সাকা’র বিরুদ্ধে ট্রাইব্যুনালে সাক্ষী দেওয়ায় খুন হলেন এক মুক্তিযোদ্ধা সাক্ষী !

যুদ্ধাপরাধীদের বিচার থেকে বাঁচাতে মরিয়া হয়ে মাঠে নেমেছে জামাত-শিবির। গতকাল শুক্রবার সারাদেশে জামাত-শিবিরের তাণ্ডব সম্পর্কে আপনারা সবাই এতক্ষণে জেনে গেছেন সবকিছু। ওরা সারা দেশে বিভিন্ন জায়গায় শহীদ মিনার ভেঙেছে, ভেঙেছে গণজাগরণ মঞ্চ। শহীদ জননী জাহানারা ইমামের প্রতিকৃতি ছিঁড়ে ফেলেছে। এর চেয়েও ভয়াবহ ব্যাপার এরা ত্রিশ লক্ষ শহীদের আত্মত্যাগের বিনিময়ে পাওয়া আমাদের গৌরবের লাল-সবুজের জাতীয় পতাকা ছিঁড়ে ফেলে আমাদের দিকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছে- দ্যাখ আমরা কি না করতে পারি? এছাড়াও এরা যে আজও বুকে পাকিস্থান নামক একটা বর্বর দেশকে লালন করে তার প্রমাণ- চট্টগ্রামে এরা মিছিল করার সময় “পাকিস্থান জিন্দাবাদ” বলে স্লোগান দিয়েছে। আমার মুখের কথায় বিশ্বাস না হলে এই লিংকে গিয়ে দেখুন

তবে এই পোস্টে যেই ভয়াবহতম খবরটি আমি শেয়ার করতে চাচ্ছি, সেটা শুনলে মাথায় আগুন ধরে যাবে যে কোন দেশপ্রেমিক মানুষের। বিশ্বস্ত সূত্রে খবর পেলাম সাকা চৌধুরীর বিরুদ্ধে চলমান যুদ্ধাপরাধের বিচার মামলায় সাক্ষী দেওয়ার কারনে চট্টগ্রামের একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা জনাব ওয়াহিদুল আলম খুন হয়েছেন। ১৬ তারিখে উনি ট্রাইব্যুনালে সাক্ষী দিয়ে এসেছেন। উনার পারিবারিক সূত্র থেকে জানা যায়, চট্টগ্রামের বায়েজিদ থানায় উনার একটি ব্যক্তিগত খামার আছে। প্রায়ই উনি সেখানে থাকতেন। দুইদিন আগে উনার সাথে কিছু লোক দেখা করতে আসে। বাসা থেকে বের হয়ে যাওয়ার পর থেকে উনি নিখোঁজ ছিলেন। একজন অজ্ঞ্যতনামা মহিলা জনাব ওয়াহিদুল আলমের ব্যক্তিগত ফোন থেকেই উনার বাসায় ফোন করে জানায়- “উনাকে মানা করা হয়েছিল সাক্ষী না দিতে। কিন্তু উনি শোনেন নাই। উনার লাশ চমেকে রাখা আছে। পারলে নিয়ে যান।
চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ সূত্র থেকে জানা যায়, হাসপাতালে একজন অজ্ঞ্যতনামা মহিলা এসে লাশ রেখে পালিয়ে গেছে।

আমরা বারবার সরকারের কাছে যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের সাক্ষীদের নিরাপত্তার ব্যাপারে বলে আসছি। কিন্তু আজ একজন সাক্ষী; শুধু সাক্ষীই নন উনি একজন বীর মুক্তিযোদ্ধাও, একাত্তরের সেইসব ঘাতকের হাত থেকে রেহাই পেলেন না। এই ব্যর্থতার দায় কে নেবে? সরকার? নাকি অপরাধী আসলে আমরা সবাই? আমরা আজও পারিনি এদেশকে হানাদার মুক্ত করতে। আজও একাত্তরের সেই হানাদারের হাতে লাঞ্ছিত হয় শহীদ মিনার, এদেশের জাতীয় পতাকা!!! আমরা আর কতদিন এভাবে চুপ করে থাকব? ঘাতকের কালো থাবা আর কতখানি বিস্তৃত হলে তারপর ভাঙবে আমাদের সেই অদ্ভুত নীরবতা?

মুক্তিযুদ্ধের পক্ষশক্তি বলে দাবী করা সরকার ক্ষমতায় থাকাকালীন আমাদের এই দেখতে হল? একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা রাজাকারের বিরুদ্ধে সাক্ষী দিলেন বলে খুন হয়ে গেলেন হায়েনাদের হাতে!!!!!! জানি হাজার হাজার বা লক্ষ কোটিবার ক্ষমা চাইলেও আমরা মুক্তিযোদ্ধা ওয়াহিদুল আলমের কাছে ক্ষমা পাবো না। ক্ষমা পাবো না বায়ান্নর ভাষা শহীদদের কাছেও। একাত্তরের ৩০ লক্ষ শহীদ আহত বিস্ময়ে আজ আমাদের দিকেই তাকিয়ে আছেন আমাদের কাপুরুষতা দেখে। নিজের বিবেককে একবার প্রশ্ন করি আমরা সবাই। কী-বোর্ড চেপে এই লেখা লেখার মতন মানসিক শক্তিটুকুও আমার আর অবশিষ্ট নেই। জানিনা পারব কিনা শহীদের রক্তের ঋন শোধ করতে। প্রজন্ম আজ জেগেছে। আসেন এটাই হয়ত আমাদের শেষ সুযোগ। এদেশকে পাকিস্থানের দালাল মুক্ত করার এই আন্দোলনে সবাই সামিল হই। আমাদের শক্তি আরেকবার গর্জে উঠুক একাত্তরের মতই।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

১২ thoughts on “সাকা’র বিরুদ্ধে ট্রাইব্যুনালে সাক্ষী দেওয়ায় খুন হলেন এক মুক্তিযোদ্ধা সাক্ষী !

  1. কাদের মোল্ল্যার মতো
    কাদের মোল্ল্যার মতো চুদুরভুদুর রায় দিলে বিচার না হওয়ায় ভালো। আরেকটা কথা সরকার যদি আন্তরিকভাবে চায় রাজাকারের বিচার করবে তাইলে আরো সতর্ক হইতে হবে তাদের

  2. এই নিউজটা দেখে হতবাক হয়ে
    এই নিউজটা দেখে হতবাক হয়ে গেলাম। কতক্ষন চুপ করে বসে ছিলাম। কি মন্তব্য করবে ভেবে পাচ্ছিনা। আসলে আমার খুব জানতে ইচ্ছা করে- এই দেশটা কার? যারা যুদ্ধ করে এদেশটাকে স্বাধীন করল তাদের? নাকি রাজাকারদের? আমরা কি এতোটাই অসহায় হয়ে গেলাম?

  3. বিবেকের তাড়নায় এবার না লিখে
    বিবেকের তাড়নায় এবার না লিখে পারছিনা, বর্তমান সরকার কি যুদ্ধাপরাধীদের বিচার চায়? যদি চায় তাহলে এসব খবর কেন দেখতে হয়? বিচারক, প্রসিকিউশন কর্মকর্তা এবং সাক্ষীদের কেন যথেষ্ঠ নিরাপত্তা দেয়া হচ্ছে না?

  4. সাকারা মারবেনাতো কারা মারবে?
    সাকারা মারবেনাতো কারা মারবে? সাকার হত্যা ১৯৭১’এ শেষ হয়ে যায়নি! বাংলাদেশে ফিরে এসে ১৯৭৯তে নির্বাচন করে এম।পি হবার পর থেকেই সে একের পর এক রাউজানের সমস্ত প্রতিবাদী কন্ঠকে হত্যা করে এসেছে। সাকার ভাইয়ের ছেলেরা বিপিএল ‘চিটাগাং কিংস’ নামে একটা টীমে মালিক, যে কারণে চট্টগামের মানুষ হয়েও চিটাগাং কিংসকে সমর্থন দিতে পারিনা। চট্টগ্রামের বুকে গুডস হিলে বিশাল পাহাড় নিয়ে সদর্পে বসবাস করছে সাকা আর তার রাজাকার পরিবার, যে পাহাড়ে মুক্তিযোদ্ধাদের ধরে এনে পেরেক ঠুকে ঠুকে মারা হত। সাকা এরশাদ আমলে তাঁর মন্ত্রীত্ব কাজে লাগিয়ে তাঁর কিউ সি শিপিংএর মাধ্যমে সোনা আর হেরোইন চোরাচালানী করে সম্পদের পাহাড় গড়েছে। তার চাচাতো ভাই ফজলে করিম চৌধুরী, যে কিনা ১৯৯১ এর নির্বাচনে ছাত্রলীগের নেতা বাবর-মুজিবকে হত্যা করছিল, সে এখন রাঊজানে আওয়ামী লীগের এম।পি। তাদের হাতে শত কোটি টাকা, আওয়ামী লীগ, বি এন পি, জামাত সবই তাদের দখলে! সাকার বিচার কিভাবে করবেন! সাকা যে এতদিন জেলে আছে এটাই তো আমার কাছে আশ্চর্য্য লাগে। আমার চিন্তা হয় এখন নতুন চন্দ্র সিংহের ছেলে প্রফুল্ল চন্দ্র সিংহ বা আমাদের ‘মন্টু চাচ্চু’ জন্য, তিনি রাউজানে থেকে সাহস করে সাক্ষী দিয়েছেন। আমি তাঁর সর্বোচ্চ নিরাপত্তা দাবী করছে, আর গুডস হিলে সাকা পরিবারের বাসা বাজেয়াপ্ত করে তাকে বধ্যভুমি ঘোষণার দাবী জানাচ্ছি।

  5. Clenbuterol will even inhibit
    Clenbuterol will even inhibit and turn back results of blood insulin resulting in a release of glycogen in to the circulatory system. Additionally, it impairs the ability to shop or use more glycogen and increases the rate at which protein and fat (adipose tissue) are eaten because of the increased metabolic capabilities from the subject buy botanical slimming3 – Push-united parcel service – Although push-ups are known mainly as a chest physical exercise, simply by thinning the length involving the fingers you are able to change the primary how can i purchase meizitang focus from the physical exercise for your arms.

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

− 1 = 1