মানুষ স্থির নয়

আমার বোন স্মিতা আমাকে ফোন করে ছোটবেলার স্মৃতি মনে করিয়ে দিয়ে বলল, চল না ছোটবেলার মতন কে কাকে কতো ভালোবাসে সেই খেলাটি খেলি! এই উদ্ভট খেলাটি বাঙলাদেশের প্রায় প্রতিটি পরিবারের সকলেই খেলেছে এবং হয়তো এখনও অনেকেই খেলে। অর্থাৎ আপনার পরিবারের কোন সদস্যকে আপনি সবচে’ বেশি ভালোবাসেন তা সিরিয়াল অনুসারে সাজানো।

এতো বছর পর এই খেলাটি খেলতে গিয়ে উপলব্ধি করলাম- আমরা সকলেই পরিবর্তন হয়ে গিয়েছি। সময়ের সাথে সাথে মানুষ পরিবর্তন হবেই। মানুষের সাথে পরিবর্তনের সম্পর্ক আছে। মানুষ স্থির নয়, মানুষের মস্তিষ্ক স্থির নয়। মানুষের প্রেম, ভালোবাসা, কাম, চাহিদা, স্বপ্ন, কোন কিছুই একটি নির্দিষ্ট স্থানে বসে থাকে না। পৃথিবী যতো উন্নত ও আধুনিক হচ্ছে, মানুষ কারণে অকারণে ততোই ছুটছে।

যেই ‘মা’কে আমরা তিন ভাইবোন সবার উপরে রাখতাম, সেই ‘মা’ এর অবস্থান আমার বোনদের ভালোবাসার তালিকায় এখন দ্বিতীয় ধাপে অবতীর্ণ হয়েছে। অথচ এই ‘মা’ কখনো প্রথম থেকে দ্বিতীয় ধাপে নিম্নমুখী হবে তা আমাদের কল্পনার বাইরে ছিল।

কিন্তু, ছোটকালেই আমাদের মা বলে দিয়েছিলো যে, এই ভালোবাসার তালিকা পরিবর্তনশীল। কোন ভালোবাসাই, কোন চাহিদাই সব যুগে একই স্থানে অবস্থান করে না। তখন আমরা মায়ের কথা পাত্তা দেই নি। কারণ আমরা অবুঝ এবং জীবন সম্বন্ধে আমাদের ধারণা ছিল না। আমার ভালোবাসার তালিকায় এখনও আমার মায়ের স্থান শীর্ষে কারণ আমার জীবনে কথিত চিরস্থায়ী কোন নারী বা সন্তান নেই কিন্তু আমার দুই বোনের ভালোবাসার তালিকায় তাদের দুই সন্তান এখন শীর্ষ পর্যায়ে স্থান দখল করে ক্ষমতা গ্রহণ করে নিয়েছে। এবং এটা অস্বাভাবিক নয়, বরং এটাই স্বাভাবিক এবং বাস্তবসম্মত।

প্রতিটি মানুষই সহনীয় সহ্য ক্ষমতা নিয়ে পৃথিবীতে আসে এবং এই জগত তাকে আরও নিষ্ঠুর করে তোলে, যার ফলে পিতামাতার মৃত্যু হলেও আমরা ঠিকই বেঁচে থাকতে পারি। কামে লিপ্ত হতে পারি। নতুন স্বপ্ন দেখতে পারি। মৃত বাবা মা ঠিকই আমাদের স্মৃতিতে থাকে, কিন্তু তাদের জন্য আমাদের জীবন থেমে থাকে না। স্মৃতিও সময়ের সাথে সাথে ধূসর হতে থাকে, কষ্ট ও যন্ত্রণাও হারিয়ে যেতে থাকে।

আরও নিষ্ঠুর, কঠিন, অপ্রিয় বাস্তবতা হচ্ছে আমরা পিতামাতার মৃত্যুর চাইতেও বেশি যন্ত্রণা বোধ করি যখন আমাদের প্রেম আমাদের সাথে বিশ্বাসঘাতকতা করে থাকে। দুর্বল চিত্তের মানুষের কথা ভিন্ন; অধিকাংশ মানুষই নিজের পিতামাতার মৃত্যুতে আত্মহত্যার কথা চিন্তা করে না, কিন্তু ঠিকই প্রেমে দাগ পড়লে কিংবা বিদায়ের ঘণ্টা বেজে গেলে জীবনকে অস্বীকার করতেও কার্পণ্যবোধ করে না। এটাই মানুষ, বিচিত্র মানুষ, বৈচিত্র্যময়ই মানুষের বৈশিষ্ট্য। দিন শেষে আমরা বেঁচে থাকি শুধু নিজের জন্যে। নতুন স্বপ্নের জন্যে।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

− 2 = 8