অপরূপ সেই মেয়েটি

মেঘলা দিন। একটু আগেই বৃষ্টি হয়েছে। তাই পরিবেশটা ঠান্ডা ঠান্ডা। বাতাস ও বইছে। সে এক মনোরম পরিবেশ।

মেঘলা দিন। একটু আগেই বৃষ্টি হয়েছে। তাই পরিবেশটা ঠান্ডা ঠান্ডা। বাতাস ও বইছে। সে এক মনোরম পরিবেশ।
নদী পুকুরের জলে পা ফেলে রেখেছে। পায়ে তার নুপুর ঝন ঝন করছে। মনের আনন্দে গান গাইছে সে বসে বসে। প্রকৃতির মনোরম পরিবেশ উপভোগ করছে সে। মাথায় তার ঘন কালো চুল। চুল গুলো খোলা । বাতাসে ভাসছে সেগুলো । গায়ের রং হলুদ ফর্সা। অপরুপ তার রূপ। বাবা মায়ের এক আদরের দুলালি। বসে বসে গুন গুনিয়ে গান গাচ্ছে। এমন সময় পেছন থেকে প্রদিপ্ত বাবু ডাক দিলেন কি করছিস, তুই এখানে কি করছিস! যা বাড়ি যা। তোকে না বলেছি ঘর থেকে বেরোবি না, কেন বেরিয়েছিস। মাথাটা নিচু করে দৌড়ে ঘরে চলে গেল। পায়ের নূপুর ঝন ঝন আওয়াজ করছে। চারিদিক নিরব তাই সেই ঝন ঝন আওয়াজ চারদিকে ছড়িয়ে পড়ল। গত রবিবারেই সবাই বাড়ি ছেড়ে চলে গেছে। সবার গন্তব্য এখন ভারত।
একটু পরেই গফুর মিয়া আসল, প্রদিপ্ত বাবুকে জানাল পাশের গ্রাম রহমত পুরে কাদের মোল্লা তার দলবল নিয়ে হামলা করেছে। হিন্দু দের বাড়িঘর জ্বালিয়ে দিচ্ছে ঘরের মেয়ে দের তুলে নিয়ে যাচ্ছে। এই কথা শুনে দেরি না করেই প্রদিপ্ত বাবু বাড়ি গিয়ে তার মেয়ে কে খড়ের গাদার মধ্যে লুকাতে বলল। মেয়ে বিপদের আচ করতে পেরে নিশ্চুপে চলে গেল।
একটু পরেই কাদের মোল্লা ও তার বাহিনী হাজির্। প্রদিপ্ত বাবুর স্ত্রী সর্মিলার হাতে শাঁখা ও সিঁদুর দেখে বলল মালাউন! ভারতের দালাল। জয় বাংলার লোক!
প্রদিপ্ত বাবু নিশ্চুপ। কাদের মোল্লার সহচর তাকে এসে জানাল, পাশের বাড়িতেই নাকি একটা মেয়ে আছে। মেয়েটা নাকি অনেক সুন্দর !!! কথাটা শুনেই কাদের মোল্লার যেন জিভে জল এসে গেল। বলল চল ওখানে আগে চল। এখানে পরে আসব। চলে যেতে উদ্দ্যত হলে ঘরের জানালায় রেখে দেয়া নূপুর দেখল কাদের । সে বলল, এই বাসায়ও মেয়ে আছে খোঁজ কর্। সারা ঘর খুঁজল পেল না কাউকে। প্রদিপ্ত বাবু যেন স্বস্তির নিশ্বাস ফেলল। তার এই প্রশান্তি বেশিক্ষন টিকল না । হঠাৎ কাদের মোল্লার নজর পড়ল খড়ের গাদায় একটু শাড়ি বেড়িয়ে আছে। শাড়ি ধরে কাদের মোল্লা জোরে টান দিল। খড়ের গাদা থেকে ঘর্মাক্ত নদী ছিটকে পড়ল । নদীর গায়ে হাত দিয়ে কাদের মোল্লা বলল বাহ হেব্বি মাল তো!! খেয়ে মজা পাব বলে প্রদিপ্ত বাবু ও শর্মিলার সামনেই হুমরি খেয়ে পড়ল নদীর উপর্।
প্রদিপ্ত বাবু বাঁচাতে ছটফট করলে তাকে বেয়ানেটের খোচায় ক্ষত বিক্ষত করল। শর্মিলা দেবি কে তখন টেনে নিল কাদের মোল্লার সহচরেরা । মা ও মেয়ের আর্তনাদ ও পশু গুলোর হুংকারের আওয়াজে গম গম করতে থাকল চারদিক। প্রদিপ্ত বাবুর চোখের সামনে স্ত্রী কন্যা ধর্ষিত হল কিছুই করতে পাড়ল না সে।
যাবার সময় সর্মিলা ও নদীকে নিয়ে গেল ক্যম্পে । প্রদিপ্ত বাবু কে ঘরে রেখেই জ্বালিয়ে দিল ঘর্।
ক্যম্পে দিনের পর দিন ভোগ হতে থাকে মা ও মেয়ে। শুধু তারা নয়, পাশের বাড়ির গফুর মিয়ার মিষ্টি মেয়েটিও সাথে আরো অনেকে।

[[গল্পটি সম্পূর্ন কাল্পনিক। তবে হয়তো কোন নদী সর্মিলা ও গফুর মিয়ার মেয়ের মতম কেউ ভোগের বস্তু হয়েছিল একাত্তরে। ]]
এই কাদের মোল্লাদের হাজার হাজার ধর্ষনের বিচার না হওয়ায় এখনও মানুষ ধর্ষন করবার সাহস পায়। ভয় করে না তারা। এদের অতি দ্রুত বিচার চাই।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

২১ thoughts on “অপরূপ সেই মেয়েটি

  1. এই জারজগুলো অনেক মা বোনের
    এই জারজগুলো অনেক মা বোনের ইজ্জত নিয়েছে.…এদের ফাঁসি নয় বরং পুরুষাঙ্গ কেটে দেওয়া উচিত

  2. হুম । ধর্ষকদের পুরুষাঙ্গ কেটে
    হুম । ধর্ষকদের পুরুষাঙ্গ কেটে ফেলাটা উত্তম । মানুষ নাম এর পশু এক একটা । :ক্ষেপছি: :ক্ষেপছি: :ক্ষেপছি:

  3. আমার এমন ক্ষেত্রে আর্জেন্টাইন
    আমার এমন ক্ষেত্রে আর্জেন্টাইন একটা ফিল্মের কথা খুব মনে পরে!!
    এক ভদ্রলোকের প্রিয়তমা স্ত্রীকে এক ধর্ষক রেপ করার পর খুন করে…
    সেই প্রেমিক তাঁর প্রেমিকার খুনের প্রতিশোধ নেয়!! আমার কাছে অসাধারণ লাগে তাঁর শাস্তি।
    ফিল্মটির নাম “The Secret in Their Eyes” [“El secreto de sus ojos”]!!
    torrent: “El secreto de sus ojos

      1. যথেষ্ট ভাল!! লিখতে
        যথেষ্ট ভাল!! লিখতে থাকুন…
        দুঃখিত আগে নিজের কথা লিখতে গিয়ে আপনার লিখার প্রাপ্য সম্মান দেখাতে ভুএ গেছিলাম… :বুখেআয়বাবুল: :বুখেআয়বাবুল: :বুখেআয়বাবুল: :বুখেআয়বাবুল: :বুখেআয়বাবুল: :বুখেআয়বাবুল:

          1. গল্পের আবার ভুল কি? যদি আপনার
            গল্পের আবার ভুল কি? যদি আপনার গল্পে আপনি দায়িত্ববোধ এড়িয়ে সমাজের কোন শ্রেণীকে আঘাত করেন বলে মনে হয় তবে আমি অন্তত আছি :এখানেআয়: :এখানেআয়: :এখানেআয়: :এখানেআয়: :এখানেআয়:
            আর যদি বানান ভুল হয় তাতো সংশোধন যোগ্য তার জন্যে চিন্তিত হওয়ার কিছু নাই… লিখতে থাকুন- :আমিকিন্তুচুপচাপ: :আমিকিন্তুচুপচাপ: :আমিকিন্তুচুপচাপ: :কথাইবলমুনা: :কথাইবলমুনা: :কথাইবলমুনা:

      1. এটা মুভি না আমার কল্পনার একটি
        এটা মুভি না আমার কল্পনার একটি গল্প।

        লিখতে চেয়েছিলাম মেয়েটির সৌন্দর্য নিয়ে নিজের কল্পনার মেয়ে নিয়ে কিন্তু নিজের অজান্তেই মুক্তিযুদ্ধ এসে গেল

          1. ঠিক এই গল্প না!! বলেছি
            ঠিক এই গল্প না!! বলেছি প্রেমিক তার প্রেমিকার ধর্ষক খুনিকে শাস্তি দেয় উপরল্লেখিত মুভিতে…

    1. শেষের লাইন পড়ে মনে পড়ে গেল –
      শেষের লাইন পড়ে মনে পড়ে গেল – ” ক তে কাদের মোল্লা , তুই রাজাকার তুই রাজাকার ”

      গল্প ভালো লাগছে এবং হ্যাঁ অবশ্যই সকল রাজাকারের দ্রুত বিচার চাই , আর কতো

  4. গল্প কাল্পনিক হলেও; এর সত্যতা
    গল্প কাল্পনিক হলেও; এর সত্যতা আছে; যা বড়ই নির্মম। তারপরেও; বেজন্মারা বলে বেড়ায়; একাত্তরে; নরপশুরা; কিছুই করে নাই। আর বর্তমানে; দেশে এখনো চলছে; সেই ৭১ এর পুনরাবৃত্তি, থামেনি; সেই চাল-চলন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

73 + = 79