Posted in স্যাটায়ার

ইশ্বরের নশ্বরতা

মৃদু অথচ তিব্র আর্তনাদের শব্দে ইশ্বরের ঘুম ভাঙ্গল। তিনি কান পেতে শোনার চেষ্টা করলেন। দুরে কোথাও কান্নার শব্দ পাওয়া যাচ্ছে। ব্যাপারটা বোঝার জন্য তিনি এগিয়ে গেলেন যেদিক থেকে শব্দটি আসছিল। তিনি দেখলেন একটা ঘুঘু ঝিঙে মাঁচায় বসে করুণ সুরে বিলাপ করছে, -“হায় ইশ্বর! আমার সন্তান ফিরিয়ে দাও নাহলে আমাকে নিয়ে…

বিস্তারিত পড়ুন... ইশ্বরের নশ্বরতা
Posted in গল্প

তৃষ্ণা

অতলা বেগম শ্যাওলা ধরা দেয়ালটার দিকে তাকিয়ে আছেন নিস্পলক। তিনি দেয়ালের সাথে লেপ্টে থাকা টিকটিকির সাথে ভাব জমানোর চেষ্টা করছেন। টিকটিকি হয়ত খাবারের খোজে ঘোরাফেরা করছিল দেয়ালের এই পাশটাতে। মনোবাসনা ব্যর্থ হওয়াতে টিকটিকিটি চলে যায় দেয়াল ঘেষে চোখের আড়ালে। অতলা বেগম আবারো একা হয়ে পড়েন। টিকটিকিটি চলে যাওয়াতে টিকটিকি ভাবনার…

বিস্তারিত পড়ুন... তৃষ্ণা
Posted in গল্প

গল্প: কেউ নেই কোথাও

দীর্ঘদিন শয্যায় থাকার পর মধ্যবয়স্ক রহমত গত পরশু পরপারে ঠাই জমিয়েছে। দেহটা সৎকারের অভাবে পড়ে রয়েছে নড়বড়ে কাঠের ছোট্ট একটা খাটের কোণে। তেলচিটচিটে চাদর দিয়ে মুড়ানো। বেশ কড়া গন্ধই ছড়ানো শুরু করেছে তার দেহ থেকে। রহমতের জানার কথা নয় তার মরন ব্যাধি ক্যান্সার হয়েছিল। রহমতের বউ রহিমা বিবি মাতব্বরের পা…

বিস্তারিত পড়ুন... গল্প: কেউ নেই কোথাও
Posted in স্যাটায়ার

স্যাটায়ার: স্বর্গ আর নরকের সন্ধিস্থল

১। গচা মিয়া গাছের গুড়িতে বসে আকাশের দিকে তাঁকিয়ে ছিল। এমন সময় তার পেছনে ইশ্বর হাত রাখেন। -“বৎস! আকাশের দিকে চক্ষু নিক্ষেপন করিয়া কি খুজিতেসো?” -“তারা খুজিতেসি!” -“দিনের বেলায় তারা কোথায় পাইবে বৎস?” -“কেন দিনের বেলায় তারাগুলো কি আপনার পশ্চাৎদেশে প্রবেশ করায়া থাকেন?” গচা মিয়ার কথায় স্পঠ ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ ঘটে।…

বিস্তারিত পড়ুন... স্যাটায়ার: স্বর্গ আর নরকের সন্ধিস্থল
Posted in গল্প

গল্প: বাগান বাড়ি

কিটি মোল্লা একজন ঈমানদার ব্যক্তি। তিনি নিরক্ষর হলেও তার একমাত্র ছেলেটাকে একজন বড় মাপের আলেম বানিয়েছেন। তিনি প্রতিদিন সকাল বেলা ওঠে কোরআন তিলাওয়াত করে থাকেন। আজকাল শুধু তিলাওয়াত করে মনের মাঝে তেমন শান্তি পাননা। বইয়ের পাতায় অক্ষরগুলো কেমন অচেনা মনে হয়। ইস যদি অর্থসহ পড়তে পারতাম! ভাবে কিটি মোল্লা। অর্থসহ…

বিস্তারিত পড়ুন... গল্প: বাগান বাড়ি
Posted in স্যাটায়ার

স্যাটায়ার: স্বর্গালাপ

-“কে কে স্বর্গে যেতে চাও হাত তোলো!” অবাক হয়ে তাকিয়ে দেখলাম আমি ছাড়া সবাই হাত তুলেছে। -“ডান কাতারের বাম পাশ থেকে শেষের জন বাদে প্রত্যেককে স্বর্গে পাঠাও!” সাদা কাপড় পড়া একজনকে নির্দেশ দিলো একটি অদৃশ্য কন্ঠ। আওয়াজটার উৎপত্তিস্থল খোজার চেষ্টা করলাম। চারপাশে শুধু সাদা দেয়াল ছাড়া আর কিছুই দেখা যাচ্ছে…

বিস্তারিত পড়ুন... স্যাটায়ার: স্বর্গালাপ
Posted in স্যাটায়ার

স্যাটায়ার- রূপান্তর

পূর্ব কথাঃ দেবদূত ঘটাহপের ডাকে চিন্তায় ছেদ পড়ে ইশ্বরের। ইশ্বর তখন সমাজের কোন আপেক্ষিকতার কারণে ভাতের সাথে চা মিশিয়ে খাওয়া হয় না! এটা নিয়ে ভাবছিলেন। -ঘটাহপ (দেবদূত)! কিছুকি বললে? -আজ্ঞে ঠিক ধরেছেন প্রভু। -কি সমস্যা? -এক ছোকরা বড্ড জ্বালাতন করছে! -পাঠিয়ে দাও আমার কাছে। -যথা আজ্ঞা প্রভু। * -কি হে…

বিস্তারিত পড়ুন... স্যাটায়ার- রূপান্তর