“ও আমার জন্মভুমি তুই স্বাধীন হবি কবে ?”

নাস্তিকদের দ্বারা সংঘটিত কোন বড় ধরণের ক্ষতি আমি এখনও দেখিনি ,কিন্তু আস্তিকরা যা করছে তাতে আমার মনেহয় যেকোনো “হুঁশ বুদ্ধি” সম্পন্ন “প্রকৃত” আস্তিকরা লজ্জায় পড়ছেন ।
এখানে আবার নাস্তিক আর বিধর্মী দুইটা জিনিসকে কেউ মিলিয়ে মিশিয়ে একাকার করে দিয়েন না । আমি যতদূর জানি ,সৃষ্টিকর্তার অস্তিত্বে যাদের বিশ্বাস আছে তারা আস্তিক ,যাদের নেই তারা নাস্তিক এবং নিজ ধর্ম ব্যাতিত অন্য ধর্মের লোক যেকোনো মানুষের কাছেই বিধর্মী।
বাংলাদেশে আবার গণিতের লঘু ও গুরু মানের মতই মানুষের মধ্যেও লঘুতত্ত্ব আর গুরুতত্ত্ব বিরাজমান । যদিও একটা দেশকে “দেশ” হিসেবে দেখতে গেলে লঘু আর গুরু যে কি কারণে ব্যবহৃত তা আমার যথেষ্ট গবেষণার পরও বের করা সম্ভব হয়নি। তবে দুঃখের বিষয় কোন জ্ঞানী ব্যাক্তি এ বিষয়ে আমার সাথে মুখ ও খুলেনি যদিও আমি তাদের যথেষ্ট জ্ঞানী বলেই জানি । জানিনা তাদের কি এমন ক্ষতি হত যদি তারা আমাকে তাদের তীক্ষ্ণ যুক্তি দিয়ে বুঝিয়ে দিত বিষয়টা ।
ভাবার কোন কারণ নেই যে আমি নাস্তিকদের প্রতিনিধিত্ব করতে আসলাম ।আমার তো পূর্বপুরুষ সব্বাই আস্তিক ,ধর্মে মুসলমান ।
খুব ছোটবেলা থেকেই আমার আচরণ সবার সাথে মিলত না ,মানুষ প্রথম কথা শিখে মা,বাবা,দাদা ইত্যাদি দিয়ে কিন্তু আমার প্রথম দাক ছিল “মাম্মি”,এখানে আবার বলে রাখা ভাল আমার পরিবারে সে সময় ওয়েস্টার্ন কোন ছোঁয়াও ছিলনা,তবুও এই ডাক দিয়ে আমার কথা বলার শুরু ,আর সেই যে শুরু ,আমি কখনই প্রশ্ন ব্যাতিত কোন কিছু স্বাভাবিকভাবে মেনে নেইনি ,হাতে গোনা কিছু নির্দিষ্ট বিষয় ছাড়া ।
তো স্বাভাবিক বলতে যদি নরমালকেই বুঝায় ,আর যেহেতু আমি স্বাভাবিকভাবে “সবকিছু” মেনে নেইনা ,কাজেই আমি অস্বাভাবিক অর্থাৎ “এবনরমাল” চিন্তায় করি।
“অসুস্থতায় যেখানে সুস্থতা সেখানে সুস্থরায় অসুস্থ “।
চুপ হয়ে যায় যখন আমার চেয়ে বয়সে অনেক ছোট ভাই জিজ্ঞেস করে “জামাত শিবিররা মন্দির কেন ভাঙছে বুঝলাম না । মন্দির কি বলেছিল রাজাকারের ফাঁসি চাই??? ”
মস্তিস্কের বয়স রাজাকারদের মত অত বেশি না হলেও মাথার মস্তিস্কের জায়গাতা অন্তত ফাঁকা না হলেই যে কেউই প্রশ্নবিদ্ধ এসব ধর্ম ব্যাবসায়িদের গুনকীর্তনে “শরম” পাওয়ার কথা ,কিন্তু হায়……
লজ্জা তাদের অনেক আগেই ফুরিয়ে গেছে ,
আজ দেখি শরম টাও আর নাই !!!
তারা ধর্ম বেচিয়া খায় ।
কমন সেন্স থাকলে এমনিতেই বুঝা যায় ,ইন্দনেশিয়াতে কি কোন “কাদেরসাইদিটাইপ” ব্যাক্তিত্ব আছে ???ঐখানে কি মুসলমানরা অন্ধকারে ডুবে আছে ?
অনেক উন্নত দেশেও সবাই যার যার ধর্ম নিয়ে “সুখে শান্তিতে দিন কাটাচ্ছে”,কেউ কারো ঘরবাড়ি পুড়ানোর সময় পায়না। কিন্তু এখানেও আমার এবনরমাল ব্রেইন দেখে ফেলল যে আমাদের ঐসব প্রবাসী বন্ধুরাও দেশে ফিরেই ঠিক ঠিক দেশীয় ধর্ম কে পুঁজি করা নোংরামিতে নিজেদেরকে জড়িয়ে নিচ্ছেন।

এবারে আসি রাজনীতি নিয়ে বড় মুখে ছোট ছোট কথা বলতে । নির্বাচনের সময় তথাকথিত সংখালঘুরা পরম আদরে তাদের ভোট তা আওয়ামীলীগ কে মুক্তহস্তে দান করে ,আর সেই আওয়ামীলীগের শাসনামলে তাদের যে নাক্কাল দেখছে সারাদেশের মানুষ তা আর লেখার দরকার নেই । বিএনপি,এদের সম্পর্কে দেওয়ার মত সময় আমার নেই ।বাকি গুলোর কথা আর লিখবনা ,সেগুল তেমন কোন প্রভাব আমার চোখের সামনে ফেলেনি।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

১ thought on ““ও আমার জন্মভুমি তুই স্বাধীন হবি কবে ?”

  1. নির্বাচনের সময় তথাকথিত

    নির্বাচনের সময় তথাকথিত সংখালঘুরা পরম আদরে তাদের ভোট তা আওয়ামীলীগ কে মুক্তহস্তে দান করে ,আর সেই আওয়ামীলীগের শাসনামলে তাদের যে নাক্কাল দেখছে সারাদেশের মানুষ তা আর লেখার দরকার নেই ।

    :কনফিউজড: :কনফিউজড: :কনফিউজড:

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

8 + 2 =