ধর্মের অপব্যবহার ||

ধর্মের অপব্যবহার রোধে আমাদের আসলে কি করা উচিত,এই ভাবনা টা সব সময় আমার মধ্যে কাজ করত,ইদানিং সেটা নিয়ে আরো বেশী চিন্তায় আছি,কারণ জামাত-শিবির ধর্মকে অপব্যবহার করে যে ভাবে সাধারণ ধর্মপ্রান মুসলমানদের চেতনার মধ্যে উস্কানি দিচ্ছে বা দিতে সক্ষম হচ্ছে সেটা প্রশমনে আমরা মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের শক্তির করনীয় কি অথবা আমাদের যা করনীয় তা আমরা যথাযথ ভাবে পালন করছি কি না,সে বিষয়ে আত্মোপলদ্ধির সময় এসেছে,সর্ব প্রথম আমাদেরকে কোরআন-হাদীস সম্পর্কে ভাল ভাবে জানতে হবে কারণ জামাত-শিবির কোরআন -হাদীসের অপব্যখ্যা করে তরুনদের বিপথগামী করে মুক্তিযুদ্ধের শক্তির বিপক্ষে ব্যবহার করছে,দ্বিতীয়তঃ ফেসবুক কিংবা ব্লগে লিখার সময় এমন কিছু না লিখা যাতে ধর্মের উপর আঘাত না করে,যদিও জামাত-শিবির এহেন অনৈতিক কর্মটি করে যাচ্ছে বলে প্রতীয়মান হচ্ছে,ত্রিতীয়তঃ প্রত্যেক মসজিদে মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের লোকের উপস্থিতি জরুরী কারণ মসজিদ যদি ওদের দখলে থাকে তাহলে ওরা সহজেই সংঘঠিত হতে পারবে,আর মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের দল হিসেবে আওয়ামীলীগের আন্তরিকতার উপর অনেক কিছু নির্ভর করে,তবে এত দূর আসার জন্য আওয়মীলীগের আন্তরিকতা নিয়ে আমরা সন্দিহান নই তথাপি আওমীলীগকে আর ও আন্তরিক হতে হবে এবং এটার শেষ ও ওদের করতে হবে কারণ বিএনপির কাছে যুদ্ধাপরাধীর বিচার আশা করাটা অরণ্যে রোধন করার মতই |

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

৬ thoughts on “ধর্মের অপব্যবহার ||

  1. ভাল লিখেছেন। খুব ভাল লাগলো
    ভাল লিখেছেন। খুব ভাল লাগলো যথেষ্ট বলে আমি মনে করি না। নাগরিক হিসেবে আমাদের প্রত্যেকের কিছু কিছু দায়িত্ব রয়ে গেছে। যেমন দেশ আমাকে কি দিয়েছে, আমি দেশকে কি দিচ্ছি বা আমার কি দিবার আছে জানার চেষ্ঠা করতে হবে। আপনি আমি প্রত্যেকে দেশ গড়ার অংশিদার। সুতরাং যে যার অবস্থান থেকে একটু চেষ্টা করা উচিত। ন্যায়-অন্যায়, ভাল-মন্দ বুঝার ক্ষমতা আমাদের প্রত্যেকের আছে। আমি যে দল বা গোষ্ঠীকেই পছন্দ করিনা কেন? যে দল বা গোষ্ঠীর যে অংশটুকু ভাল তা গ্রহণ করব আর যে অংশটুকু মন্দ তা অবশ্যই ঘৃণা ভরে প্রত্যাখান করবো। এতাই হওয়া ‍উচিত প্রত্যেকের অঙ্গীকার। ব্যক্তির চেয়ে দল বড় দলের চেয়ে দেশ বড়। দেশ সেবাই প্রত্যেকের ব্রত হোক এটাই কামনা করি।

  2. আপাতত সমাধানের জন্য আপনার
    আপাতত সমাধানের জন্য আপনার পদ্ধতি ঠিক আছে। কিন্তু মনে রাখলেই চলবে, এক সময় চার্চের অনেক ক্ষমতা ছিল। এখন নাই। মানুষকে শিক্ষিত করতে না পারলে। মসজিদে মেজরিটি দিয়ে ধর্মান্ধতা দূর করা যাবে না।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

62 − 61 =