Posted in কবিতা সাহিত্য

ঝুমুর

মধ্যরাতে ঘুমিয়ে গ্যাছো যখন আকাশ জুড়ে ভরাট তারার খেলা চাঁদের আলো ভাগ হয়েছে তখন অন্ধকারে মধ্যরাতের বেলা।   ঝুমুর তুমি বাইরে চলে আসো বেলকনিতে ঠেস দিয়ে পিঠ হাসো চাঁদ ছুঁতে যাও ছাদে খালি হাতে তোমায় দেখবো চাঁদের বদৌলতে।   সারা পারা মাত করেছে কুকুর আমি তখন মিস করছি ঝুমুর ঠান্ডা…

বিস্তারিত পড়ুন... ঝুমুর
Posted in কবিতা সাহিত্য

কবিতা: মরে গেলে

মরে গেলে মরে মরে মরে যাব মরে যাবে কায়া কায়া যাবে কবরে সাথে যাবে ছায়া গেলে মরে কবরে পাও মাড়িওনা কলিগ বন্ধুরা লাশ ছুঁয়োনা! মরে যদি যাইগো লাশ খেয়ে নাও হাত পা মাথা কেটে ভাগ করে খাও। ছেলে খেও মাথা আর বৌ খেও বুক মেয়ে খেয়ো চোখ খুলে মনে পাবে…

বিস্তারিত পড়ুন... কবিতা: মরে গেলে
Posted in কবিতা সাহিত্য

বোকার শহরে বেকুব

বোকার শহরে বেকুব কতকাল হয়ে গেলো শুনিনা তোমার কথা ছড়ার মতো বিভ্রান্ত শহরে মিলে গেলে ছন্দ-উপকথা স্মৃতির শহরে বেকুব ঘুরে আর ফিরে অবশেষে একদিন, একদিন অবশেষে আশা জমে ভারী হয়ে মরে। বিশাল সমুদ্র দেখো কত জল বহে; নিমগ্ন আঁধারে দেখো জোনাকী পোকারা উড়ে উড়ে যায় কতশত ব্যথাবাহী স্মৃতি সন্ধ্যের আকাশে…

বিস্তারিত পড়ুন... বোকার শহরে বেকুব
Posted in কবিতা সাহিত্য

স্ট্যানজা

হৃদয় বা কাঁচ আমি একটা কাঁচ আর ভেঙে যাই বিভিন্নভাবে ভাঙা কাঁচে রক্ত লেগেছিলো ছিন্ন হৃদয়ের।   মৃত্যু  মৃত্যু যেন একটা কেমন কেমন বোধ, ঝাপিয়ে আসা বাদলের বুক চিড়ে নেমে আসা কড়া রোদ।   ধাঁধাঁ বিষন্ন জলের ওপর কাদা চিড়তে চিড়তে মাছটি ভাবে জীবন মানে ধাঁধা স্বচ্ছ জলেও জাল বিছানো…

বিস্তারিত পড়ুন... স্ট্যানজা
Posted in অনুকাব্য কবিতা

বিষাদ

আমার ব্যথা করছে ভিষন! একটি সমুদ্র, একটি মাছ বস্তুত সে বিভিন্ন প্রণালি পার হয়ে পানি ছেড়ে অন্যকোথার খোঁজে হন্যে হয়ে খুঁজছে অন্য পৃথিবী। এবং তোমরা এবং তোমরা তাঁকে যতটা কাছে থেকে দেখো এবং সে অতঃপর হায় মাছ হয়ে গভীর সমুদ্রে তলিয়ে যায়। বিরামহীন বর্ণনা দেওয়া গেলে বোঝা যাবে একেক পৃথিবী…

বিস্তারিত পড়ুন... বিষাদ
Posted in অনুকাব্য কবিতা সাহিত্য

একজন বেকুব এর উপাখ্যান পাণ্ডুলিপি থেকে কিছু টোটকা

এটি নিয়ে একটা ইবুক হইছে। বানাইয়া দিছেন শতাব্দি সেঁজুতি। আমি তাঁর কাছে ঋনী। ইবুকটা ডাউনলোড করতে এইখানে ক্লিক করেন। সাইজ ৭.৯৩ এমবি। পৃষ্ঠা সংখ্যা ১৩১। নমুনা একেবারে নিচে দেওয়া হইছে। কবি প্রেমিকা কথা হইলো গিয়া কী আরাফাত ভাই; প্রেমিকার মতো বড়কবি আর দুইজন দেখিনাই! অপমান প্রতিদিন কয়েকটা জুতো গিলে ফেলার…

বিস্তারিত পড়ুন... একজন বেকুব এর উপাখ্যান পাণ্ডুলিপি থেকে কিছু টোটকা
Posted in কবিতা সাহিত্য

দশটি কবিতা: সজল আহমেদ

পোস্টার ক্রেডিটঃ বাংলা আধুনিক কবিতা মধুচক্র সৃজিল গুহার দেশে সমুদ্র আঁধার আসওয়াদ অন্তর্বাসে ঢাকা লাল পাহাড় বাদুড়ের মুখে রুচে অাঁধারের গান কালো সন্ধ্যায় হাকে এ কোন আজান? ঘাসে ঘাসে মোড়া আজ কবরের পার অন্ধকারের দেশে আছে মধুর নহর নহরে নহরে আজ ফোয়ারা মধুর মধু খেতে হলে, যেতে হবে বহুদূর। ফুল…

বিস্তারিত পড়ুন... দশটি কবিতা: সজল আহমেদ
Posted in কবিতা সাহিত্য

২টি কবিতা

গাড়ি হতে নেমে যদি কোনদিন হারিয়ে যান রোডে তখন একটা বিড়িও নেই প্যাকেটে আর সাথে থাকা টাকাসহ ফোনটা নিয়ে নিয়ে নেয় পকেটমার গাড়িতে থাকতে কেউ খেয়ে নিয়েছিলো সাথে থাকা খাবার ভিক্ষে করার জো নেই আপনার হাঁটছেন আপনি আর এর মধ্যে নামল বৃষ্টি বৃষ্টিতে ভিজে আপনার জ্বর হলে

বিস্তারিত পড়ুন... ২টি কবিতা
Posted in কবিতা সাহিত্য

রিদমড

রিদমড -সজল আহমেদ ঘুমের শহরে কেউ কথা বলেনা কথা বলেনা সেথা গাড়ি চলে না . গাড়ি চলেনা সেথা, গাড়ি চলে রোডে গাড়ির পেছনে সবাই দল বেঁধে ছোটে . দলবেঁধে ছোটে সবে দলে দলে যায় হেঁটে গেলে সকলের ঝিম ধরে পায় . ঝিম ধরে পায় যদি কেউ হেঁটে যায় হেঁটে হেঁটে…

বিস্তারিত পড়ুন... রিদমড
Posted in কবিতা সাহিত্য

বিভ্রান্ত (আবৃত্তি সহ)

লতা বিভ্রম পাতার ডালে বিস্তৃত সোনার মাদুর পোকা খাবার লোভে ছোটে কয়েকশ বিভ্রান্ত বাদুড়। জানে না বাদুড় আগালে কয়েকটা ধাপ সামনেই পাঁতা আছে মৃত্যুর ট্রাপ! চাঁদটা হারিয়ে যায়, মেঘের সয়ে অকথ্য যন্ত্রণা বিভ্রান্ত জোনাক শোনে আঁধারের কুমন্ত্রণা। জোনাক আর জ্বলেনা চাঁদ ও ওঠে না বাদুড় আর ফিরে আসেনা গাছে বিছানো…

বিস্তারিত পড়ুন... বিভ্রান্ত (আবৃত্তি সহ)