সবাইকে বড়দিনের শুভেচ্ছা

সবাইকে বড়দিনের শুভেচ্ছা। খ্রিষ্টধর্মাবলম্বীদী একটি উৎসবের দিন আজ । এই দিনে যীশুখ্রিষ্ট কুমারি মেরির কোলে আবির্ভুত হয়েছিলেন , অর্থাৎ জন্মগ্রহণ করেছিলেন।
২৫ ডিসেম্বর তারিখ,এই দিনটিই যিশুর প্রকৃত জন্মদিন কিনা তা জানা যায় না। আদিযুগীয় খ্রিষ্টানদের বিশ্বাস অনুসারে, এই তারিখের ঠিক নয় মাস পূর্বে মেরির গর্ভে প্রবেশ করেন যিশু। সম্ভবত, এই
হিসাব অনুসারেই ২৫ ডিসেম্বর তারিখটিকে যিশুর জন্মতারিখ ধরা হয়। অন্যমতে একটি ঐতিহাসিক রোমান উৎসব অথবা উত্তর গোলার্ধের দক্ষিণ অয়নান্ত দিবসের অনুষঙ্গেই ২৫ ডিসেম্বর তারিখে যিশুর জন্মজয়ন্তী পালনের প্রথাটির সূত্রপাত হয়।


সবাইকে বড়দিনের শুভেচ্ছা। খ্রিষ্টধর্মাবলম্বীদী একটি উৎসবের দিন আজ । এই দিনে যীশুখ্রিষ্ট কুমারি মেরির কোলে আবির্ভুত হয়েছিলেন , অর্থাৎ জন্মগ্রহণ করেছিলেন।
২৫ ডিসেম্বর তারিখ,এই দিনটিই যিশুর প্রকৃত জন্মদিন কিনা তা জানা যায় না। আদিযুগীয় খ্রিষ্টানদের বিশ্বাস অনুসারে, এই তারিখের ঠিক নয় মাস পূর্বে মেরির গর্ভে প্রবেশ করেন যিশু। সম্ভবত, এই
হিসাব অনুসারেই ২৫ ডিসেম্বর তারিখটিকে যিশুর জন্মতারিখ ধরা হয়। অন্যমতে একটি ঐতিহাসিক রোমান উৎসব অথবা উত্তর গোলার্ধের দক্ষিণ অয়নান্ত দিবসের অনুষঙ্গেই ২৫ ডিসেম্বর তারিখে যিশুর জন্মজয়ন্তী পালনের প্রথাটির সূত্রপাত হয়।

উপহার প্রদান, সংগীত, খ্রিষ্টমাস কার্ড বিনিময়, গির্জা য় ধর্মোপাসনা, ভোজ এবং খ্রিষ্টমাস বৃক্ষ, আলোকসজ্জা, মালা, মিসলটো, যিশুর জন্মদৃশ্য এবং হলি সমন্বিত এক বিশেষ ধরনের সাজসজ্জার প্রদর্শনী আধুনিককালে বড়দিন উৎসব উদযাপনের অঙ্গ।এটি খ্রিষ্টধর্মাবলম্বীদের উৎসব হলেও বহু অখ্রিষ্টান সম্প্রদায় এ উৎসবটি পালিন করে থাকে। এমনকি আমাদের পার্শবর্তীদেশ ভারতেও এই দিনটি ব্যপক যাকজমকপূর্ন ভাবে পালিত হয়।

সকলকেই বড়দিনের শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। উপরোক্ত লিখা গুলো উইকিপিডিয়া হতে নেয়া। আমি যেহেতু আজাইরা পোস্ট দেয়ার ক্ষেত্রে ইস্টিশন ব্লগে নামকরা , কেউ দেখলাম বড়দিন নিয়ে পোস্ট দিচ্ছিল না তাই আমিই দিয়ে দিলাম।

তবে বড় দিনের শুভেচ্ছা আর কি করেই জানাই যখন টিভি খুলেই শুনতে পাই, দুর্বৃত্তদের দেয়া আগুনে পুড়ে গিয়েছে পুলিশের গাড়ি ও মৃত্যু হয়েছে এক পুলিশ কর্মকর্তার । আক্ষেপ সেখানেই যে শান্তি শৃঙ্খলা রক্ষার কাজে নিয়োজিত এই ব্যক্তিদের হত্যা করা হলে কতিপয় মানবাধিকার সংস্থাগুলোর টনক নড়ে না কিন্তু কাদের মোল্লার মত ব্যক্তির ফাঁসিতে মানবতাবাদীদের মহাভারত অশুদ্ধ হয়ে যায়।

আরেকটি আক্ষেপ হল আমাদের ইস্টিশনে সাম্প্রদায়িক ভেদাভেদ না থাকা শর্তেও ঈদের সময়ে ইস্টিশন ব্যনারে ঈদের শুভেচ্ছা দেয়া হলেও বড়দিনে দেয়াহল না। তাহলে আমাদের ইস্টিশনে কি সাম্প্রদায়িক ভেদা ভেদ সৃষ্টি হয়েছে?

আসুন এক অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়ি, একে অন্যের উৎসবে মেতে উঠি – ধর্ম যার যার উৎসব সবার ।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

৭ thoughts on “সবাইকে বড়দিনের শুভেচ্ছা

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

− 5 = 2