বিজ্ঞান কি আর্শীবাদ, নাকি মহা অভিশাপ হয়ে দাঁড়াচ্ছে ভাববার বিষয়!!

ইন্টারনেট প্রযুক্তি দুনিয়ায় নতুন সংযোজন 5G নেটওয়ার্ক। আমেরিকার বিশিষ্ট Dr. Thomas Cowan, M. D. hypothesizes দাবি করছেন Coronavirus (covid-19) এর প্রভাব হচ্ছে উন্নত বিশ্বে 5G Network চালু করার ফলে হয়েছে, কারন এই Network চালু করার কারনে পৃথিবীতে একটা প্রযুক্তিগত radiation বৃদ্ধি পেয়েছে। যা কিনা পৃথিবীর সহিত অতিরঞ্জন বিক্রিয়ার ফলশ্রুতিতে প্রানী থেকে মানবদেহে করোনাভাইরাস সৃষ্টির মাধ্যমে এক ধরনের তীব্র আঘাত তৈরি করে মৃত্যু ঘটাচ্ছে। তিনি এটাও দাবি করেছেন ১লা নভেম্বর ২০১৯ তারিখে চীনে 5G নেটওয়ার্ক প্রথম চালু করা হয় এবং এতে করোনাভাইরাসের প্রভাবে লোক মারা যাওয়া শুরু করে। এমনকি আরো জানা যায় ২০১৮ সালে অক্টোবর ও নভেম্বরে নেদারল্যান্ডে যখন পরীক্ষামূলকের জন্য প্রথম 5G নেটওয়ার্ক চালু হয় তখন পার্কে (Huijgenspark নামক এলাকায়) শত শত পাখি মারা যায়। এই পাখি মারা যাওয়া বিষয়টি মিউনিসিপাল এলাকার কর্তৃপক্ষও বিবৃতিতে স্বীকার করেছেন। যার জন্য তিনি 5G network বন্ধের পক্ষে জোর মত দিয়েছেন। এছাড়া তিনি তার আলোচনায় বর্ণনা করেছেন ইতিহাসে স্মরণীয় রয়েছে ১৯১৮ জানুয়ারি থেকে ডিসেম্বর ১৯২০ সাল পর্যন্ত Spain -এ Spanish Flu যা তখন Pendamic আকারে প্রভাব বিস্তারের মাধ্যমে বিশ্বে একধরনের মহামারি সৃষ্টি হয়েছিল। যা তখন Radio আবিষ্কার পরবর্তী স্পেনে প্রথম Radio Radiation অতিমাত্রায় বৃদ্ধি করা হয়। এতে পৃথিবীতে একধরনের প্রযুক্তিগত বিক্রিয়ার ফলে তখন Spanish Fluenza H1N1 ভাইরাস বিস্তার করে মারাত্মকভাবে মানুষের জীবনহানি করেছে। এমনকি পুরো বিশ্বে তখন এ ভাইরাসে ৫০০ মিলিয়ন, যা তখন তিনভাগের এক ভাগ মানুষ আক্রান্ত হয়েছিলেন। আর মারা গেছেন অগণিত মানুষ।

বিষয়টি সত্যিই চিন্তার বিষয়! তার রেশ সম্ভবত ইতালী ও স্পেনে এখনো বিরাজ করছে কিনা? যা আরো 5G নেটওয়ার্ক radition ছড়ানোর বিষয়ের সাথে connection সৃষ্টি করেছে বেশি করে। গতকাল পর্যন্ত স্পেনে এই করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ২০ হাজারের উর্ধ্বে এবং মারা গেছেন ১ হাজারের উপরে। আর ইতালী চীনকেও টপকে গেছে মৃত্যুর দিক থেকে। এছাড়া আক্রান্ত হচ্ছেন প্রতিনিয়ত বেশি বেশি। প্রযুক্তিগত মান উন্নয়ন আসলে পৃথিবীর জন্য ভালোর পাশাপাশি খারাপই ডেকে আনসে নাতো বিষয়টি সত্যি ভাবার বিষয়? কারন প্রযুক্তিগত উন্নত বিশ্বে যেভাবে এই ভাইরাসটি দ্রুত ছড়াচ্ছে, তৃতীয় বিশ্ব অনুন্নত প্রযুক্তি দেশে, বিশেষত দুর্গম আফ্রিকা অঞ্চলে এই করোনাভাইরাসের প্রভাব একটু মন্থর গতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে। আর চীনের খুব কাছে মায়ানমারে, যেখানে প্রযুক্তির ছোঁয়া তেমন নেই বললে চলে,সেখানেতো এখনো করোনাভাইরাসের প্রভাবই চোখে পড়ছে না। তাদের নেত্রী অং সান সূচি দাবি করছে মায়ানমারে শূন্য করোনাভাইরাস। তবে WHO সহ অনেকে উল্লেখিত 5G নেটওয়ার্কের radiation বৃদ্ধি মাত্রার ফলে এই করোনাভাইরাস মানতে নারাজ। তারা এটাকে উন্নত প্রযুক্তিকে বাঁধাগ্রস্ত করার প্রোপাগান্ডা, সত্য নয় বলে অভিহিত করেছেন।
তথ্যসূত্র:https://www.newsweek.com/youtube-video-suggests-5g-internet-causes-coronavirus-people-are-falling-it-1493321

ফেসবুক মন্তব্য

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

61 − = 53