Posted in স্যাটায়ার

তোমরা যারা দাদু দের প্রশ্ন করো

ড্রোণ বিষয়ক গবেষণা কার্য আজকের দিনের মতো শেষ করে রাতের খাবার খেয়ে ইউনিভার্সিটির গোফওয়ালা একজন টিচার তার নার্সারী পড়ুয়া নাতির সাথে গল্প করছেন। নাতি হঠাত প্রশ্ন করে বসলো- আচ্ছা দাদু, সেক্স কি? দাদু ভাবলো এই ছেলে মনে হয় লুকিয়ে কোথাও এই বিষয়ে কিছু দেখেছে কিংবা শুনে ফেলেছে। সো, তার কাছে…

বিস্তারিত পড়ুন... তোমরা যারা দাদু দের প্রশ্ন করো
Posted in ব্লগ

বেগম জিয়া বললেন, আমি দেশ ছেড়ে যাবোনা

রাত ঠিক তিনটা, শেখ হাসিনা অতি গোপনে বেগম জিয়াকে দেখতে জেলের ভিতরে চলে গেলেন, সঙ্গে অতি বিশ্বস্ত দু’জন প্রহরী। বেগম জিয়া গভীর রাতে হাসিনাকে দেখেই হঠাৎ প্রথমে হতচকিত ও কিংকর্তব্যবিমূঢ় হয়ে গেলেন! তারপর বেগম জিয়া বললেন:- আপনি এখানে এসেছেন কেন? আরো বড় কোনো ষড়যন্ত্র করতে এসেছেন নাকি ? শেখ হাসিনা…

বিস্তারিত পড়ুন... বেগম জিয়া বললেন, আমি দেশ ছেড়ে যাবোনা
Posted in সমসাময়িক

পিলখানা ট্রাজেডি থেকে আসন্ন নিরাপত্তা চুক্তি

২০০৯ সালের ২৫ শে ফেব্রুয়ারী, দেশপ্রেমিক সিনিয়র সেনা কর্মকর্তাদের হত্যা করে স্বাধীন বাংলাদেশের কফিন রচনা করেছিল ভারত। জনগণ তখন “বিডিআর বিদ্রোহ” নামক টেবলেট খেয়ে অচেতন হয়ে পড়েছিল। কফিন রচনার পটভুমি সৃষ্টিকারী দালাল মিডিয়াগুলো ছিল এ টেবলেট বিতরণের দায়িত্বে। তার আট বছর পর সেই কফিনে শেষ পেরেক ঠুকে দিতে আবারো সেনাবাহিনীর…

বিস্তারিত পড়ুন... পিলখানা ট্রাজেডি থেকে আসন্ন নিরাপত্তা চুক্তি
Posted in সমসাময়িক

রাত পোহাবার কত দেরী পাঞ্জেরী?

সার্বিয় সেনাক্যাম্পে ধর্ষিতা সামিরা তার বড় আপুর কাছে চিঠিতে লিখেছিল, “আপু আমি আর পারছিনা। ওরা আমার গর্ভে কাফের সন্তান জন্ম দিতে চায়। কিন্তু আমি কোনো খ্রিস্টান সন্তান ভূমিষ্ট হতে দেবনা। প্লিজ আপু আমার জন্য গর্ভপাতের ওষুধ পাঠাও।” সামিরার কলজে ছোঁয়া আর্তনাদ শুনেও আমাদের বিবেক জাগ্রত হয়নি। ইরাকের আবু গারিব কারাগারে…

বিস্তারিত পড়ুন... রাত পোহাবার কত দেরী পাঞ্জেরী?
Posted in খবর

মন্তব্য নিষ্প্রয়োজনঃ আমরা তো স্বাধীন দেশের নাগরিক

আজ রাত ২টার পর মোহাম্মদপুর, তাজমহল রোড, ৮/সি এলাকায় চলন্ত বাসের ভিতর থেকে একটা মেয়ের ‘বাঁচাও বাঁচাও’ চিৎকার শুনা গেছে… *dash1* . সর্বশেষ, বেড়িবাঁধ হয়ে রায়ের বাজার হয়ে ধানমন্ডি-২৭ এর অক্সফোর্ড স্কুলের পাশ দিয়ে গিয়েছে সেই বাসটি। ভোর তখন ৪ টা, তখনো বাসটি থেকে একটি মেয়ের ‘বাঁচাও বাঁচাও’ চিৎকার শুনা…

বিস্তারিত পড়ুন... মন্তব্য নিষ্প্রয়োজনঃ আমরা তো স্বাধীন দেশের নাগরিক
Posted in দর্শন

কোন শিরোনাম নেই

ব্রিটিশরা এসে অখণ্ড ভারতবাসীর উপর তাদের নিজস্ব ধর্মহীন সমাজব্যবস্থা চাপিয়ে দিল। এর আগে অস্ত্র রাখতে নাগরিকদের লাইসেন্স লাগতো না। ব্রিটিশরা জাতিকে নিবীর্য করতে অধিকাংশ মানুষের হাত থেকে অস্ত্র কেড়ে নিয়ে জনগোষ্ঠীকে সামরিক ও বেসামরিক দুই ভাগে ভাগ করে ফেলল। সামরিক বাহিনীর মূল র‌্যাঙ্কগুলো তাদেরই থাকলো, ভারতীয়রা সেপাই, আর্দালি ইত্যাদি হলো।…

বিস্তারিত পড়ুন... কোন শিরোনাম নেই