২০৪: হুনাইনের যুদ্ধ-৩: নবী মুহাম্মদ-কে হত্যা চেষ্টা!

Posted in দর্শন ধর্ম-অধর্ম মুক্তচিন্তা

“যে মুহাম্মদ (সাঃ) কে জানে সে ইসলাম জানে, যে তাঁকে জানে না সে ইসলাম জানে না।” আদি উৎসের বিশিষ্ট মুসলিম ঐতিহাসিকদেরই বর্ণনায় আমরা জানতে পারি, নবী মুহাম্মদ-কে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছিল কমপক্ষে তিনবার। আর এই হত্যা-চেষ্টা ঘটনার সবগুলোই ঘটেছিল তাঁর মদিনায় অবস্থান-কালীন সময়ে (৬২২-৬৩২সাল)। তাঁকে হত্যার প্রথম চেষ্টা-টি হয়েছিল সফল!…

বিস্তারিত পড়ুন...

২০৩: হুনাইনের যুদ্ধ-২: অনুসারীদের পলায়ন ও নবীর আর্তনাদ!

Posted in দর্শন ধর্ম-অধর্ম মুক্তচিন্তা

“যে মুহাম্মদ (সাঃ) কে জানে সে ইসলাম জানে, যে তাঁকে জানে না সে ইসলাম জানে না।” ইসলামের ইতিহাসের আদি উৎসের সকল বিশিষ্ট মুসলিম ঐতিহাসিকদের বর্ণনার আলোকে, জগতের সকল ইসলাম বিশ্বাসী পন্ডিত ও ইসলাম বিজ্ঞ অপণ্ডিতদের (Non-scholar) যদি প্রশ্ন করা হয়: “একান্ত নিজ পরিবারের কোন দুই ব্যক্তির সাহায্য ও সহযোগিতা ব্যতিরেকে…

বিস্তারিত পড়ুন...

২০২: হুনাইনের যুদ্ধ -১: কে ছিল আক্রমণকারী?

Posted in দর্শন ধর্ম-অধর্ম মুক্তচিন্তা

“যে মুহাম্মদ (সাঃ) কে জানে সে ইসলাম জানে, যে তাঁকে জানে না সে ইসলাম জানে না।” স্বঘোষিত আখেরি নবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) তাঁর নবী জীবনে যে সকল বৃহৎ রক্তক্ষয়ী অমানুষিক নৃশংস সংঘর্ষের সঙ্গে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে জড়িত ছিলেন তার সর্বপ্রথম-টি হলো ‘বদর যুদ্ধ (পর্ব: ৩০-৪৩)’; আর তার সর্বশেষ-টি হলো ‘হুনাইন…

বিস্তারিত পড়ুন...

২০১: বানু জাধিমা হত্যাকাণ্ড-৪: খুনির দায়মুক্তি ও পক্ষপাতিত্ব!

Posted in দর্শন ধর্ম-অধর্ম মুক্তচিন্তা

“যে মুহাম্মদ (সাঃ) কে জানে সে ইসলাম জানে, যে তাঁকে জানে না সে ইসলাম জানে না।” আদি উৎসের সকল মুসলিম ঐতিহাসিকদের বর্ণনায় যা অত্যন্ত সুস্পষ্ট, তা হলো, বানু জাধিমা হত্যাকাণ্ডের পর, আত্মপক্ষ সমর্থনে হত্যাকারী খালিদ বিন আল-ওয়ালিদ দাবী করেছিলেন: তিনি এই কাজটি করেছিলেন মুহাম্মদেরই নির্দেশে, যা নবী মুহাম্মদ অস্বীকার করেছিলেন।…

বিস্তারিত পড়ুন...

২০০: বানু জাধিমা হত্যাকাণ্ড-৩: কী ছিল তার কারণ?

Posted in দর্শন ধর্ম-অধর্ম মুক্তচিন্তা

“যে মুহাম্মদ (সাঃ) কে জানে সে ইসলাম জানে, যে তাঁকে জানে না সে ইসলাম জানে না।” ইসলামের ইতিহাসে সর্বপ্রথম নৃশংস ‘মুসলমান বনাম মুসলমান’ হত্যাকাণ্ডের যে সম্ভাব্য কারণ আদি উৎসের বিশিষ্ট মুসলিম ঐতিহাসিকরা তাঁদের নিজ নিজ গ্রন্থে লিখে রেখেছেন, তা হলো মূলত: দু’টি। প্রথম-টি হলো: বানু জাধিমা গোত্রের লোকদের প্রতি খালিদ…

বিস্তারিত পড়ুন...

১৯৯: বানু জাধিমা হত্যাকাণ্ড-২: খালিদ বিন ওয়ালিদের নৃশংসতা!

Posted in দর্শন ধর্ম-অধর্ম মুক্তচিন্তা

“যে মুহাম্মদ (সাঃ) কে জানে সে ইসলাম জানে, যে তাঁকে জানে না সে ইসলাম জানে না।” আদি উৎসের বিশিষ্ট মুসলিম ঐতিহাসিকদের বর্ণনায় যা আমরা নিশ্চিতরূপে জানি, তা হলো, ‘মুসলমান বনাম মুসলমানদের’ মধ্যে সর্বপ্রথম হানাহানি ও নৃশংসতার দৃষ্টান্ত স্থাপিত হয়েছিল স্বঘোষিত আখেরি নবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) এরই জীবদ্দশায়। তাঁর মক্কা বিজয়ের…

বিস্তারিত পড়ুন...

১৯৮: বানু জাধিমা হত্যাকাণ্ড -১: কে ছিল আক্রমণকারী?

Posted in দর্শন ধর্ম-অধর্ম মুক্তচিন্তা

“যে মুহাম্মদ (সাঃ) কে জানে সে ইসলাম জানে, যে তাঁকে জানে না সে ইসলাম জানে না।” ইসলামের ঊষালগ্ন থেকে বিভিন্ন অজুহাতে ‘মুসলমান বনাম মুসলমানদের’ মধ্যে হানাহানি ও নৃশংসতার ইতিহাস নতুন কোন খবর নয়। যুগে যুগে তা হয়ে এসেছে, এখনও হচ্ছে ও ভবিষ্যতেও তা হবে। যতদিন পর্যন্ত ‘ইসলাম’ টিকে থাকবে, ততদিন…

বিস্তারিত পড়ুন...

১৯৭: মক্কা বিজয়-১১: মক্কা অবমাননার সূচনা ও অতঃপর!

Posted in দর্শন ধর্ম-অধর্ম মুক্তচিন্তা

“যে মুহাম্মদ (সাঃ) কে জানে সে ইসলাম জানে, যে তাঁকে জানে না সে ইসলাম জানে না।” ইসলামের ইতিহাসের মুসলিম ঐতিহাসিকদেরই বর্ণনায় আমরা জানতে পারি, স্বঘোষিত আখেরি নবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) এর জন্মের বহু আগে থেকেই মক্কা ও তার চারিপাশের বিস্তীর্ণ অঞ্চলের আরব ও অনারব জন-গুষ্টি মক্কা ও কাবা শরীফ-কে “পবিত্র”…

বিস্তারিত পড়ুন...

১৯৬: মক্কা বিজয়-১০: নবী মুহাম্মদের ক্ষমা ও তার স্বরূপ!

Posted in দর্শন ধর্ম-অধর্ম মুক্তচিন্তা

“যে মুহাম্মদ (সাঃ) কে জানে সে ইসলাম জানে, যে তাঁকে জানে না সে ইসলাম জানে না।” স্বঘোষিত আখেরি নবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) মৃত্যুবরণ করেন ৬৩২ সালের জুন মাসে। মুহাম্মদের মৃত্যু পরবর্তী ২৯০ বছরের কম সময়ের মধ্যে লিখিত ইসলামের ইতিহাসের সবচেয়ে আদি উৎসের বিশিষ্ট মুসলিম ঐতিহাসিকদেরই লিখিত মুহাম্মদের পূর্ণাঙ্গ জীবনী গ্রন্থের…

বিস্তারিত পড়ুন...

১৯৫: মক্কা বিজয়-৯: নবীর ভাষণ ও দলে দলে ইসলাম গ্রহণ!

Posted in দর্শন ধর্ম-অধর্ম মুক্তচিন্তা

“যে মুহাম্মদ (সাঃ) কে জানে সে ইসলাম জানে, যে তাঁকে জানে না সে ইসলাম জানে না।” আদি উৎসের বিশিষ্ট মুসলিম ঐতিহাসিকদের বর্ণনায় আমরা জানতে পারি, স্বঘোষিত আখারি নবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) তাঁর মক্কা বিজয় সম্পন্ন করার পর, কাবার চারিপাশে উপস্থিত ভীত-সন্ত্রস্ত কুরাইশদের সম্মুখে ভাষণ দিয়েছিলেন। এই ভাষণ-টি তিনি প্রদান করেছিলেন…

বিস্তারিত পড়ুন...