১০১ পলিটিকাল জোকস

রাজনৈতিক কৌতুক বলতে রাজনীতি সংক্রান্ত মজার ঘটনাবলীকেই বুঝানো হয়। কিন্তু এখানে রাজনীতিকদের বক্তব্য থেকে কিছু উদ্ধৃতি তুলে দেয়া হলো, যার প্রতিটা বাক্যই আপনার কাছে জোকস বৈ কিছুই মনে হবে না। বিগত বিএনপি সরকার আমলে তৎকালীন স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবরের ‘লুকিং ফর শত্রুজ’ কিংবা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আলতাফ হোসেন চৌধুরীর ‘আল্লাহর মাল আল্লায় নিয়ে গেছে’ বাংলা ভাষায় কৌতুককর প্রবচনের মর্যাদা পেয়েছিল। মানুষ এখনো সেসব ভোলেনি।

রাজনীতিকদের এই জোকস বিনির্মাণ কারখানাই গত পাঁচ বছরে সবচেয়ে বেশি উৎপাদন করেছে। এখানে ২০১২ সাল পর্যন্ত আপডেট পাবেন। আসুন, চেখে দেখি ১০১টি পলিটিকাল জোকস !

১। ‘আমরা সরকারে আসার পর মিডিয়া সম্পূর্ণ স্বাধীনতা পাচ্ছে। প্রতিদিন সরকারের বিরুদ্ধে না লিখলে তাদের ভাত হজম হয় না।’
– প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
(কুড়িগ্রাম জেলা আওয়ামী লীগের তৃণমূল নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় কালে। সূত্র : প্রথম আলো, ২ জুন ২০১২)

২। ‘পুলিশ আগের চেয়ে ভালো হয়েছে’
– স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুন
(সূত্র : প্রথম আলো, ৩১ মে ২০১২)

৩। ‘পুলিশ থেকে নিরাপদ দূরত্বে থাকুন।’
– স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শামসুল হক টুকু
(সাংবাদিকদের প্রতি। সূত্র : সমকাল, ৩০ মে ২০১২)

৪। ‘দুর্নীতি দেশের সব জায়গায়’
– অর্থমন্ত্রী এম এ মুহিত
(সূত্র : প্রথম আলো, ২০ মে ২০১২)

৫। ‘আইনি প্রক্রিয়া ছাড়া যাঁরা প্লট পেয়েছেন তাঁরা সবাই চোর’
(তেজগাঁও শিল্প এলাকায় প্লট বরাদ্দ প্রসঙ্গে আদালত। সূত্র : প্রথম আলো, ২৩ মে ২০১২)

৬। ‘এখন হবে মাইনাস ওয়ান। মাইনাস যুদ্ধাপরাধী, মাইনাস খালেদা জিয়া’
– হাসানুল হক ইনু, সভাপতি জাসদ
(সূত্র : প্রথম আলো, ২৬ মে ২০১২)

৭। ‘শালা নেতাগিরি করস। দাঁড়া, তোদের মজা দেখাচ্ছি। তোরা জেএমবি। তোদের জেএমবির মামলা দেব।’
– পুলিশের সহকারী কমিশনার (এসি) রাজিব আল মাসুদ
(এ কথা বলেই পেটাতে থাকেন শিক্ষানবিশ আইনজীবী রাশেদুল ইসলামকে। সূত্র : প্রথম আলো, ৩০ মে ২০১২)

৮। ‘আমি সহযোগিতা করব। চা-নাশতা লাগলে পাঠাতে পারব।’
– স্পিকার আবদুল হামিদ
(সংসদে বা সংসদের কোনো কক্ষে সরকার ও বিরোধী দলের আলোচনা প্রসঙ্গে। সূত্র : প্রথম আলো, ২৮ মে ২০১২)

৯। ‘খোলাখুলি তো কিছুই বলতে পারছি না। আপনারা যাঁরা কর্মী আছেন তাঁরা ঠারে ঠারে বুঝে নেন।’
– তথ্যমন্ত্রী আবুল কালাম আজাদ
(টেলিভিশন চ্যানেলের অনুমোদন প্রসঙ্গে রাজধানীতে এক সেমিনারে। সূত্র : প্রথম আলো, ২৭ মে ২০১২)

১০। স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী সাংবাদিকদের উদ্দেশে যা বলেছেন, তা তিনি হিউমারাসলি (রসিকতা করে) বলেছেন। এ নিয়ে সংসদে কথা বলে সময় নষ্ট করার সুযোগ নেই।
– সংসদে সরকারি দলের সাংসদ শেখ সেলিম
(সূত্র : প্রথম আলো, ৩১ মে ২০১২)

১১। ‘খালেদার দুর্নীতির বিচার না হলে অন্যদের করা যাবে না।’
– প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
(সূত্র : প্রথম আলো, ২১ মে ২০১২)

১২। ‘হাসিনা ও তাঁর পরিবারের সদস্যরা দুর্নীতিতে জড়িত। বিচার হবে।’
– বিরোধীদলীয় নেত্রী খালেদা জিয়া
(সূত্র : প্রথম আলো, ২১ মে ২০১২)

১৩। ‘কাশিমপুর কারাগারে গণতন্ত্রকে আটকে রেখে আপনি ক্ষমতায় চিরস্থায়ী হবেন, তা হবে না।’
– বিরোধীদলীয় চিফ হুইপ জয়নুল আবদিন ফারুক
(জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধনে প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে। সূত্র : প্রথম আলো, ২০ মে ২০১২)

১৪। ‘ডিবির দল ভুলে ওই বাড়িতে যেতে পারে।’
– বনানী থানার ওসি মামুনুর রশীদ
(ইলিয়াস আলীর বাসায় রাতে ডিবি পুলিশের কয়েকজনের যাওয়া প্রসঙ্গে। সূত্র : প্রথম আলো, ১৯ মে ২০১২)

১৫। ‘তত্ত্বাবধায়করূপী দানব আর মানুষ দেখতে চায় না।’
– প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
(সূত্র : প্রথম আলো, ১৮ মে ২০১২)

১৬। ‘কালো টাকার পক্ষে-বিপক্ষে বহু মত রয়েছে। তাই কালো টাকা নিয়ে আমি কিছু বলব না।’
– অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত
(সূত্র : প্রথম আলো, ১৮ মে ২০১২)

১৭। ‘কিছু রাঘব বোয়াল পুঁজিবাজার ধ্বংস করেছে।’
– এ কে আজাদ, সভাপতি, এফবিসিসিআই
(সূত্র : প্রথম আলো, ১৮ মে ২০১২)

১৮। ‘উদোর পিন্ডি বুধোর ঘাড়ে চড়ালে তো চলবে না। কোথাকার কোন রেল অফিসার, এপিএসরা কোথায় কী করেছে, তাও তো আমি দায়িত্ব নিয়েছি।’
– সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত
(সাংবাদিকদের। সূত্র : প্রথম আলো, ১৭ মে ২০১২)

১৯। ‘বাটি চালান দিলেও ১৮ দলে সব দলের লোক পাওয়া যাবে না… সুতরাং আন্দোলনের ভয় দেখিয়ে লাভ নেই।’
– আইন প্রতিমন্ত্রী কামরুল ইসলাম
(১৮ দলীয় জোটের সরকার পতনের আন্দোলনের হুমকি সম্পর্কে। সূত্র : প্রথম আলো, ১৬ মে ২০১২)

২০। ‘টক শোর পন্ডিতদের কথা ও লেখনি বাঙালি জাতির মুক্তি কোনো দিনই আনেনি।’
– স্থানীয় সরকারমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম
(সূত্র : প্রথম আলো, ১৬ মে ২০১২)

২১। ‘এখন সংসদে ব্যবসায়ী বেশি আর ঠিকাদারের সংখ্যা বেশি। সুতরাং সব আইন সঠিকভাবে পাস হবে, তা আশা করা যায় না।’
– সাবেক স্পিকার শেখ রাজ্জাক আলী
(সংসদে ত্রুটিপূর্ণভাবে আইন পাস হওয়া প্রসঙ্গে। সূত্র : প্রথম আলো, ৩ মার্চ ২০১১)

২২। ‘গুম-খুনের জন্য বিশেষ বাহিনী গড়েছে সরকার।’
– কাপাসিয়ার জনসভায় খালেদা জিয়া
(সূত্র : প্রথম আলো, ১৩ মে ২০১২)

২৩। ‘সরকারের এক মন্ত্রী বস্তাভর্তি টাকাসহ ধরা পড়েছেন। ওই মন্ত্রীর দুর্নীতিকে আড়াল করতে তারা ইলিয়াস আলীকে গুম করেছে।’
– বেগম খালেদা জিয়া
(কাপাসিয়ার জনসভায়। সূত্র : প্রথম আলো, ১৩ মে ২০১২)

২৪। ‘এবার ক্ষমতা হারালে আওয়ামী লীগ ৪২ বছরেও ক্ষমতায় আসতে পারবে না।’
– বেগম খালেদা জিয়া
(কাপাসিয়ার জনসভায়। সূত্র : প্রথম আলো, ১৩ মে ২০১২)

২৫। ‘কত বড় বেকুবের দেশে আমরা আছি। একটি বৃহত্তম দলের বড় নেতা মনে করেন, শান্তিতে নোবেল পেতে হলে যুদ্ধ থামাতে হবে।’
– ব্যারিস্টার রফিক-উল হক
(ড. ইউনূসের সমালোচনাকারীর উদ্দেশে। সূত্র : প্রথম আলো, ১৩ মে ২০১২)

২৬। ‘এ বরাদ্দ বাড়ানোর কথা কাকে বলব? অর্থমন্ত্রীর কাছে যাব, যদি তিনি আমাকে ‘রাবিশ’ বলে ফেলেন!’
– গোলাম মাওলা রনি এমপি
(জাতীয় প্রেসক্লাবে আলোচনা সভায় বাজেটে পুলিশের জন্য বরাদ্দ বাড়ানো প্রসঙ্গে। সূত্র : প্রথম আলো, ১১ মে ২০১২)

২৭। ‘ক্ষুদ্রঋণ কার্যক্রমে জড়িত কেউ একজন নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন। কোন যুদ্ধে তিনি শান্তি এনেছেন? কোথায় তিনি ক্ষুদ্রঋণের মাধ্যমে শান্তি স্থাপন করেছেন।’
– সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম, স্থানীয় সরকারমন্ত্রী
(সূত্র : প্রথম আলো, ১১ মে ২০১২)

২৮। বিশ্বের বেশ কিছু রাজধানীতে চিজ স্যান্ডউইচ আর সাদা ওয়াইন খেলে জনপ্রিয়তা বাড়ে। সময়মতো একটি নোবেল পুরস্কারও পাওয়া যায়।
– সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম, স্থানীয় সরকারমন্ত্রী
(সূত্র : প্রথম আলো, ১১ মে ২০১২)

২৯। ‘ইলিয়াস আলীকে খুঁজে বের করার জন্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সময় পেল কই? তারা হরতাল ঠেকাবে নাকি কাজ করবে?
– স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুন
(সূত্র : প্রথম আলো, ১০ মে ২০১২)

৩০। ‘গ্রামীণ ব্যাংক সরকার দখল করবে- এমন অভিযোগ ‘রাবিশ।’
– অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত
(সূত্র : প্রথম আলো, ৯ মে ২০১২)

৩১। ‘ধমক না দিলে ডিসি ও এসপিও কাজ করে না। তাই কাজ আদায় করতে আমাকে ধমক দিতে হয়।’
– খন্দকার মোশাররফ হোসেন, শ্রম ও কর্মসংস্থানমন্ত্রী
(ফরিদপুরে শ্রমিক লীগের জনসভায়। সূত্র : প্রথম আলো, ৪ মে ২০১২)

৩২। ‘ব্যারিস্টার রফিক-উল হক বলেছেন, সাবেক রেলমন্ত্রী সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের অর্থ কেলেঙ্কারির ঘটনা ধামাচাপা দিতে ইলিয়াসকে অপহরণ করা হয়েছে। কোনো ভারসাম্যহীন ব্যক্তি ছাড়া এ কথা কেউ বলতে পারেন না।’
– আইন প্রতিমন্ত্রী কামরুল ইসলাম
(সূত্র : প্রথম আলো, ২৮ এপ্রিল ২০১২)

৩৩। ‘বিএনপি নেতা ইলিয়াস আলীকে জীবিত উদ্ধার করাই আমাদের লক্ষ্য। সেই আশা নিয়েই কাজ করছি। আন্তরিকতার অভাব নেই।’
– সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম, স্থানীয় সরকারমন্ত্রী
(সূত্র : প্রথম আলো, ২৭ এপ্রিল ২০১২)

৩৪। ‘আমি মোর দ্যান শিওর, তাঁকে লুকিয়ে রাখা হয়েছে।’
– আইনজীবী ব্যারিস্টার রফিক-উল হক
(ইলিয়াস আলী গুম হওয়া প্রসঙ্গে। সূত্র : প্রথম আলো, ২৪ এপ্রিল ২০১২)

৩৫। ‘বিএনপির নেতা ইলিয়াস আলী নিখোঁজের রহস্য শিগগিরই উদ্ঘাটিত হবে। যত দ্রুত সম্ভব তাঁকে খুঁজে বের করতে সরকার সব ধরনের পদক্ষেপ নিয়েছে।’
– মাহবুব-উল আলম হানিফ, আ’লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক
(সূত্র : প্রথম আলো, ২৪ এপ্রিল ২০১২)

৩৬। ‘আমরা আইনের লোক। কে কোথায় নিখোঁজ, আমরা মুখে শুনলেও বিশ্বাস করি না।’
– বিশ্বনাথ থানার ওসি চান মিয়া
(নিখোঁজ ইলিয়াস আলীর বিরুদ্ধে ঘটনার ১১ বছর পর মামলা নেয়া প্রসঙ্গে। সূত্র : প্রথম আলো, ২১ এপ্রিল ২০১২)

৩৭। ‘নেত্রীর নির্দেশে তিনি লুকিয়ে থাকতে পারেন।’
– প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
(ইলিয়াস আলী গুম প্রসঙ্গে। সূত্র : প্রথম আলো, ২০ এপ্রিল ২০১২)

৩৮। ‘সামারি ট্রায়ালেরও সময় দেয়া হয়। বাপরে বাপ, মিডিয়া ট্রায়ালে কোনো সময় দেয়া হয় না।’
– সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত
(সূত্র : প্রথম আলো, ১৬ এপ্রিল ২০১২)

৩৯। ‘আজীবন আমি খালি তীর ছুড়েছি। তীরের কি ব্যথা আমি বুঝিনি। এবার তীর আমার দিকে। তীরের বেদনা বুঝেছি।’
– সংবাদ সম্মেলনে রেলমন্ত্রী সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত
(সূত্র : প্রথম আলো, ১৩ এপ্রিল ২০১২)

৪০। ‘বিশ্বব্যাংক বায়বীয় অভিযোগের ভিত্তিতে জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ একটি প্রকল্প ঝুলিয়ে রেখেছিল।’
– শেখ ওয়াহিদ-উজ-জামান, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্যসচিব
(পদ্মা সেতু নিয়ে মালয়েশিয়ার সঙ্গে এমওইউ সই প্রসঙ্গে। সূত্র : প্রথম আলো, ৮ এপ্রিল ২০১২)

৪১। ‘আকাশে চাঁদ উঠলে সবাই দেখতে পাবে। আমি বলতে পারি শিগগিরই চাঁদ উঠবে।’
– যোগাযোগমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের
(পদ্মা সেতু নির্মাণে মালয়েশিয়ার সঙ্গে এমওইউ সই প্রসঙ্গে। সূত্র : প্রথম আলো, ৪ এপ্রিল ২০১২)

৪২। ‘৯০ দিন ফুরাবার আগে সংসদে এসে খালেদা জিয়া দাঁড়ি-কমাহীন ধারাপাত পড়ে গেছেন।’
– কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী
(সূত্র : প্রথম আলো, ৩১ মার্চ ২০১২)

৪৩। ‘লোডশেডিংয়ের দরকারও আছে। মানুষ যাতে ভুলে না যায়, লোডশেডিং নামে কিছু একটা ছিল।’
– জাতীয় সংসদে বক্তৃতাকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
(সূত্র : প্রথম আলো, ৩০ মার্চ, ২০১২)

৪৪। ‘পত্রিকা ও টেলিভিশনগুলো এখন সত্য-মিথ্যা মিলিয়ে যা ইচ্ছা বলছে। আমরা তো কিছু বলছি না।’
– সংসদে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
(সূত্র : প্রথম আলো, ৩০ মার্চ, ২০১২)

৪৫। ‘প্রধান দুই দলের অবস্থা প্রেম-প্রত্যাখ্যাত প্রেমিকের মতো। যে দল নির্বাচনে হেরে যায়, তারা ক্ষমতাসীন দলের বিরোধিতা করতে গিয়ে গণতন্ত্রের মুখে এসিড ছুড়ে দিচ্ছে।’
– ব্যারিস্টার আমীর-উল ইসলাম
(গোলটেবিল আলোচনায়। সূত্র : প্রথম আলো, ২৯ মার্চ ২০১২)

৪৬। ‘প্রতিশোধ নেয়ার আশায় বেঁচে আছি। অন্যভাবে নয় আবার রাষ্ট্রক্ষমতায় গিয়ে সেই প্রতিশোধ নেব।’
– এইচএম এরশাদ
(সূত্র : প্রথম আলো, ২৮ মার্চ ২০১২)

৪৭। ‘একটা ক্ষমতাসীন দলের ছাত্র সংগঠনের বিরুদ্ধে অ্যাকশনে যাওয়া নিষেধ। এখানে কিছু বিধিগত সীমাবদ্ধতা আছে।’
– মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম, মাদারীপুরের পুলিশ সুপার
(ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা সরকারি নাজিমউদ্দীন কলেজের শিক্ষকদের অবরুদ্ধ করা প্রসঙ্গে। সূত্র : প্রথম আলো, ২৬ মার্চ ২০১২)

৪৮। ‘বিদ্যুৎ খাতে সরকারের সাফল্য সম্পর্কে জনগণকে অবহিত করতে কোনো কোনো মিডিয়া কার্পণ্য করছে।’
– জ্বালানি উপদেষ্টা তৌফিক-ই-এলাহী চৌধুরী
(সূত্র : প্রথম আলো, ২৩ মার্চ ২০১২)

৪৯। নিষিদ্ধপল্লির ব্যাপারে যেসব কথা বলা হয়েছে, তা শোভন নয়। আমি তো বলতে পারি না কার নিষিদ্ধপল্লির অভিজ্ঞতা আছে। তবে তদন্ত হওয়া উচিত।
– স্পিকার আবদুল হামিদ
(সংসদে সাংসদদের অশোভন বক্তব্য রাখা প্রসঙ্গে। সূত্র : প্রথম আলো, ২০ মার্চ ২০১২)

৫০। ‘তাঁর (খালেদা জিয়া) জন্ম শিলিগুড়ির চা-বাগানে। তার নানা-নানির নাম কি? জিয়াউর রহমানের জন্ম ভারতে, পড়াশোনা করেছেন পাকিস্তানে। তাঁর বাবা-মার কবর পাকিস্তানে। দেশের প্রতি তাঁদের দরদ থাকবে কী করে?’
– প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
(বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকীতে জাতীয় শিশু দিবসের আলোচনা সভায় বক্তৃতাকালে। সূত্র : প্রথম আলো, ১৯ মার্চ, ২০১২)

৫১। ‘মুক্তিযুদ্ধের সময় গেরিলারা বেগম জিয়াকে ভারতে নিয়ে যেতে এসেছিলেন। তিনি যাননি। তিনি ক্যান্টনমেন্টে পাকিস্তান সেনাবাহিনীর সঙ্গে মেসে ছিলেন।
– প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
(বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকীতে জাতীয় শিশু দিবসের আলোচনা সভায় বক্তৃতাকালে। সূত্র : প্রথম আলো, ১৯ মার্চ, ২০১২)

৫২। ‘মইন-ফখরুদ্দীনের কোলে বসে শেখ হাসিনা ক্ষমতায় এসেছেন। শুধু কোলে নয়, আর কোথায় কোথায় বসেছেন কে জানে!’
– সংসদে বক্তৃতাকালে বিএনপির সাংসদ রেহানা আক্তার
(সূত্র : প্রথম আলো, ১৯ মার্চ ২০১২)

৫৩। ‘মন্ত্রণালয় বিদ্যুতের পুরনো কেন্দ্রগুলো মেরামত না করে নতুন কেন্দ্র স্থাপনে বেশি মনোযোগী। কারণ, এতে অন্য রকম কিছু ব্যাপার আছে।’
– সংসদীয় কমিটির বৈঠক শেষে সাংসদ ইসরাফিল আলম
(সূত্র : প্রথম আলো, ১৪ মার্চ ২০১২)

৫৪। ‘এসব উপদেষ্টা বাংলাদেশের না ভারতের মানুষ। তাঁরা বাংলাদেশের কথা বলেন না। ভারতের কথা বলেন।’
– মহাজোট শরিক এইচএম এরশাদ
(সরকারের উপদেষ্টাদের প্রসঙ্গে। সূত্র : প্রথম আলো, ৬ মার্চ ২০১২)

৫৫। ‘আগের নির্বাচন কমিশন স্নো-পাউডার মাখত বলে তা কি আমাদেরও মাখতে হবে?’
– নির্বাচন কমিশনার আবদুল মোবারক
(আগের ইসির সমালোচনা করে বর্তমান নির্বাচন কমিশনার। সূত্র : প্রথম আলো, ৫ মার্চ ২০১২)

৫৬। ‘মহাজোট এখন মহাজটে পড়েছে। … আমরা না সরকারি দল, না বিরোধী দল।’
– জাপার সাংসদ নওয়াব আলী আব্বাস খান
(রাষ্ট্রপতির ভাষণ সম্পর্কিত ধন্যবাদ প্রস্তাবের আলোচনায়। সূত্র : প্রথম আলো, ১ মার্চ ২০১২)

৫৭। ‘৪৮ ঘণ্টার মধ্যে খুনিদের গ্রেপ্তারের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।’
– স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুন
(সাগর-রুনি হত্যাকারীদের গ্রেপ্তার প্রসঙ্গে। সূত্র : প্রথম আলো, ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১২)

৫৮। ‘তদন্তের প্রণিধানযোগ্য অগ্রগতি হয়েছে।’
– হাসান মাহমুদ খন্দকার, আইজিপি
(সাগর-রুনির হত্যা তদন্ত প্রসঙ্গে। সূত্র : প্রথম আলো, ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১২)

৫৯। ‘সরকারের পক্ষে বেডরুম পাহারা দেয়া সম্ভব নয়।’
– সাগর-রুনি হত্যা সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
(সূত্র : প্রথম আলো, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১২)

৬০। ‘ডেটলাইন (সময় নির্দিষ্ট করে) দিয়ে তদন্ত হয় না।’
– ডিএমপি কমিশনার বেনজীর আহমেদ
(সাগর-রুনি হত্যার তদন্ত প্রসঙ্গে। সূত্র : প্রথম আলো, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১২)

৬১। ‘ঢাকা আসবেন, ঢাকা দখল করবেন, আর আওয়ামী লীগ বসে তামাক খাবে, এটা ভাববেন না।’
– কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী
(ঢাকায় আওয়ামী লীগের জনসভায় বিরোধী দলের উদ্দেশে। সূত্র : প্রথম আলো, ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১২)

৬২। এ সরকারকে আমরা ফেলে দিতে চাই না। তাদের লুলা-ল্যাংড়া করে ছেড়ে দিতে চাই। দেখি তারা খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে কত দূর যেতে পারে।
– চাঁদপুরের জনসভায় খালেদা জিয়া
(সূত্র : প্রথম আলো, ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১২)

৬৩। ‘সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেলে প্রতিবাদ করার কিছু নাই।’
– সংসদে নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান

৬৪। ‘শেয়ারবাজার ধসে সরকারের মাথাব্যথার কারণ নেই। শেয়ারবাজারের পুঁজি প্রকৃত বিনিয়োগে যায় না।’
– ড. মশিউর রহমান, প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক উপদেষ্টা
(সূত্র : প্রথম আলো, ২১ জানুয়ারি ২০১২)

৬৫। ‘বড় ভাইদের সালাম দেয় না, সম্মান করে না, প্রোগ্রামে আসে না- তাদের মারব না তো কী করব।’
– ছাত্রলীগের সূর্যসেন হল শাখার সভাপতি সাইদ মজুমদার
(হলের ছাত্রদের মারধর প্রসঙ্গে। সূত্র : প্রথম আলো, ১৮ জানুয়ারি ২০১২)

৬৬। ‘বাজার যখন বাড়ে, তখন তো কেউ রাস্তায় নেমে আনন্দে মিষ্টি বিতরণ করে না। কিন্তু দরপতন হলে রাস্তায় নেমে ভাঙচুর শুরু করে দেয়।’
– অর্থমন্ত্রী এম এ মুহিত
(শেয়ারবাজার পরিস্থিতি নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে। সূত্র : প্রথম আলো, ১০ জানুয়ারি ২০১১)

৬৭। ‘পুলিশকে আত্মরক্ষায় গুলি চালাতেই হবে।’
– স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুন
(সূত্র : ইত্তেফাক, ২ জুন ২০১২)

৬৮। ‘দেশের বিশিষ্টজনেরা অন্ধ : চোখে দেখেন না।’
– শিল্পমন্ত্রী দিলীপ বড়ুয়া
(সূত্র : মানবজমিন, ২ জুন ২০১২)

৬৯। ‘কতগুলো লোক যদি অর্থনীতিতে অবদান না রেখেই নিজেরাই লাভবান হতে চান, তাদের কষ্টে আমার হৃদয় কাঁদে না।’
– ড. মশিউর রহমান, প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা
(খুলনায় এক অনুষ্ঠানে শেয়ারবাজারে ধস প্রসঙ্গে। সূত্র : প্রথম আলো, ২১ জানুয়ারি ২০১১)

৭০। ‘তারা মুক্তিযুদ্ধ দেখেনি। দেখেছে টেন্ডার বক্স। একেই তারা যুদ্ধক্ষেত্র মনে করে।’
– হাসানুল হক ইনু, সভাপতি, জাসদ
(ছাত্রলীগের কর্মকা- সম্পর্কে। সূত্র : প্রথম আলো, ২০ জানুয়ারি ২০১১)

৭১। ‘যাঁরা তিস্তা চুক্তি সই হওয়া না হওয়ার ভিত্তিতে সাফল্য ব্যর্থতা মূল্যায়ন করেন তাঁরা প্রেক্ষাপট বোঝেন না।’
– ড. গওহর রিজভী, প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা
(তিস্তা চুক্তি সই না হওয়া প্রসঙ্গে। সূত্র : প্রথম আলো, ৮ সেপ্টেম্বর ২০১১)

৭২। ‘রেল সারা বিশ্বেই লাভজনক। এখানে কেন লোকসান হয়, সেই কালো বিড়াল কোন অন্ধকারে, তা খুঁজে বের করব।’
– সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত
(রেলমন্ত্রীর দায়িত্ব পাওয়ার পর প্রথম প্রতিক্রিয়ায়। সূত্র : প্রথম আলো, ৬ ডিসেম্বর ২০১১)

৭৩। ‘নিজের দেউলিয়াপনা এবং ব্যক্তিগত দুঃখ-কষ্টের দায়ভার তিনি দেশের ওপর চাপিয়ে দেয়ার চেষ্টা করেছেন।’
– প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
(দলের কেন্দ্রীয় কার্যনিবাহী সংসদের বৈঠকে খালেদা জিয়া সম্পর্কে। সূত্র : প্রথম আলো, ৪ ডিসেম্বর ২০১১)

৭৪। ‘যুদ্ধে পরাজিত বাহিনী যেমন সব স্থাপনা ও মূল্যবান সামগ্রী পুড়িয়ে ছারখার করে দেয়, সরকারও এখন তাই-ই করছে।’
– বেগম জিয়া
(বিএনপি চেয়ারপাসন ও বিরোধীদলীয় নেতা খালেদা জিয়া সংবাদ সম্মেলনে সরকারের সমালোচনা করে। সূত্র : প্রথম আলো, ২ ডিসেম্বর ২০১১)

৭৫। ‘বাংলাদেশের শেয়ারবাজার এক অদ্ভুত বাজার। দুনিয়ায় এর কোনো জুড়ি নেই। আমি উত্তর দিলেই এ বাজারের ওপর প্রভাব পড়ে।’
– সংসদে অর্থমন্ত্রী এম এ মুহিত
(সূত্র : প্রথম আলো, ২৮ অক্টোবর ২০১১)

৭৬। ‘পুঁজিবাজার নিয়ে আমি কোনো মন্তব্য করব না। আমি কোনো কথা বললেই নাকি বাজার ধ্বংস হয়ে যায়।’
– অর্থমন্ত্রী এম এ মুহিত
(সচিবালয়ে সাংবাদিকদের অর্থমন্ত্রী। সূত্র : প্রথম আলো, ১৯ অক্টোবর ২০১১)

৭৭। ‘বিএনপি সরকারের সময় সাংবাদিকেরা এলাকায় থাকতে পারত না। গণমাধ্যম তখন ভয়ে ভয়ে কোনো কিছু লিখতে বা বলতে পারত না।’
– প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
(কুড়িগ্রাম জেলা আওয়ামী লীগের তৃণমূল নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে। সূত্র : প্রথম আলো, ২ জুন ২০১২)

৭৮। ‘হাতের পাঁচ আঙ্গুল যেমন সমান নয়, তেমনি সব প্রতিবেদনও বস্তুনিষ্ঠ নয়, সব সাংবাদিকও সাংবাদিক নয়।’
– সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম, স্থানীয় সরকারমন্ত্রী
(আওয়ামী যুবলীগ আয়োজিত স্মরণসভায় গণমাধ্যমের দায়িত্ব প্রসঙ্গে। সূত্র : প্রথম আলো, ২১ আগস্ট ২০১১)

৭৯। ‘সে যদি অশিক্ষিতও হয়, গরু ছাগল, মহিষ ভেড়ার ছবি তো সে চেনে। সিগন্যাল তো ছবি। ছবিটা সে চিনতে পারে কিনা, সিগন্যালটা বোঝে কিনা, সেটাই কথা।’
– নৌমন্ত্রী শাজাহান খান
(সংবাদ সম্মেলনে। সূত্র : প্রথম আলো, ১৯ আগস্ট ২০১১)

৮০। ‘প্রকৃত বিনিয়োগকারীরা বিক্ষোভ করেন না। যারা বিক্ষোভ করছে, তারা বিনিয়োগকারীই না।’
– অর্থমন্ত্রী এম এ মুহিত
(শেয়ারবাজারে বিক্ষোভ প্রসঙ্গে। সূত্র : প্রথম আলো, ৮ আগস্ট ২০১১)

৮১। ‘দেশের অর্থনীতি যে অবস্থায় আছে, ইতিহাসে আর কখনো এমন ভালো ছিল না।’
– অর্থমন্ত্রী এম এ মুহিত
(সূত্র : প্রথম আলো, ১২ এপ্রিল ২০১১)

৮২। ‘হাইব্রিড নেতাদের ঠেলায় এখন আসল নেতারা কোণঠাসা হয়ে পড়েছেন।’
– ওবায়দুল কাদের
(দলের সাংগঠনিক অবস্থা সম্পর্কে আওয়ামী লীগের সভাপতিম-লীর সদস্য হিসেবে মন্তব্য। সূত্র : প্রথম আলো, ৩০ জুলাই ২০১১)

৮৩। ‘ভবিষ্যতে জনগণের সরকার ক্ষমতায় এলে এ সংবিধান ছুঁড়ে ফেলে দেয়া হবে। কেননা এটা কোনো সংবিধান নয়। এটা আওয়ামী লীগের দলীয় ইশতেহার।’
– বেগম জিয়া
(বিএনপির দিনব্যাপী গণঅনশন কর্মসূচিতে দেয়া বক্তব্যে। সূত্র : প্রথম আলো, ১৪ জুলাই ২০১১)

৮৪। ‘ছাত্রলীগ যেমন বীরের জন্ম দিয়েছে, তেমনি কিছু বিশ্বাসঘাতকেরও জন্ম দিয়েছে।’
– সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম, স্থানীয় সরকারমন্ত্রী
(ছাত্রলীগ নামধারী কিছু ব্যক্তির ষড়যন্ত্রের কথা উল্লেখ করে। সূত্র : প্রথম আলো, ১১ জুলাই ২০১১)

৮৫। ‘হরতাল আহ্বানকারীদের দৌড়ের ওপর রেখেছি, কাউকে পাচ্ছি না।’
– মাগুরা সদর থানার ওসি আলমগীর শেখ
(হরতালের সময় কোনো পিকেটার না থাকা প্রসঙ্গে। সূত্র : প্রথম আলো, ৭ জুলাই ২০১১)

৮৬। ‘সন্ত্রাসীদের ধরতে গেলে তারা যখন গুলি ছোড়ে, তখন কি র‌্যাব বসে গুলি খাবে?’
– স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুন
(নিউইয়র্কে র‌্যাব প্রসঙ্গে। সূত্র : প্রথম আলো, ৩১ মে ২০১১)

৮৭। ‘শেয়ারবাজার কারসাজির ঘটনায় কোথায় দরবেশ, কোথায় ইমাম, কোথায় মোয়াজ্জেন আছে খুঁজে বের করুন।’
– প্রবীণ সাংসদ সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত
(জাতীয় সংসদে অর্থমন্ত্রীর উদ্দেশে। সূত্র : প্রথম আলো, ২৪ মে ২০১১)

৮৮। ‘ন্যায়বিচার করতে হবে, ইনসাফ করতে হবে। শুধু সাফ করলে হবে না।’
– প্রধান বিচারপতি এবিএম খায়রুল হক
(আইনমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে। সূত্র : প্রথম আলো, ১৫ মে ২০১১)

৮৯। ‘আমরা গণতন্ত্রের জন্য আন্দোলন করি। আর বিএনপি সবসময় চিন্তা করে সেনাবাহিনীকে দিয়ে কী করে অঘটন ঘটানো যায়।’
– প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
(সূত্র : প্রথম আলো, ২৯ জানুয়ারি ২০১২)

৯০। ‘সরকার সেনাবাহিনীকে ধ্বংস করতে চায়। কারণ তারা বাংলাদেশকে ভারতের করদ রাজ্যে পরিণত করতে চায়।’
– বেগম খালেদা জিয়া
(চট্টগ্রামের জনসভায় বক্তৃতাকালে। সূত্র : প্রথম আলো, ১০ জানুয়ারি, ২০১২)

৯১। ‘বহু সহ্য করেছি; আর ছাড় দেয়া হবে না।’
– অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম, আইন প্রতিমন্ত্রী
(সূত্র : প্রথম আলো, ২৮ জানুয়ারি ২০১২)

৯২। ‘আমাকে গ্যাস বিক্রির প্রস্তাব দেয়া হয়েছিল। গ্যাস বিক্রি করতে চাইনি বলে ২০০১ সালের নির্বাচনে যুক্তরাষ্ট্র, ‘র’, আইএসআই সব এক হয়ে গিয়েছিল। গ্যাস বিক্রি করিনি বলে আমরা ক্ষমতায়ও আসতে পারিনি।’
– প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
(১০ মার্চ ২০১২ শনিবার গণভবনে কুমিল্লা জেলার (উত্তর) তৃণমূল নেতাকর্মীদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায়। সূত্র : দৈনিক যুগান্তর)

৯৩। ‘সুশীল সমাজের একটা অংশ গণতন্ত্র ধ্বংস করছে।’
– প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
(আইসিএসপি সম্মেলনে। সূত্র : প্রথম আলো, ৩ ডিসেম্বর ২০১১)

৯৪। ‘এটি একটি মিডনাইট ল। একটি বিতর্কিত সংসদে আইনটি পাস হয়েছে।’
– সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত এমপি
(তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা প্রসঙ্গে। সূত্র : প্রথম আলো, ২১ মার্চ ২০১১)

৯৫। ‘২৯ ডিসেম্বর নির্বাচনে পরীক্ষায় পাস করেই বর্তমান সরকার ক্ষমতায় এসেছে। বরং মওদুদ আহমদ ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে ফেল করে বগুড়ায় সাপ্লিমেন্টারি পরীক্ষা দিয়েছেন।’
– সংসদে আওয়ামী লীগের সাংসদ আবদুল মান্নান
(সূত্র : প্রথম আলো, ১৭ মার্চ ২০১১)

৯৬। ‘আমার সময় দেশে ছিনতাই ছিল না, মানুষ শান্তিতে ঘুমাতে পারত।’
– এইচএম এরশাদ
(কুমিল্লায় মহাসমাবেশে। সূত্র : প্রথম আলো, ১০ মার্চ ২০১১)

৯৭। ‘দুই-চার-ছয় আনা মন্ত্রী অনুপস্থিত থাকতে পারেন। কিন্তু এখন দেখছি চৌদ্দ আনাই অনুপস্থিত।’
– স্পিকার আবদুল হামিদ
(বাজেট আলোচনায় সংসদে। সূত্র : প্রথম আলো, ২২ জুন ২০১১)

৯৮। ‘আশা করি, ব্যবসায়ীরা কেউ অতি মুনাফা করবেন না। কারণ, প্রধানমন্ত্রীর কাছে ব্যবসায়ীরা প্রতিশ্রুটি দিয়ে এসেছেন।’
– বাণিজ্য সচিব গোলাম হোসেন
(ভোজ্যতেল ও চিনির বাজার দর ব্যবসায়ীদের হাতে ছেড়ে দেয়া প্রসঙ্গে। সূত্র : প্রথম আলো, ১৭ জুন ২০১১)

৯৯। ‘আমি যদি বনদস্যু হই, তাহলে এই ৩০০ সংসদ সদস্য কী?’
– স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য ফজলুল আজিম
(তাঁকে বনদস্যু আখ্যায়িত করে সংসদে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুনের বক্তব্যের জবাবে। সূত্র : প্রথম আলো, ১৪ জুন ২০১১)

১০০। ‘সরকার স্বৈরাচারী হলে, সরকারের বিরুদ্ধে জনগণের রুখে দাঁড়ানোর ইতিহাস রয়েছে। আদালতের রায়ে জনগণ ক্ষুব্ধ হলে বিচার বিভাগের বিরুদ্ধেও রুখে দাঁড়াতে পারে মানুষ।’
– স্পিকার আবদুল হামিদ
(সংসদে বক্তব্যকালে। সূত্র : বিডিনিউজ২৪.কম, ৩০ মে ২০১২)

১০১। ‘হরতাল পরিবেশবান্ধব। গাড়িঘোড়া নেই, ধুলাবালি নেই, শব্দ নেই। এ জন্য বিরোধীদলীয় নেতাকে অভিনন্দন।’
– প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
(বিশ্ব পরিবেশ দিবসের অনুষ্ঠানে। সূত্র : প্রথম আলো, ৬ জুন ২০১১)

লেখাটি এখান থেকে সংগ্রহ করা হয়েছে।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

৭ thoughts on “১০১ পলিটিকাল জোকস

  1. হুমম একটা কালেকশন বটে! কিন্তু
    হুমম একটা কালেকশন বটে! কিন্তু আপনার এগুলো কোন রাজনীতিবিদ পড়লে নিশ্চিত তারা কথা বলা বন্ধ করে দেবে।
    প্রথম দিকের কিছু পড়ার পরে আর ধৈর্য্য হয়নি।

  2. মিডিয়া কি স্বাধীনতা পাচ্ছে
    মিডিয়া কি স্বাধীনতা পাচ্ছে না?
    পুলিশ কি আগের চাইতে ভালো হয় নাই?
    স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী টুকু এই কথা কেনো বলেছেন সেটা জানাটা দরকার ছিলো, অবশ্য এটা উপাদেয় জোকস।
    দেশের কোথায় কোথায় দূর্নীতি নাই? আপনি নিজে কোনদিন দূর্নীতি করেন নাই?
    আইনী প্রক্রিয়ায় যারা প্লট নেয় নাই তারা কি চোর না?

    ভাই আর ধৈর্য্য নাই পড়ার, কেননা সবই মতির আলুর শিরোনাম। বড় জোকস হওয়া উচিত বাম ঘরানা থেকে বিতাড়িত সুশীল মতি আর তার পত্রিকা পুরাই একটা জোকস।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

9 + 1 =