প্রজন্ম চত্ত্বরের নতুন প্রজন্ম কে ভালোবাসা দিবসের শুভেচ্ছা !!1

যেকোনো আন্দোলন এর মূল প্রাপ্য হচ্ছে তার সফল পরিসমাপ্তি । প্রজন্ম চত্ত্বর নিয়ে আমার অভিমত তেমনটাই, বিশেষ করে আমার অভিজ্ঞতা থেকে বলছি এই ছোট্ট জীবনে আন্দোলনে রাজপথে থেকেছি বহুবার, জেল খেটেছি, কিন্তু যা কোনদিন করতে পারিনি তা হচ্ছে মেইনস্টিমে নিজেকে লাইম লাইটে নিয়ে আসা। এর মূল কারণ হচ্ছে সহযোদ্ধাদের যেন অনুপ্রেরণায় কোনও ঘাটতি না হয়, তাদের উত্সাহ যুগিয়েছি, সাথে থেকেছি,। আর সবচেয়ে বড় যে বিষয়টি নিয়ে তাদের কে উজ্জীবিত করেছি, তা হচ্ছে সমর পরিকল্পনা মুখ্য ভূমিকা পালন করে। যা আন্দোলনের সফল পরিসমাপ্তির জন্য বিশেষ প্রয়োজনীয় একটা প্রথা।


যেকোনো আন্দোলন এর মূল প্রাপ্য হচ্ছে তার সফল পরিসমাপ্তি । প্রজন্ম চত্ত্বর নিয়ে আমার অভিমত তেমনটাই, বিশেষ করে আমার অভিজ্ঞতা থেকে বলছি এই ছোট্ট জীবনে আন্দোলনে রাজপথে থেকেছি বহুবার, জেল খেটেছি, কিন্তু যা কোনদিন করতে পারিনি তা হচ্ছে মেইনস্টিমে নিজেকে লাইম লাইটে নিয়ে আসা। এর মূল কারণ হচ্ছে সহযোদ্ধাদের যেন অনুপ্রেরণায় কোনও ঘাটতি না হয়, তাদের উত্সাহ যুগিয়েছি, সাথে থেকেছি,। আর সবচেয়ে বড় যে বিষয়টি নিয়ে তাদের কে উজ্জীবিত করেছি, তা হচ্ছে সমর পরিকল্পনা মুখ্য ভূমিকা পালন করে। যা আন্দোলনের সফল পরিসমাপ্তির জন্য বিশেষ প্রয়োজনীয় একটা প্রথা।

মনে রাখতে হবে তা যেকোনো দ্বাবি নিয়ে রাজপথে দাড়ান না কেন, এর কিন্তু একটা না একটা প্রতিপক্ষ থাকবেই। তবে ভুলেও যা চলবে না তা হচ্ছে আন্দোলনের ওই প্রতিপক্ষ কে কখনো দুর্বল মনে করা। মনে করতে হবে তারা আমাদের চেয়ে শক্ত, এমনকি শক্ত তাদের অবস্থান। এই ধরনের মন মানসিকতা যদি আন্দোলনের শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত নিয়মিত করা যায় তাহলে আন্দোলনে সফলতা একশ ভাগ।

শাহবাগ নিয়ে বলছি, আমি যতটুকু জানি এই আন্দোলনের মূল উত্স যারা তাদের অবস্থান কিন্তু যথেষ্ঠ পরিমাণ বুদ্ধিদীপ্ত। কেন না আমি খুব কাছে থেকে দেখেছি যারা এই আন্দোলনের মূল উদোক্তা তারা নিজেরা কখনো লাইম লাইটে নিয়ে চিন্তিত না। বিকজ তাদের মেইন ইচ্ছেটা হচ্ছে এই আন্দোলনের সফল পরিসমাপ্তি। আর তাই যতই বলা হক না কেন এটা তাদের আন্দোলন অন্তত আমি বলতে চাই, হা হতে পারে ছিল এটা তাদের আন্দোলন, কিন্তু এই আন্দোলন এখন ডাইব্রেট হয়ে চলে গেছে জনগণের হাতে। বলার অপেক্ষা রাখে না এখন জনগণই এর রায় নিয়ে ঘরে ফিরবে। আর আন্দোলন আহববান কারীদের মূল কাজ হচ্ছে কিভাবে ব্যবস্থাপনা করে একে সুরক্ষিত করা যায়। এবং সঠিক গাইত লাইন দিয়ে কিভাবে এগিয়ে নেওয়া যায়।

তার মানে কী আমি আন্দোলন আহববান কারীদের খাটো করেছি ? না খাটো করিনি ক্রেডিট দিয়েছি তারা সাধারণ জনগণের মনের, চোখের ভাষা উপলব্ধি করতে পেরেছে বলে। স্যলুট জানাচ্ছি তাদের।

ধন্যবাদ প্রজন্ম চত্ত্বরে অংশ গ্রহণকারী সকল বীর সেনানীদের। ভালোবাসা সবার জন্য।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

৪ thoughts on “প্রজন্ম চত্ত্বরের নতুন প্রজন্ম কে ভালোবাসা দিবসের শুভেচ্ছা !!1

  1. তারা সাধারণ জনগণের মনের,

    তারা সাধারণ জনগণের মনের, চোখের ভাষা উপলব্ধি করতে পেরেছে বলে। স্যলুট জানাচ্ছি তাদের।

    স্যালুট তারা প্রাপ্য

  2. ভালোবাসা দিবসে প্রজন্মে
    ভালোবাসা দিবসে প্রজন্মে চত্বরের সবার প্রতি রইলো প্রাণঢালা ভালোবাসা। :ভালাপাইছি: :ভালাপাইছি: :ভালাপাইছি: বেস্ট অব লাক :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ:

  3. আপনি ঠিকই বলেছেন। গনজাগরণ
    আপনি ঠিকই বলেছেন। গনজাগরণ যেটা হয়েছে, এটা এখন আর কারো একক ব্যাপার নয়। এই আন্দোলনের মালিক জনগণ। যারা শুরু করেছিল, তারা যদি কোন কারণে পিছু হটে, এই আন্দোলনের কোন ক্ষতি হবেনা। জনগনের আন্দোলন জনগণই পরিচালনা করবে। এই গণজাগরণ থেকে আশা করি রাজনৈতিক দলগুলো শিক্ষা নেবে। রাষ্ট্রের মালিক জনগণ। সেই জনগনই আজ রাজনৈতিক দলগুলোর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়েছে। আশাকরি, প্রজাতন্ত্রের মালিক পক্ষের দাবী মিটিয়ে সরকার ও রাজনৈতিক দলগুলো বিচক্ষণতার পরিচয় দেবে। আর না হয় জনগণই সিদ্ধান্ত নেবে। তাই, আমি সরকারকে বলব- অনেক খেলেছেন জনগণ নিয়ে। এবার আপনাদের বোধদয় হোক। জনগণের দাবী আপনাদের গদিচ্যুত করা নয়। যে দাবী পুরুণের অঙ্গীকার করে ক্ষমতায় এসেছেন, সেই দাবী যত দ্রুত সম্ভব পুরণ করুন। এজন্য যদি কোন আইন সংস্কারের প্রয়োজন হয়, এককভাবে করার মত সেই ম্যান্ডেট জনগণ আপনাদের দিয়েছেন। আর যদি মনে করেন, এসব পোলাপাইন কয়েকদিন চিল্লাফাল্লা করে চুপ হয়ে যাবে, তাহলে অবশ্যই ভুল করবেন। এই মহুর্তে যে কোন ধরণের সময় ক্ষেপন আওয়ামীলীগের জন্য কাল হয়ে যাবে। আশাকরি এই বিক্ষুব্দ গণজাগরণ সরকারের বিচক্ষণতার কারণে সেদিকে মোড় নেবে না।

    জয় হোক গণজাগরণের।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

15 − = 12