যুদ্ধপরাধি রাজাকারদের বাঁচার একটি প্রস্তাব


শাহবাগ স্বাধীনতা প্রজন্ম চত্বর এখন জামায়াত-শিবির নিধনের স্লোগানে আন্দোলিত। ২৪-ঘণ্টা নতুন প্রজন্মের লাখো কণ্ঠের ধ্বনিতে এখন অগ্নিস্ফুলিঙ্গ ঝড়ছে, যা আবার এগিয়ে এসেছে আগামি ৫ ফেব্রুয়ারি। মনে হচ্ছে ৪০-বছরে হাঁটি হাঁটি পা পা করে অনেক এগুলেও, জামায়াত-শিবিরের দিন এদেশে এবার সত্যিই রুদ্ধ হওয়ার পথে। মুক্তিযুদ্ধ প্রজন্মের সকলের দাবী সকল রাজাকারের ফাঁসি দিয়ে দেশকে কলঙ্কমুক্ত করা। কিন্তু একজন মুক্তিযোদ্ধার পরিবারের মানুষ হিসেবে আমার মনে হচ্ছে, যদি সত্যি বাংলার পবিত্র মাটিতে সকল রাজাকারের ফাঁসি হয়েই যায়, তবুও কি এদেশ কলঙ্কমুক্ত হবে? আসলে হবে না, কারণ ফাঁসির পরও রাজাকারদের অপবিত্র দেহগুলো থেকে যাবে এদেশেই এবং তাদের অপবিত্র রক্ত থেকে আবার নতুন পিশাচ জন্ম নিতেও পারে এ বাংলার মাটিতে। সে কারণে আমার একটি বিকল্প প্রস্তাব হচ্ছে নিমণরূপ :

স্বাধীনতা প্রজন্ম চত্বর থেকে প্রজন্ম সেনানীরা ৫ তারিখের গণজাগরণ মঞ্চ থেকে ঘোষণা দিক যে, ‘‘আগামী —- দিনের মধ্যে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে ঘাপটি মারা যে সকল রাজাকার স্বপরিবারে (আন্ডাবাচ্চাসহ) বাংলাদেশ ত্যাগ করে পাকিস্তান চলে যাবে, তাদের সাধারণ ক্ষমা করা হবে’’, তাহলে ২ পক্ষেরই লাভ। তা হলো, রাজাকারদের ফাঁসির কাষ্ঠে আর ঝুলতে হবে না। আর বাঙালির লাভ দেশ ও দেশের মাটিকে রাজাকারমুক্ত করে দেশকে পবিত্র হিসেবে ঘোষণা করা।

যদিও আমরা সবাই জানি সকল রাজাকার ও তাদের বংশধরেরা পাকিস্তানকে তাদের পবিত্র ভূমি মনে করলেও, পাকিস্তান কখনো তাদের গ্রহণ করবেনা, কারণ একাত্তরে যে লক্ষ লক্ষ উর্দুভাষী পাকিস্তানের পক্ষ অবলম্বন করেছিল, পাকিস্তান কখনো তাদের সে দেশে ঢুকতে দেয়নি। বরং বিরোধিতা করা সত্বেও ঐ পাকিস্তানপন্থীরা এদেশে (মুহম্মদপুর, মিরপুর, সৈয়দপুর ইত্যাদি এলাকায়) এখনো বসবাস করছে। বাঙালিরা রাজাকারদের মতো নরপশু নয় বিধায় ওদেরকে মানবিক কারণে বসবাসের সুযোগ দিয়েছে। চলুন স্বাধীনতা প্রজন্ম চত্বরে গিয়ে স্লোগান তুলি ‘‘তুই রাজাকার, তুই রাজাকার, রাজাকার তুই বাংলা ছাড়’!

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

৩৫ thoughts on “যুদ্ধপরাধি রাজাকারদের বাঁচার একটি প্রস্তাব

  1. ‘তুই রাজাকার, তুই
    ‘তুই রাজাকার, তুই রাজাকার,
    রাজাকার তুই বাংলা ছাড়’… :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: [মনে হয় ছাড় হবে, আপনি ছাড়া লিখেছেন…]

    প্রথম প্রস্তাব নিয়ে সমস্যা হবে কি জানেন? আগামীতে যখন জিয়া এন্ড গং ক্ষমতায় আসবে তখন তারা আবার তাদের পাকিস্তান থেকে এনে নতুন করে নাগরিকত্ব দয়ে, তাদের ছেলে মেয়েদের আর্মি ট্রেনিং করিয়ে আবার নতুন করে ঘাঁটি বসাবে…

    এদের ফাঁসি ছাড়া কোন ক্ষমা নাই… সকল রাজাকারের ফাঁসি চাই! একটাই দাবী…

    1. ধন্যবাদ সংশোধনীর জন্য। জি ভাই
      ধন্যবাদ সংশোধনীর জন্য। জি ভাই তাই হবে।

      তা যা বলেছেন, বার বার বলা হয়, বঙ্গবন্ধু নাকি রাজাকারদের ক্ষমা করে গেছেন, কিন্তু কে তাদের জেল থেকে ছিড়ে দিল, রাজনীতি করার অধিকার দিলো, পাকিস্তানী পাসপোর্ট নিয়ে বাংলাদেশে রাজনীতি করার অধিকার দিলো, সে ব্যাপারে এরা মুখে কুলুপ লাগায় এরা! এই হচ্ছে বাংলাদেশের বহুদলীয় গণতন্ত্র!!

      1. বার বার বলা হয়, বঙ্গবন্ধু

        বার বার বলা হয়, বঙ্গবন্ধু নাকি রাজাকারদের ক্ষমা করে গেছেন, কিন্তু কে তাদের জেল থেকে ছিড়ে দিল, রাজনীতি করার অধিকার দিলো, পাকিস্তানী পাসপোর্ট নিয়ে বাংলাদেশে রাজনীতি করার অধিকার দিলো, সে ব্যাপারে এরা মুখে কুলুপ লাগায় এরা! এই হচ্ছে বাংলাদেশের বহুদলীয় গণতন্ত্র!

        এবং বহুদলীয় গনতন্ত্র প্রবর্তন করেছিলেন একাত্তরের রেম্ব শাহিড প্রেসিদেন জিয়াউর রহমান… যিনি পৃথিবীর অন্যতম সেরা ডাবল এজেন্ট হিসেবে ইন্টেলিজেন্স সংস্থাগুলোর জন্য তিনি ছিলেন এক অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত… :ভাবতেছি: :এখানেআয়: :এখানেআয়:

    2. ধন্যবাদ আপনার সংশোধনীর জন্য।
      ধন্যবাদ আপনার সংশোধনীর জন্য।

      হ্যা আপনার মন্তব্য ১০০% সঠিক, কিন্তু এরাই আবার গলা ফাটিয়ে কোরাস গাইছে যে, বঙ্গবন্ধু নাকি সব রাজাকারদেরকে সাধারণ ক্ষমা করেছেন। অথচ যখন জানতে চাওয়া হয়, কে সব আটক রাজাকারদের জেল থেকে মুক্তি দিয়েছে, কে জামায়াতকে রাজনীতি করার অধিকার দিয়েছে, কে পাকিস্তানী পোস্টপোর্টধারীকে বাংলাদেশে রাজনীতি করার অধিকার দিয়েছে? তখন এদের সবার মুখে কুলুপ!

      ধন্যবাদ ভাইয়া!!

  2. প্রথম প্রস্তাব নিয়ে সমস্যা
    প্রথম প্রস্তাব নিয়ে সমস্যা হবে কি জানেন? আগামীতে যখন জিয়া এন্ড গং ক্ষমতায় আসবে তখন তারা আবার তাদের পাকিস্তান থেকে এনে নতুন করে নাগরিকত্ব দয়ে, তাদের ছেলে মেয়েদের আর্মি ট্রেনিং করিয়ে আবার নতুন করে ঘাঁটি বসাবে…

    এদের ফাঁসি ছাড়া কোন ক্ষমা নাই… সকল রাজাকারের ফাঁসি চাই! একটাই দাবী…
    কপিরাইট by তারিক লিংকন ♥

      1. একটা বিকল্প বিরোধীদল তাই
        একটা বিকল্প বিরোধীদল তাই আওয়ামীলীগ নিজের এবং দেশের স্বার্থেই গড়ে তুলতে হবে। প্রতিবন্ধী বিরোধীদল নিয়ে গণতন্ত্র হয় না কেননা, যুক্তি যেথায় স্বার্থান্বেষী মুক্তি সেথায় প্রতিবন্ধী...

    1. সহমত পোষণের জন্য আন্তরিক
      সহমত পোষণের জন্য আন্তরিক শুভেচ্ছা আর ভালবাসা। জয় বাংলা!!!

      দিতে পারো একশ’ ফানুস এনে, “আজন্ম সলজ্জ সাধ, একদিন আকাশে কিছু ফানুস ওড়াই৷”

      আমার প্রিয় বাক্য!

  3. দীপা আপুকে ধন্যবাদ এমন একটি
    দীপা আপুকে ধন্যবাদ এমন একটি প্রস্তাবের জন্য। তবে অন্য ব্লগারগণ যা বলেছেন তার পেছনে যুক্তি আছে, দেখুন কোনভাবে রাজাকারমুক্ত করা যায় কিনা দেশ। সবার প্রত্যাশা সেটা।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

6 + 1 =