করোনাভাইরাস(COVID-19) ভ্যাকসিন প্রসঙ্গ।।

(১) যতক্ষণ পর্যন্ত না ভ্যাকসিন আবিস্কার হয়, তার চাইতে অনেক ভালো হবে এখন নিজে নিজে সচেতন থাকা, খাওয়া-দাওয়া ঠিক রাখা এবং নিজে নিরাপদে থেকে অপরকেও নিরাপদ থাকার বিষয়টি জানানো। প্রবাদ আছে- ” Prevention is better than Cure”. আমি আইনের মানুষ, তাই মেডিকেল সাইন্স সম্পর্কে যতটুকু স্বল্প ধারনা আমার- ভ্যাকসিন তাদের জন্যই কার্যকর হয়, যাদের রোগটি নেই অগ্রিম প্রতিষেধক হিসেবে গ্রহনের মাধ্যমে। আর যারা Already ভাইরাসে আক্রান্ত হবে তাদের জন্য এন্টিবায়োটিক ঔষধ সেবন করতে হবে বা করাটাই উত্তম। আমার মনে আছে বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সসয় আমি একবার “হেপাটাইটিস-বি Vaccine” নিয়েছিলাম। তার আগে আমার হেপাটাইটিস বি আছে কিনা রক্ত পরীক্ষা করাতে হয়েছিল। তাই ভ্যাকসিন প্রয়োগ বা ব্যবহার করার আগে অবশ্যই ensure হতে হয় রোগটি যে নেই। আর ছোটবেলায় টিকা নেয়ার কথা আমার স্মরনে নেই। জানিনা কতবার নিতে হয়েছিল।


অতএব নিজে নিরাপদ দূরত্বে থাকুন অন্যকেও নিরাপদ রাখুন। সামাজিকতা এড়িয়ে চলে নিজস্ব নিরাপত্তা গড়ে তোলায় হবে এখন বুদ্ধিমানের কাজ। কারন বাংলাদেশে স্বাস্থ্যব্যবস্থায় অগাধ ঘাটতি রয়েছে। আজকে যাদের ভেতরে ভেতরে করোনাভাইরাসের লক্ষণ আছে তারাই পরীক্ষা করাতে পারছে না রোগটি নির্ণয়ের জন্য। আর এ মুহূর্তে যারা ভালো আছেন তাদের কথা বাদ থাকলো।

(২) গত কয়েকদিনে ইউরোপীয় ইউনিয়ন ১০ মিলিয়ন ইউরো দিয়েছে করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন গবেষণা করে বিকশিত করার জন্য। আর এই প্রজেক্টে যুক্ত করা হয়েছে ইউরোপের ৩০০ টা হসপিটাল ও ৯০০ টি ল্যাবরেটরিকে। ফ্রান্সে করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন বিকাশের জন্য “লুই পাস্তুর ইন্সিটিউটে” একটি টাস্ক ফোর্স গঠন করা হয়েছে। পাস্তুর ইনস্টিটিউটের বৈজ্ঞানিক পরিচালক প্রফেসর ক্রিস্টফ বলেছেন- “বেশ কয়েক সপ্তাহ ধরে আমারা এই ভাইরাসের Genom sequency জেনেছি। তাই আমাদের গবেষণাবিদরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি করোনাভাইরাসের পূর্বের ফ্যামেলিয়াল গোত্র ভাইরাস SARS COVID- 2 এর Vaccine কে মাথায় রেখে নতুন COVID-19 এর Vaccine তৈরির গবেষণা শুরু করা, যা আমরা গত ১৩ মার্চ থেকে পরীক্ষামূলক কাজ শুরু করে দিয়েছি।” তারা আরো বলেছেন এই ভ্যাকসিনের সঠিক ফলাফল বা পূর্ণ ব্যবহার পেতে সম্ভাব্য ১৮ মাস লাগবে, যা আগামী ২০২১ সালের গ্রীষ্মকাল পর্যন্ত আমাদের অপেক্ষা করতে হবে। তখন হয়তো এই ভাইরাস আর মহামারি (Epidemic) হিসেবে থাকবে না।

(৩) অন্যদিকে আমেরিকার Biotechnology Company Moderna কর্তৃক গত ১৬ মার্চ একজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত নারী রোগীকে তার স্বেচ্ছায় MRNA-1273 নামে একটি করোনাভাইরাস রোগের Vaccine প্রয়োগ করা হয়েছে। Biotechnology কোম্পানিটি এও বলছে MRNA-1273 নামক vaccine টি হচ্ছে মূলত একটি করোনাভাইরাস আক্রান্তদের জন্য নতুন থেরাপি। অপরদিকে আমেরিকার জাতীয় স্বাস্থ্য ইন্সিটিউট বলছে এই চিকিৎসাটি এখনো প্রাথমিক পর্যায়ে রয়েছে, যা তিনটি Dose প্রয়োগের মাধ্যমে বোঝা যাবে। কারন তারা ভ্যাকসিনটি আরো কয়েকজন সুস্থ্য মানুষের নিকটও প্রয়োগ করবেন এবং জানিয়েছেন যার ভালো ফলাফল হয়তো ১২ থেকে ১৩ মাসের আগে পাওয়া সম্ভব হবে না। আর Vaccine টির মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে দুটি Dose প্রয়োগে সময়সূচির সুরক্ষা করা এবং Vaccine টির প্রতিক্রিয়া বা কার্যশীলতা অধিকভাবে মূল্যায়ন করা। এরপরেই জানা যাবে করোনাভাইরাস COVID-19 এর সঠিক ও সফল চিকিৎসা ব্যবস্থা।

তথ্যসূত্র:https://sante.journaldesfemmes.fr/maladies/2620433-vaccin-contre-coronavirus-remede-efficacite-traitement/

Leave a Reply

avatar
  Subscribe  
Notify of