Posted in ব্যক্তিগত কথাকাব্য

হযবরল

মেঘ থাকে, হঠাৎ বৃষ্টি হয়। কাক গুলো ভিজে, পালক গুলো চুপসে যায়। আকাশ নীল থেকে কালো হয়, মেঘের মাঝেও রাজকুমারী তৈরী হয়। রোদের তাপে গরম হওয়া জালানার গ্রীল গুলোও ঠান্ডা হয়ে যায়। মেঝেতে নেইলপলিশ পড়ে গড়িয়ে থাকে। চূড়ির বাক্স থেকে চূড়ি পড়ে ঝনঝন শব্দে ভেঙে যায়। হাতের শিরায় গিয়ে লাগে…

বিস্তারিত পড়ুন... হযবরল
Posted in অনুগল্প

অপেক্ষা

সন্ধ্যে আমার আকাশ জুড়ে। দুই একটা তারা দ্যাখা যাচ্ছে। মিটিমিটি জ্বলছে। জোনাকিপোকার খুব শখ ছিলো আমার! বলেছিলাম,বাসর রাতে আমায় জোনাকি দিও এক বয়াম। তারপর ইচ্ছে ছিলো সব জোনাকি ঘরেই ছেড়ে দেবো। ওরা ঘর আলো করে উড়বে। আমি মুগ্ধ চোখে তাকিয়ে থাকবো! আর তুমি! তুমি তাকিয়ে থাকবে আমার দিকে! পরে দুজনে…

বিস্তারিত পড়ুন... অপেক্ষা
Posted in সাহিত্য

চিঠি (এক)

প্রিয় তুমি, তুমি কেমন আছো গো? পত্র লিখতে বসেছি তা বেশ কয়েক বছর পর। মনে হচ্ছে কয়েকশো শতাব্দী পেরিয়ে গ্যাছে । আমি শুধু অপেক্ষাই করছি। সেই-যে তোমার বিয়ে লক্ষ্মীর সাথে হলো, সেইযে তুমি সিঁদুরে রাঙিয়ে দিলে ওঁরর কপালটা, আমি চলে এসেছিলাম সেদিন। রাঙা সিঁদুর কাউকে এতো বেশি পোড়াতে পারে,আমি ভাবিনি…

বিস্তারিত পড়ুন... চিঠি (এক)
Posted in অনুকাব্য কবিতা

মাহীজাবেথ আর প্রেম

ওইখানে ওই অর্কিডে মোড়ানো শ্বেত পাথরে বানানো কবরটা মাহীজাবেথ এর। প্রেম দোষে দুষ্ট পাপী রাফিস্প্যারো ক্রুশবিদ্ধ হয়েছিলো ওঁর সামনেই! মরে মরে যাচ্ছিলো প্রতিটা নিঃশ্বাস! এতো করে বলল মাহীজাবেথ, ভালোবাসে সে-ও., চার্চের ফাদার গুলো শোনেনি.. মাহীজাবেথ এর গায়ের সাদা বিয়ের পোশাক টা ক্রুশে আটকে ছিঁড়ে গিয়েছিলো মাথার ঘোমটা টাও কপালের রক্ত…

বিস্তারিত পড়ুন... মাহীজাবেথ আর প্রেম
Posted in প্রবন্ধ

হাইমেন (সতীপর্দা)

দ্যা টপিক ইজ হাইমেন অর্থ্যাৎ যেটাকে কিছু আবাল জনগোষ্ঠী ‘সতীপর্দা’ নাম দিয়ে থাকে। . আসি ভুমিকায়। প্রশ্ন যদি থাকে, *হাইমেন বা সতীপর্দা কি? তাহলে বলা হবে, কিছু সুক্ষ্ণ তন্তুর ন্যায় টিস্যু দিয়ে তৈরী এক ধরনের পর্দা। *এর কাজ কি? উঃ এর কাজ হলো পিরিওডের প্রবাহ কে মেইন্টেইন করা। এর ফলে…

বিস্তারিত পড়ুন... হাইমেন (সতীপর্দা)