অসাধারণ দেশের মহান মানুষ

আমরা সেই অসাধারণ দেশের মহান মানুষ, যারা ছিনতাইকারীদের পিটিয়ে মেরে ফেলতে অভ্যস্ত কিন্তু রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে হাজার হাজার কোটি টাকা গায়েব হয়ে গেলেও উত্তেজিত হই না। আমরা এতটাই মহান যে, রিকশাভাড়া পাঁচ টাকা বেশি চাইলে চড়িয়ে দাঁত ফেলে দেওয়ার হুমকি দিয়ে থাকি কিন্তু আলিশান রেস্তোরাতে ভ্যাট ট্যাক্স যুক্ত থাকার পরেও দশ টাকা বকশিশ না দিতে পারলে আত্মসম্মানবোধে আঘাত হানে।

আমরা সেই অসাধারণ দেশের সুনাগরিক, যারা চব্বিশ ঘণ্টা ধরে অন্যের নীতি নৈতিকতা নিয়ে প্রশ্ন তুলি অথচ নিজের কর্মকান্ডে মুখ লুকিয়ে সাধু সাজি। আমরা এতটাই সৎ চরিত্রের অধিকারী যে, অন্যের কাছ থেকে টাকা ধার নিতে কার্পণ্যবোধ করি না, সেইসাথে সাহায্যকারীকে বিপদের মুখে ফেলতেও দ্বিধাবোধ করি না।

আমরা সেই অসাধারণ দেশের বীর, যারা নিজের পরিবারের নিরাপত্তা নিয়ে খুব সচেতন কিন্তু অন্যের পরিবারকে ঝুঁকিতে দেখতে ও ফেলতে স্বস্তিবোধ করে থাকি। আমরা এতটাই বড় মনের মানুষ যে, অন্যের সুখে আমরা তীব্র যন্ত্রণাবোধ করি অথচ নিজের সুখের সময় অন্যের যন্ত্রণা দেখতে পৈশাচিক আনন্দে মেতে উঠি।

আমরা সেই অসাধারণ দেশের মানবিক মানুষ, যারা ধর্ষণে শিকার ধর্ষিতাকে রক্ষার পরিবর্তে ধর্ষকের পক্ষে যুক্তি উপস্থাপন করে থাকি। আমরা এতটাই মানবিক যে, রাস্তাঘাটে কোন সম্ভাব্য ধর্ষকের দ্বারা কোন সম্ভাব্য ধর্ষণের শিকার নারীকে বোঝানোর চেষ্টা করি যে, এবারের মতো যেন তাকে মাফ করে দেওয়া হোক।

আমরা সেই অসাধারণ দেশের অসাধারণ মানুষ, যারা ভেজাল পণ্যের বিরুদ্ধে তীব্র আন্দোলন গড়ে তুলতে চাই না কিন্তু কোন নারী কার সাথে কী ভেজাল করেছে সেই সকল বিষয়ে খুব সোচ্চার থাকি।

আমরা সেই অসাধারণ দেশের শিক্ষিত মানুষ, যারা রাজাকারকে চাঁদে খুঁজে পাই কিন্তু কৃষক, শ্রমিক, গার্মেন্টসকর্মী, মেহনতি জনতার দুর্দশা ভুলে থাকতে চাই। আমরা এতটাই শিক্ষিত যে, আমাদের দেশে স্কুলের সংখ্যার থেকে মসজিদের সংখ্যা বেশি। আমরা এতটাই শিক্ষিত ও মার্জিত যে, আমাদের শিক্ষাখাতে অর্থ ব্যয় করতে যথেষ্ট অনীহা কিন্তু ধর্মীয় স্থাপনা বানানোর জন্য অর্থ সব সময়ই মজুত থাকে।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

− 7 = 1