পোড়া লাশ

চারিদিকে আজ পোড়া লাশের গন্ধ!

মানুষের মধ্যে মানবতার দহনের একি হল সঙ্গ!

যাঁরা কিছু দিন আগে ও ছিল জলজ্যান্ত মানুষ, যাঁদের ছিল ছোট ছোট আশা, ছোট ছোট স্বপ্ন।

তাঁরা আজ কাঠ কয়লা এটাই কি ছিল তাঁদের ভবিতব্য?

ক্ষমতার দম্ভ, আর ভাগবাটোয়ারার খেলা দেখাচ্ছে তাঁর উদ্দাম নৃত্য, একি ধ্বংসের আগমনের লীলা?

চারিদিকে শুধু লুঠ আর লুঠ কখনও বিবেক কখনও মনুষ্যত্ব সবই কি শুধু ঝুঠ আর ঝুঠ?

ক্ষমতা সে অদ্ভুত জিনিস তাঁর কি আছে কোন রূপ?

কখনও হাসায় কখনও কাঁদায় এটাই কি তাঁর প্রকৃত স্বরূপ?

কখনও মারে কখনও মরে এভাবেই চলতে থাকে ক্ষমতার রূপের খেলা!

মানুষ বলি হতে থাকে, চলবে কি এভাবেই এই অনন্তের পথ চলা?

শুধু মানুষ পোড়ে না, পোড়ে আজ সমাজের বিবেক!

কোথায় বিদ্বজ্জন, কোথায় তাঁদের প্রতিবাদীসত্তা? কোথায় তাঁদের কথা বলা? কোথায় তাঁদের সমাজকে নতুন দিশা দেওয়া?

সবই কি আজ বাঁধা আছে ক্ষমতার কাছে? বিবেক, মনুষ্যত্ব, নীতি, নৈতিকতা সবই কি আজ মধুর পিছনে ছোটে?

জানি না আগামী দিনে এর পরিণতি হবে কি, যে সমাজে বিদ্বজ্জনেরা ঘুমিয়ে থাকে সেখানে হবে কি?

সেখানে অন্ধকার হয় গাঢ়, সমাজের এই দুর্দিনে নিরোর অনুসারীরা থেক যেন ভালো!

প্রতিবাদহীনতা যেখানে সমাজ ব্যবস্থার অঙ্গ, ধ্বংসের অনন্ত খেলার বিষের ছোবল সেখানে সাধারণ প্রতিক্রিয়ার সঙ্গ!

পুড়ছে মানুষ, পুড়ছে স্বপ্ন, পুড়ছে বেঁচে থাকার ইচ্ছে, পুড়ছে বিবেক, পুড়ছে মনুষ্যত্ব, পুড়ছে জীবনসত্তা!

চারিদিকে চেয়ে দেখ পোঁড়া লাশের গন্ধ, শ্মশানের শান্তি বিরাজ করে সর্বত্র, সমাজের বিবেক কি আজ অন্ধ?

শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published.