হিমযাত্রা।

তুষারে ঢাকা হিম রাতগুলো গলে গলে যায়। অনিয়মের ফাঁক ফোকরে ঢুকে পড়ে অবাধ্য জীবন। নির্বোধ ইচ্ছেগুলো ডিঙ্গিয়ে আমিও ঢুকে পড়ি প্রতিদিনের নিরব অন্দরে। সেখানে হিম হয়ে বসে থাক রাত্রি, বয়ে নিয়ে যায় দূরের উপত্যকায়, ঘুমের গভীরে। মনের মধ্যে এক ইতস্তত খেলা, সে কি এলো? অন্ধকারে দীর্ঘ হয় এক অনন্ত জীবন। মৃত্যু দেখেছি আমি, নিঃশব্দ বিচরণ তার। শুকনো পাতার খসে পড়া দেখে আকুলি করে নিস্তরঙ্গ সন্ধ্যা। আমি সেই সব বিদির্ণ সন্ধ্যাগুলো গায়ে মেখে ডুবে যাই আরো গভীরের আঁধারে। সে আসে নিয়মিত, এক বুক তুষার নিয়ে। খুব শীতল সেই হিমযাত্রা, নেই কোনো শিহরণ। রাত্রি, এক অনন্য সুন্দর সময়। রাত্রি, বিচলিত এক নারী, পদচিনহ দিয়ে গেছে তুষারে, অন্ধকারে।

শেয়ার করুনঃ

৭ thoughts on “হিমযাত্রা।

  1. চমৎকার !!! কবিতা সবাই লিখতে
    চমৎকার !!! কবিতা সবাই লিখতে পারে না । কবিতা সবাই বোঝেও না । আপনি পারেন …… এটা আপনার শক্তিশালী গুণ । ধন্যবাদ । । । অসংখ্য ধন্যবাদ । । ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.