হরতাল সামনে রেখে চট্টগ্রামে মহাপরিকল্পনা নিয়ে প্রস্তুত জামাত-শিবির চক্র

আজকের হরতালকে সামনে রেখে মহাপরিকল্পনা নিয়ে প্রস্তুত জামাত-শিবির চক্র। বিভিন্ন সূত্রে প্রাপ্ত তথ্যানুযায়ী জানা যায়, চট্টগ্রামে আজকের হরতালে ব্যাপক সহিংসতা চালানোর পরিকল্পনা নিয়েছে স্বাধীনতা বিরোধী এই চক্রটি। বিএনপির এই হরতালে সমর্থন জামাতকে নতুন করে শক্তি এবং উদ্দীপনা যুগিয়েছে বলে জানা যায়। কারন বিগত একমাস যাবত বিএনপি তাদের জোটের এই দলটির সাথে কিছুটা ধরি মাছ না ছুই পানি নীতি দেখিয়ে আসছিলো। এতে করে জামাতের কেন্দ্রীয় নেতারা কিছুটা দুশ্চিন্তায় ছিল। তবে আজকের হরতালে বিএনপির সমর্থন তাদের নতুন করে উজ্জীবিত করেছে।


আজকের হরতালকে সামনে রেখে মহাপরিকল্পনা নিয়ে প্রস্তুত জামাত-শিবির চক্র। বিভিন্ন সূত্রে প্রাপ্ত তথ্যানুযায়ী জানা যায়, চট্টগ্রামে আজকের হরতালে ব্যাপক সহিংসতা চালানোর পরিকল্পনা নিয়েছে স্বাধীনতা বিরোধী এই চক্রটি। বিএনপির এই হরতালে সমর্থন জামাতকে নতুন করে শক্তি এবং উদ্দীপনা যুগিয়েছে বলে জানা যায়। কারন বিগত একমাস যাবত বিএনপি তাদের জোটের এই দলটির সাথে কিছুটা ধরি মাছ না ছুই পানি নীতি দেখিয়ে আসছিলো। এতে করে জামাতের কেন্দ্রীয় নেতারা কিছুটা দুশ্চিন্তায় ছিল। তবে আজকের হরতালে বিএনপির সমর্থন তাদের নতুন করে উজ্জীবিত করেছে।

চট্টগ্রাম নগরীর জামাত-শিবিরের ঘাটি বলে পরিচিত চট্টগ্রাম কলেজের পার্শ্ববর্তি এলাকা এবং চকবাজার-চন্দনপুরা এলাকায় জামাত-শিবির আজকের হরতালে সহিংসতা ঘটানোর লক্ষ্যে চট্টগ্রামের বিভিন্ন এলাকা এবং বিভিন্ন উপজেলা থেকে, বিশেষত হাটহাজারি থেকে প্রচুর সংখ্যক মাদ্রাসা ছাত্রদের একত্রিত করেছে। ব্লগে ফেসবুকে ধর্ম অবমাননার ধোঁয়া তুলে তারা এসকল মাদ্রাসা ছাত্রদের ব্রেইন ওয়াশ করেছে বলে জানা যায়। এরসাথে তারা সহিংসতা ঘটানোর লক্ষ্যে যথেষ্ট পরিমানে আগ্নেয়াস্ত্র সহ বিভিন্ন অস্ত্রশস্ত্র প্রস্তুত রেখেছে। এজন্য তারা চট্টগ্রাম কলেজের আশেপাশে অবস্থিত শিবির নিয়ন্ত্রিত বেশ কিছু মেস এবং ফ্ল্যাটে বিপুল পরিমানে অস্ত্রশস্ত্র প্রস্তুত রেখেছে। তাদের লক্ষ্য আজকের হরতালে ব্যাপক সহিংসতা এবং নাশকতা দেখিয়ে জনমনে আতংক সৃষ্টি করে যুদ্ধাপরাধের বিচারের দাবীতে গঠিত গণজাগরণ মঞ্চের আন্দোলন ব্যর্থ করা।

এদিকে চট্টগ্রাম গনজারন মঞ্চের আন্দোলন লক্ষ্য করে দেখা গেছে দেশকে রাজাকার মুক্ত এবং যুদ্ধাপরাধীদের ফাঁসি নিশ্চিত করার লক্ষ্যে তারা একতাবদ্ধ হয়ে জামাতের ডাকা আজকের হরতাল প্রতিহত করতে যথেষ্ট প্রস্তুতি নিয়েছেন। চট্টগ্রাম গণজাগরণ মঞ্চে এযাবতকালে আন্দোলন কর্মসূচি দুপুর তিনটা থেকে রাত দশটা পর্যন্ত থাকলেও আজকের হরতাল প্রতিহত করার লক্ষ্যে অনেকেই আজ সারারাত গণজাগরণ মঞ্চে উপস্থিত থাকবেন এবং অনেকেই আজ ভোরে এসে তাদের সাথে সংহতি জানাবেন। এছাড়াও পুলিশসহ সরকারী নিরাপত্তা বাহিনীও সতর্ক অবস্থানে আছে বলে জানা যায়।

ধর্ম রক্ষার ধুঁয়া তুলে জামাত-শিবির চক্র মূলত যুদ্ধাপরাধীদের বিচারকে বানচাল করাসহ গণজাগরণ আন্দোলন থেকে উদ্ভূত জামাত নিষিদ্ধের দাবীকে প্রতিহত করতেই দেশব্যাপী নাশকতার পরিকল্পনা নিয়ে মাঠে নেমেছে। একাত্তরেও ঠিক এভাবেই তারা ধর্মের দোহাই দিয়ে আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধের বিরোধিতা করেছিল। আজও তারা একই লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে। দেশপ্রেমিক প্রতিটি নাগরিককে এই মুহুর্তে জামাত-শিবিরের চক্রান্ত থেকে সতর্ক থাকার আহবান জানানো যাচ্ছে। একাত্তরে তারা যেমন ব্যর্থ হয়েছিল, আজও আমাদের সম্মিলিত শক্তির কাছে এদের পরাজয় ঘটবেই। প্রয়োজন আমাদের একতাবদ্ধ শক্তি দিয়ে এদের প্রতিহত করা। ধর্ম যার যার, এই দেশ আমাদের সবার।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

৪ thoughts on “হরতাল সামনে রেখে চট্টগ্রামে মহাপরিকল্পনা নিয়ে প্রস্তুত জামাত-শিবির চক্র

  1. ধর্ম রক্ষার ধুঁয়া তুলে

    ধর্ম রক্ষার ধুঁয়া তুলে জামাত-শিবির চক্র মূলত যুদ্ধাপরাধীদের বিচারকে বানচাল করাসহ গণজাগরণ আন্দোলন থেকে উদ্ভূত জামাত নিষিদ্ধের দাবীকে প্রতিহত করতেই দেশব্যাপী নাশকতার পরিকল্পনা নিয়ে মাঠে নেমেছে।

    সহমত। ঝাড়ফুক থিওরি লাগবো। ফাকিস্তানের প্রেতাত্মা ফাকিস্তানে ফিরে যা

  2. টিভিতে দেখলাম মানিকগঞ্জ ছাড়া
    টিভিতে দেখলাম মানিকগঞ্জ ছাড়া সারাদেশে তারা তেমন কিছু করতে পারেনি। তবে সাবধান! আত্মতৃপ্তিতে ভোগার কোনো কারণ নেই। সবাইকে এক্কাট্টা থাকার অনুরোধ করছি।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

84 + = 90