প্রজন্মের ডাক

আমি তখন খুব সম্ভবত ক্লাস টু তে পড়ি। পরীক্ষায় প্রশ্ন আসলো, “পাঁচটি গৃহপালিত প্রাণীর নাম লিখো।” এই প্রশ্নটা ছিলো ওই সময়ের মোটামুটি সবচেয়ে সহজ প্রশ্ন। কিছুদিন পর যখন পরীক্ষার খাতা দেওয়া হলো, স্যার এসে ক্লাসের এক ছেলেকে দাড়া করালো। তারপর তার খাতাটা সবাইকে দেখালো। খাতায় ওই প্রশ্নের উত্তর ছিলো, “(১) মুরগী, (২) মুগরী, (৩) মুরগা, (৪) কুকরা, (৫) কুরকা”।

আমার ওই ক্লাসমেট বন্ধুটা যেমন একটা প্রাণীর নামই ঘুরিয়ে পেঁচিয়ে পাঁচবার লিখেছিলো, ঠিক তেমনি এখন রাজাকার/যুদ্ধাপরাধী/জামায়েত/শিবির/পাকিস্তানের দালাল বলতে ভয়ংকর এবং বিকৃত মস্তিস্কের একটা প্রাণীর কথাই বুঝানো হয়।


আমি তখন খুব সম্ভবত ক্লাস টু তে পড়ি। পরীক্ষায় প্রশ্ন আসলো, “পাঁচটি গৃহপালিত প্রাণীর নাম লিখো।” এই প্রশ্নটা ছিলো ওই সময়ের মোটামুটি সবচেয়ে সহজ প্রশ্ন। কিছুদিন পর যখন পরীক্ষার খাতা দেওয়া হলো, স্যার এসে ক্লাসের এক ছেলেকে দাড়া করালো। তারপর তার খাতাটা সবাইকে দেখালো। খাতায় ওই প্রশ্নের উত্তর ছিলো, “(১) মুরগী, (২) মুগরী, (৩) মুরগা, (৪) কুকরা, (৫) কুরকা”।

আমার ওই ক্লাসমেট বন্ধুটা যেমন একটা প্রাণীর নামই ঘুরিয়ে পেঁচিয়ে পাঁচবার লিখেছিলো, ঠিক তেমনি এখন রাজাকার/যুদ্ধাপরাধী/জামায়েত/শিবির/পাকিস্তানের দালাল বলতে ভয়ংকর এবং বিকৃত মস্তিস্কের একটা প্রাণীর কথাই বুঝানো হয়।

একটা সহজ কথা অনেকেই বুঝতে চায় না যে, রাজাকাররা আর তাদের অনুসারীরা যদি এতোই ধর্মপ্রাণ হয়ে থাকে এবং ইসলাম ধর্ম সম্পূর্ণভাবে মেনে থাকে, তবে ৭১ এ অন্তত মুসলমান নারীরাও কেন তাদের ধর্ষণের হাত থেকে বাঁচতে পারলো না??? শুধু এই একটা প্রশ্নই রইলো।

একাত্তরে যেমন ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে সবাই এক হয়েছিল দেশকে স্বাধীন করার জন্য, ঠিক তেমনি এখন আবার সময় হয়েছে দেশকে আগাছামুক্ত করার। অন্তত যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের এই ইস্যুটাতে, ধর্ম বর্ণের হিসাব না করে, কোন বিভ্রান্তিতে কান না দিয়ে, আপোষহীনভাবে আমাদের সবার এগিয়ে আসা উচিৎ।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

২ thoughts on “প্রজন্মের ডাক

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

5 + 3 =