ফ্যাসিজম ও কমিউনিজম

অনেকেই বলে থাকেন যে ফ্যাসিজমের সঙ্গে কমিউনিজমের কোন পার্থক্য নেই, কারণ দুটোই একনায়কত্বের কথাই বলে এবং বিশ্বাস করে।
আমার অভিজ্ঞতা ও জানামতে যারা এসব কথা বলে তাদের সংখ্যা নেহাৎই কম নয়। আমাদের মধ্যে অনেকেই রয়েছেন যারা এই ধরনের অযৌক্তিক প্রশ্ন বা সরাসরি ভুল ব্যাখ্যা চাপিয়ে দিতে পছন্দ করেন।

তাহলে আমাদের জানা দরকার,
ফ্যাসিজম কী আর কমিউনিজম কী?

ফ্যাসিজম হচ্ছে বুর্জোয়া রাজনীতির গর্ভ থেকে সৃষ্টি হওয়া একনায়কত্ব এবং তার মূল কাজ হচ্ছে পুঁজিপতি শ্রেণির তোষণ করা আর বৃহৎ পুঁজিবাদী প্রভুদের দালালি করা, দালালি বলতে একদম আনুগত্য হয়ে দালালি না, কারণ তখন সে ফ্যাসিস্ট চরিত্রগত কারণে কারো প্রতি ভ্রুক্ষেপ করে না। ফ্যাসিজম যখন মাথা চাড়া দিয়ে তুঙ্গে ওঠে তখন সে নিজস্ব একটা ক্যাটাগরি বা প্যাটার্ন তৈরি করে ফেলে। আর তখন শ্রমিক শ্রেণির ওপর নেমে আসে তীব্র শোষণ ও অত্যাচার-নির্যাতন। তখন আবার সে’ই প্যাটার্নেই ঘুরপাক খেয়ে ফ্যাসিজম ধ্বংস হয়।

আর তার মূল কারণ হচ্ছে শ্রমিক শ্রেণির একনায়কত্ব বা শ্রেণিহীন সমাজ প্রতিষ্ঠার মার্কসীয় রাজনৈতিক বিজ্ঞান, যা অনিবার্য বৈজ্ঞানিক সত্যতা। যেখানে যত বেশি মাত্রায় অত্যাচার ও তীব্র শোষণ প্রক্রিয়া চালু হবে সেখানেই কমিউনিজম বা প্রলেতারিয়েত শ্রেণির বিপ্লব তত বেশি ত্বরান্বিত হবে ।

কমিউনিজম হচ্ছে সর্বহারা শ্রেণির একনায়কত্ব। যেখানে কারো ব্যক্তিগত হঠকারি সিদ্ধান্তে শ্রমিক শ্রেণির একনায়কত্ব পরিচালিত হবে না বা কোনো একটা পেটোয়া শ্রেণির নেতৃত্বেও না। শ্রমিক শ্রেণির একনায়কত্ব কায়েমের পর উৎপাদনের সাথে যুক্ত ও সচেতন কমিউনিস্টরাই তা পরিচালনা করে। এখানেই কমিউনিজম এবং ফ্যাসিজমের একনায়কত্বের আকাশ-পাতাল পার্থক্য।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

2 + 8 =