Posted in একাত্তর

কাঁদতে আসিনি, ফাঁসির দাবি নিয়ে এসেছি।

ঢাকার শাহবাগে ফেব্রুয়ারী মাসের ৫ তারিখ থেকে যে আন্দোলন চলছে তা একটি দিক নির্দেশনা। একাত্তরের ক্ষত মুছে দেবার কঠিন প্রত্যয়ে এ যেন এক নতুন লড়াই। এই তরুণদের অনেকেই মুক্তিযুদ্ধ দেখেনি, কিন্তু সকলেই মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ধারণ করে মনে প্রাণে। কলকাতা একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধের সবথেকে বড় সহোদর, এ শহর জানে মুক্তিযুদ্ধের সবকিছু। এ…

বিস্তারিত পড়ুন... কাঁদতে আসিনি, ফাঁসির দাবি নিয়ে এসেছি।
Posted in একাত্তর

ঘাতকের পরিচয় – ৬ : ফাদার অফ অল রাজাকারস – মাওলানা আবুল কালাম মোহাম্মদ ইউসুফ।

মাওলানা ইউসুফের বাড়ি বাগেরহাটের শরণখোলা উপজেলার রাজৈর গ্রামে। জামায়াতে ইসলামীর মাওলানা আবুল কালাম মোহাম্মদ ইউসুফ একজন কুখ্যাত যুদ্ধাপরাধী। একাত্তরে তিনিই প্রথম খুলনায় প্রতিষ্ঠা করেন রাজাকার বাহিনী। শান্তি কমিটিরও তিনি ছিলেন খুলনা জেলার আহ্বায়ক। তারই নেতৃত্বে পরিচালিত হতো সেখানকার নয়টি প্রধান নির্যাতন সেল। রাজাকার বাহিনীর ৯৬ ক্যাডার মুক্তিযুদ্ধকালীন নয় মাস সেসব…

বিস্তারিত পড়ুন... ঘাতকের পরিচয় – ৬ : ফাদার অফ অল রাজাকারস – মাওলানা আবুল কালাম মোহাম্মদ ইউসুফ।
Posted in একাত্তর ব্লগ

ঘাতকের পরিচয় – ৫ : যুদ্ধাপরাধী ঘাতক দালাল রাজাকার – ফরিদউদ্দিন চৌধুরী।

মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে এমসি কলেজে স্নাতক শ্রেনীতে অধ্যায়নরত ফরিদউদ্দিন চৌধুরী ছিল সিলেট জেলা ইসলামী ছাত্রসংঘের সভাপতি। এক সময় সারাদেশে বদরবাহীনির কার্যক্রম শুরু হলে তিনি ৩১ পাঞ্জাব রেজিমেন্টে সভা করে সিলেট বদর বাহিনীর কার্যক্রমের সুচনা করেন। তার নেতৃত্বাধীন বাহিনী মুক্তিযোদ্ধাদের অবস্থান জেনে সেসব খবর পাকবাহিনীর কাছে সরবরাহ করতেন। সেই সুত্র অনুযায়ী, পাকবাহিনী…

বিস্তারিত পড়ুন... ঘাতকের পরিচয় – ৫ : যুদ্ধাপরাধী ঘাতক দালাল রাজাকার – ফরিদউদ্দিন চৌধুরী।
Posted in ব্লগ

ঘাতকের পরিচয় – ৪ : শাহ মুহাম্মদ রুহুল কুদ্দুস – বাগেরহাটের কুখ্যাত রাজাকার।

জামায়াত ইসলামীর কেন্দ্রীয় কর্ম পরিষদের সদস্য শাহ মুহাম্মদ রুহুল কুদ্দুস। মুক্তিযুদ্ধকালে ছিলেন কেন্দ্রীয় শান্তি কমিটির সদস্য। তিনি খুলনা জেলার কয়রা উপজেলার আমাদি গ্রামের মৃত মকবুল হোসেনের পুত্র। ১৯৬৩ সালে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যায়নকালে তিনি সমগ্র পাকিস্তান ইসলামী ছাত্রসংঘের সাধারন সম্পাদক ছিলেন। এই ছাত্রসংঘেরই বর্তমান পরিমার্জিত রুপ ইসলামী ছাত্র শিবির।

বিস্তারিত পড়ুন... ঘাতকের পরিচয় – ৪ : শাহ মুহাম্মদ রুহুল কুদ্দুস – বাগেরহাটের কুখ্যাত রাজাকার।
Posted in ব্লগ

ঘাতকের পরিচয় – ৩ : মাওলানা আব্দুল খালেক মন্ডল – সাতক্ষীরায় গনহত্যার নেতৃত্বদানকারী কুখ্যাত রাজাকার।

মহান মুক্তিযুদ্ধকালে সাতক্ষীরা জেলা শান্তি কমিটির সভাপতির দায়িত্বে ছিলেন জামায়াত ইসলামীর কেন্দ্রীয় শুরা সদস্য মাওলানা আব্দুল খালেক মন্ডল। সদর উপজেলার খলিলনগর গ্রামের লুতফর রহমান মন্ডলের(লালচাঁদ মন্ডল) পুত্র খালেক স্বাধীনতা যুদ্ধে সরাসরি বিরোধিতা করা ছাড়াও মেতে উঠেছিলেন বাঙালি নিধনে।

বিস্তারিত পড়ুন... ঘাতকের পরিচয় – ৩ : মাওলানা আব্দুল খালেক মন্ডল – সাতক্ষীরায় গনহত্যার নেতৃত্বদানকারী কুখ্যাত রাজাকার।
Posted in ব্লগ

ঘাতকের পরিচয় – ২ : মাওলানা হাবিবুর রহমান – চুয়াডাঙ্গার কুখ্যাত রাজাকার।

জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় মজলিশে শূরার সদস্য মাওলানা হাবিবুর রহমান মুক্তিযুদ্ধের সময় চুয়াডাঙ্গার জীবননগরের শান্তি কমিটির সভাপতি ছিলেন। হাবিবুরের নেতৃত্বে এখানে ছিল পাকবাহিনীর শক্তিশালী ঘাঁটি। রাজাকার হাবিবুরের নেতৃত্বেই কয়া গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রাজ্জাককে হাসাদহ ক্যাম্পে নিয়ে হত্যা ও পরে তার লাশ গুম করে ফেলা হয়। এ ছাড়া এলাকায় পাকবাহিনীর বিভিন্ন দুষ্কর্মের…

বিস্তারিত পড়ুন... ঘাতকের পরিচয় – ২ : মাওলানা হাবিবুর রহমান – চুয়াডাঙ্গার কুখ্যাত রাজাকার।
Posted in ব্লগ

ঘাতকের পরিচয় – ১ : মাওলানা রিয়াছাত আলি বিশ্বাস – সাতক্ষীরা আশাশুনির কুখ্যাত রাজাকার।

মুক্তিযুদ্ধকালে রিয়াছাত আলি বিশ্বাস ছিলেন সাতক্ষীরা আশাশুনি উপজেলার শান্তি কমিটির সেক্রেটারি। রাজাকার রিয়াছাত আলি নির্বিচারে হত্যা করতে থাকেন মুক্তিযোদ্ধাদের। এছাড়া লুটপাট, অগ্নিসংযোগেরও সুনির্দিষ্ট অভিযোগ আছে তার বিরুদ্ধে। কালীগঞ্জের মুক্তিযোদ্ধা ইউনুস, প্রতাপনগরের খগেন্দ্রানাথ সরকার, সোহরাব ও আলী হত্যামিশনের হোতা ছিলেন রিয়াছাত।

বিস্তারিত পড়ুন... ঘাতকের পরিচয় – ১ : মাওলানা রিয়াছাত আলি বিশ্বাস – সাতক্ষীরা আশাশুনির কুখ্যাত রাজাকার।
Posted in ব্লগ

হিমযাত্রা।

তুষারে ঢাকা হিম রাতগুলো গলে গলে যায়। অনিয়মের ফাঁক ফোকরে ঢুকে পড়ে অবাধ্য জীবন। নির্বোধ ইচ্ছেগুলো ডিঙ্গিয়ে আমিও ঢুকে পড়ি প্রতিদিনের নিরব অন্দরে। সেখানে হিম হয়ে বসে থাক রাত্রি, বয়ে নিয়ে যায় দূরের উপত্যকায়, ঘুমের গভীরে। মনের মধ্যে এক ইতস্তত খেলা, সে কি এলো? অন্ধকারে দীর্ঘ হয় এক অনন্ত জীবন।…

বিস্তারিত পড়ুন... হিমযাত্রা।