শিবিরের হামলায় গুরুতর আহত তন্ময়ের অবস্থা এখনও আশঙ্কা মুক্ত নয়

পবিত্র ঈদ উল ফিতর পরিবারের সাথে পালনের জন্য বাড়ি গিয়েছিল বুয়েটের ছাত্র ব্লগার তন্ময় আহমেদ মুন। ঈদ তার কেমন কেটেছে জানিনা কিন্তু শনিবার রাত সাড়ে দশটার দিকে রংপুর-ঢাকা হাইওয়ের গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ীতে শিবির সন্ত্রাসীদের হামলায় গুরুতর আহত হয়ে বর্তমানে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। তার অবস্থা এখনও আশঙ্কা মুক্ত নয়। সে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও বুয়েট ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এবং গণজাগরণ মঞ্চের কর্মী।


পবিত্র ঈদ উল ফিতর পরিবারের সাথে পালনের জন্য বাড়ি গিয়েছিল বুয়েটের ছাত্র ব্লগার তন্ময় আহমেদ মুন। ঈদ তার কেমন কেটেছে জানিনা কিন্তু শনিবার রাত সাড়ে দশটার দিকে রংপুর-ঢাকা হাইওয়ের গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ীতে শিবির সন্ত্রাসীদের হামলায় গুরুতর আহত হয়ে বর্তমানে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। তার অবস্থা এখনও আশঙ্কা মুক্ত নয়। সে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও বুয়েট ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এবং গণজাগরণ মঞ্চের কর্মী।

তন্ময়ের পরিবার ও তাকে রংপুর মেডিকেলে নিয়ে আসা স্বজনদের কাছে জানা গেছে, শনিবার রাত সাড়ে দশটার দিকে এ হামলার ঘটনা ঘটে। এসময় পলাশ বাড়ি সরকারি কলেজ মোড়ে তিনটি মোটরসাইকেলে মোট ৯ জন মুখোশধারী ব্যক্তি তার উপর অতর্কিত হামলা চালায়। সন্ত্রাসীরা এলোপাথাড়ি কুপিয়ে গুরুতর আহত অবস্থায় ফেলে রেখে যায় তন্ময়কে। পরে স্থানীয়দের সহায়তায় তাকে প্রথমে স্থানীয় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হলে প্রচুর রক্ত ক্ষরণের জন্য তাকে ব্যান্ডেজ করিয়ে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। তার শরীরে বেশ কয়েকটি গ্রিভিয়াস ইনজুরি রয়েছে বলে রমেক চিকিৎসকরা জানিয়েছেন। রাত তিনটা তার অপারেশন চলছিল। তার বাম কানের উপরে মাথায় এবং কাঁধে একাধিক ইনজুরি রয়েছে।

মূলত জামাত শিবির ও যুদ্ধাপরাধীদের বিরুদ্ধে ব্লগিং এবং গণজাগরণ মঞ্চের সাথে সংশ্লিষ্টতার জের ধরেই স্থানীয় শিবির সন্ত্রাসীরা এই হামলা করেছে বলে দাবী তন্ময়ের পরিবার ও বন্ধুদের।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

৯ thoughts on “শিবিরের হামলায় গুরুতর আহত তন্ময়ের অবস্থা এখনও আশঙ্কা মুক্ত নয়

    1. এইজন্যেই সুশীলবাজি ছেড়ে
      এইজন্যেই সুশীলবাজি ছেড়ে সবাইকে দেশের জন্য মঙ্গলময় আর কল্যাণকর কিছু করার আহ্বান জানাচ্ছি বারবার… আমরা সভ্য বাংলায় বসবাস করতে চাই!!
      হেফাজতি শফি বা জঙ্গিপনা এবং নৃশংস জামাতি রাজনীতি থেকে মুক্তি চাই!!
      আর there is only one exit route…
      তন্ময়ের জন্যে অনেক অনেক শুভ কামনা!!
      জানতে পারলাম সে আশংকা মুক্ত হয়েছে… তার সুস্বাস্থ্য আর দীর্ঘ জীবন কামনা করছি…

      1. সুশীলবাজি ছেঁড়ে বিষয়টা বুঝতে
        সুশীলবাজি ছেঁড়ে বিষয়টা বুঝতে পারলাম না। আপনার আগের পোস্টটা থেকে যা বুঝতে পারছি তাতে করে আপনি হয়তো আওয়ামীলীগের সমালোচনাকারীদেরকে সুশীলবাজ হিসেবে বলতে চাচ্ছেন। যদি তাই হয় তাহলে একটা কথা জানবেন, এই সব সমালোচনা আওয়লীলীগের ভালোর জন্যই। এবং এই সমালোচকরা দিন শেষে ভোটটা কোথায় দিয়ে আসেন তা দলটির সভাপতি খুব ভালো করেই জানেন। ……………… অনলাইনে নোংরামির জন্য যদি কাউকে দায়ী করতেই হয় তাহলে দোষটা তাদের দিকেই যাবে যারা আওয়ামীলীগের মহাভক্ত (অনলাইন ভাষায় হার্ড কোর আওয়ামীলীগ) সাঁজার ভেক ধরেন। মূলত ঐ বেল্টটাই এই সরকারের সবচেয়ে বেশী ক্ষতি করছে অনলাইনে। বঙ্গবন্ধুর ছবি দিয়ে প্রফাইল ফটো করে চরম অশ্লীল গালাগালি যারা করতে পারেন তারা আর যাই হোক বঙ্গবন্ধুকে সম্মান করেন না। করলে ওসব করতে পারতেন না।

  1. একের পর এক ন্যাক্কারজনক ঘটনা
    একের পর এক ন্যাক্কারজনক ঘটনা ঘটেই যাচ্ছে।ছাগুরা কিন্তু তাদের এই সংকটময় অবস্থাতেও থেমে নেই।তাদের সন্ত্রাসী কর্মকান্ড চালিয়েই যাচ্ছে।এদেরকে আমাদের থামাতেই হবে।নাহলে যে কী হতে পারে তা তো আমরা সকলেই বুঝতে পারছি।

    1. থামাবেন কি করে? আগে তো এক হতে
      থামাবেন কি করে? আগে তো এক হতে হবে, তাই না? বুকে হাত দিয়ে বলতে পারবেন আমরা এক আছি? আমরা যদি এক থাকতাম এবং ঐক্যবদ্ধভাবে যদি ওদের ফেস করতাম তাহলে দেখতেন “মরলে শহীদ বাঁচলে গাজী”র নমুনা। জানের মায়া আমাদের থেকে তাদেরই অনেক বেশী। এটা এমনই এমনি বললাম না। বাস্তব অভিজ্ঞতা থেকেই বললাম। তারপরেও আশাবাদি, এই লড়াইয়ে আমরা জয়ী হবোই। এই দেশে একদিন তাদের বিচার হবে, এটাই চূড়ান্ত সত্য। হয়তো সময় লাগবে, হয়তো আমরা থাকবো না, কিন্তু হবেই।

  2. তন্ময়ের সুস্থ্যতা কামনা করছি।
    তন্ময়ের সুস্থ্যতা কামনা করছি। পরিপুর্ন সুস্থ্য হয়ে আবার শুরু হোক ছাগু নিশ্চিহ্ন করার যুদ্ধ……..

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

13 + = 14