প্রাক্তন শরীর

তোমার ঠোঁটের নিচের তিলটি অমাবস্যার
অন্ধকারে জ্বলে উঠে
পূর্ণিমার চাঁদ হয়ে,
আর আলো ছড়ায় তোমার টলমলে অধরে।
তোমার পিঠের তিলটি একগুচ্ছ ঘনকালো কেশের
মাঝে জেগে উঠে,
নিঃসঙ্গ তারা হয়ে; শোভাবর্ধন করে তোমার নিটোল
ভাঁজহীন নগ্ন পিঠে।
তোমার শরীরের সবচে’ উঁচু স্থানের মাঝের
তিলটি হয়ে ওঠে
সর্বোচ্চ উদ্ধত দ্বীপ, আর গ্রহণ করে আমার বাধাহীন
উন্মুখ অধরের স্পর্শ।
তোমার প্রিয়তম স্বামী স্পর্শ করবে দু’পাহাড়ের
মাঝের তিলটিকে,
এবং এড়িয়ে যাবে শরীরে অসংখ্য নিঃসঙ্গ
তিলগুলি’কে।
তোমার ত্রিভুজের পাশের
তিলটিকে হয়তো দেখতে পাবে,
শুনাবে মুখস্থ বুলি, আর নির্বোধের মত ভোগ
করতে চাইবে।
মনে পড়বে তখন তোমার,
প্রথম আবিস্কার করা আমার ত্রিভুজের ক্ষেত্রফলের
বর্ণনা,
আর তোমার ঐ তিলটিকে নিমগ্ন ভাবে উপভোগের
কথা।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

21 − = 11