

মূল বিষয়, বিজিবি বা সেনাবাহিনীর চরিত্র নিয়ে কোনোভাবেই প্রশ্ন তোলা যায় না আমাদের দেশে। আমি জানি না, কিন্তু মনে হচ্ছে তনু দির কথা সম্ভবত ভুলে গেছে দেশপ্রেমিক ভাইজানরা। তারা এইটাই বুঝে বিজিবির উপর আক্রমণ চালিয়েছে রোহিঙ্গারা! কিন্তু কেন আক্রমণ করেছে সে প্রশ্ন আমাদের তথাকথিত প্রগতিশীল জ্ঞাতিকুল বুঝিতে চায় না। যখন পাকিস্তান মিলিটারী এই ভূখন্ডের উপরই নারীদের ওপর চালিয়েছে নির্মম নির্যাতন তখন কি মুক্তিবাহিনীরা প্রতিবাদ করেনি? আক্রমণ করেনি পাকিস্তানি মিলিটারীদের? অবশ্যই আক্রমণ করেছে, তেমনিভাবে রোহিঙ্গারাও আত্মরক্ষার জন্য হামলা করবেই। তাই বলে রোহিঙ্গারা জঙ্গি ও সন্ত্রাসী হয়ে যায় নাই।

‘আরসা’ নিয়ে যাদের এখনো কাতুকুতি রয়েছে তাদের উদ্দেশ্যে শুধু একটাই কথা বলবো- নিজের ভূখন্ডের অধিকার, নিজের ভূখন্ডের সার্বভৌমত্ব রোহিঙ্গারা চাইতেই পারে। তাতে আপনাদের সমস্যা কী? ‘আরসা’ জঙ্গিবাদী সংগঠন বলে ট্যাগ দিচ্ছেন আপনারা, আরো বলছেন প্রত্যেকটা মুসলিমের অনুভুতিতে একটা কইরা জঙ্গি বাস করে! তাহলে বাংলাদেশের ৯৯% মানুষই জঙ্গি?

চলবে?

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

২ thoughts on “বিপন্ন জাতি রোহিঙ্গা ও কিছু সংকীর্ণ বাইঞ্চোদ বাঙালি -১

  1. রোহিঙ্গারাও আত্নরক্ষার জন্য
    রোহিঙ্গারাও আত্নরক্ষার জন্য হামলা করবেই!! কী জোর দিয়েই না কথাটা বললেন!! আপ্লুত না হয়ে পারা গেল না!! আপনার একবারো কি মনে হলো না যে এই আত্নরক্ষার শিক্ষাটা রোহিঙ্গারা তাঁদের নিজ দেশে কাজে লাগালে ভালো হতো না??

  2. পড়লাম।
    পড়লাম।
    ==============================================
    আমার ফেসবুকের মূল ID হ্যাক হয়েছিল ২ মাস আগে। নানা চেষ্টা তদবিরের পর আকস্মিক তা ফিরে পেলাম। আমার এ মুল আইডিতে আমার ইস্টিশন বন্ধুদের Add করার ও আমার ইস্টিশনে আমার পোস্ট পড়ার অনুরোধ করছি। লিংক : https://web.facebook.com/JahangirHossainDDMoEduGoB

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

32 + = 42