গরিবের প্রতিশোধ স্টাইল (পর্ব-১)

Posted in গল্প ব্যক্তিগত কথাকাব্য শোকগাঁথা

কদিন থেকে ধারালো বড় দুটো দা, টেটা আর কোঁচ নিয়ে সুন্দরবন অভ্যন্তরে ঘুরে বেড়াচ্ছি আমি। বলতে গেলে সারাদিনই বন গহীনে কাটাচ্ছি। ক্ষুধা লাগলে মৌচাক ভেঙে মধু আর যত বুনো ফল আছে তা সংগ্রহ করে খাই। ঘরে ফিরতে প্রায়ই সন্ধ্যা নামে আমার। তাই সন্ধ্যার পর ক্লান্ত শরীরে মাটির হাড়িতে দুটো ফুটিয়ে…

বিস্তারিত পড়ুন...

বৃক্ষবন

Posted in গল্প ব্যক্তিগত কথাকাব্য শোকগাঁথা

মানুষের শয়তানি, ভন্ডামি, মিথ্যাচার দেখতে দেখতে বিরক্ত আর অতিষ্ঠ হয়ে চলে গেলাম বনমাঝে একদিন। যেখানে কেবল বৃক্ষ সমাজের বসবাস। বৃক্ষরা কোন ভন্ডামি, মিথ্যাচার জানেনা। তাই ফলফলাদি খেয়ে ওদের মাঝে বসবাস করতে থাকলাম একাকি। এক গভীর রাতে এক ভাল ভুতের সাথে দেখা। বনবাসের কারণ খুলে বললাম ভুতকে। সম্ভবত তার মায়া হলো…

বিস্তারিত পড়ুন...

ফেসবুক প্রেম ও বিয়ে

Posted in গল্প ব্যক্তিগত কথাকাব্য শোকগাঁথা

ফ্রান্সে থাকি আমি প্রায় দুবছর যাবত। এর আগে জার্মানীতে ছিলাম পাঁচ বছর। প্রায় সাত বছর আগে আন্ডারগ্রাজুয়েট প্রোগ্রামে জার্মানীর হেইডেলবার্গ ভার্সিটিতে পড়ালেখা করতে আসি আমি। গ্রাজুয়েশন শেষ করে আর ঢাকা ফিরে যাইনি। চলে এসেছি প্যারিসে। এখানে যদিও এখনো নাগরিকত্ব পাইনি আমি কিন্তু ‘পিআর’ হয়েছে আমার। সম্ভবত এ বছরই পেয়ে যাবো…

বিস্তারিত পড়ুন...

ভর্তি এবং মা!

Posted in গল্প ব্যক্তিগত কথাকাব্য শোকগাঁথা

আমার মায়ের প্রথম সন্তান তথা আমার বড়বোন যখন স্কুলে ভর্তি হতে গেলো, তখন স্কুলের হেডমাস্টার থেকে শুরু করে পরিচিত সকল মাস্টারগণ বিস্মিত হয়ে মার কাছে জানতে চাইলেন – “মেয়েকে স্কুলে ভর্তি করতে চাইছেন কেন? অন্য কোন বাড়ির কোন মেয়েকে কি কেউ স্কুলে পাঠায় এখানে”? – অন্যে পাঠায় না বলে কি…

বিস্তারিত পড়ুন...

একটি পুরনো লাগেজ ও আমাদের দিনরাত্রি পর্ব : ৩ (শেষ পর্ব)

Posted in গল্প ব্যক্তিগত কথাকাব্য শোকগাঁথা

অনেকক্ষণেও ওদের কান্নার শোঁক না থামলে প্রসঙ্গ পাল্টাতে চা খেতে চাইলাম আমি। লালি উঠে চলে গেলো চা বানাতে। চায়ের সাথে আরো নানাবিধ গ্রাম্য পিঠা সামনে রাখলো লালি। ওর মন ভাল করতে বললাম – লালি তোমার তো অনেক গুণ। চায়ে মুখ দিয়ে বললাম – চায়ের সাধতো সর্গীয় চায়ের মত হয়েছে। আমার…

বিস্তারিত পড়ুন...

একটি পুরনো লাগেজ ও আমাদের দিনরাত্রি পর্ব : ২

Posted in গল্প ব্যক্তিগত কথাকাব্য শোকগাঁথা

ম্যাসেঞ্জারে রিপ্লাই দিলাম বালমোহনকে। সবই আছে কেবল চকলেট, খেজুর, মেকাপ বক্স আর শ্যাম্পু ছাড়া। শুনে সেও খুব পুলকিত হলো। বিজয়য়াম্মা লালি বালমোহনের ছোট কন্যার নাম। সেই মূলত ফেসবুক একাউন্ট চালায়। তাই বাবার পক্ষে সেই ইংরেজিতে চ্যাট করে আমার সাথে। আমি কি লিখি তা বাবাকে পড়ে শোনায়, আর বাবা যা বলে…

বিস্তারিত পড়ুন...

একটি পুরনো লাগেজ ও আমাদের দিনরাত্রি পর্ব : ১

Posted in গল্প ব্যক্তিগত কথাকাব্য শোকগাঁথা

কলকাতা থেকে কোচিন যাচ্ছি ট্রেনে। বিশাল লম্বা জার্নি। কোচিন গেলেও জার্নি শেষ হবেনা। সেখান থেকে যেতে হবে কেরালার কুন্নামকুলাম। কুন্নামকুলাম থেকে আবার ৬ কিমি দূরের চেম্বানুর গ্রাম। এ গ্রামটি কুন্নামকুলামের কাছাকাছি হলেও গ্রামটি মূলত কেরালার থ্রিসুর জেলার অন্তর্গত। সঙ্গত কারণেই আমার পাঠক বন্ধুদের মনে প্রশ্ন জাগছে – বাংলাদেশের ঢাকাতে বসবাসকারী…

বিস্তারিত পড়ুন...

সীমান্ত মানুষের জীবনগাঁথা

Posted in গল্প ব্যক্তিগত কথাকাব্য শোকগাঁথা

বাংলাদেশের জীবননগরের পুটখালি গ্রামে বাড়ি আমার। এ গ্রামটা ভারত বর্ডারের খুব কাছাকাছি। ভারতের ভজনঘাট এলাকার মানুষজন, হাঁটবাজার দেখা যায় আমাদের পুটখালি থেকে। কৃষি শ্রমিকের কাজ করি আমি পুটখালিতে। কিন্তু কদিন থেকে এলাকাতে কোন কাজ পাচ্ছিনা। বলতে গেলে বেকার জীবন কাটাচ্ছি সপ্তাহখানেক থেকে। ঘরে মা-বাবা ভাই-বোন ৭-জনের সংসার। চাল ডাল তেল…

বিস্তারিত পড়ুন...

চার আনার স্টাম্পের চুক্তিপত্র

Posted in গল্প ব্যক্তিগত কথাকাব্য শোকগাঁথা

১৯৪৭-এর আগে আমার বাড়ি ছিল বৃহত্তর বাংলা প্রদেশের বাকেরগঞ্জ জেলাতে। একজন হিন্দু হিসেবে ওখানে হিন্দুপ্রধান গ্রামে বসবাস ছিল আমার! পূর্ব ও অসম রেলওয়েতে অস্থায়ী ‘কয়লা শ্রমিক’ পদে কাজ করতাম আমি। আমার সাথে কাজ করতো আসামের ধুবড়ী জেলার কুচড়ি গ্রামের মোহাম্মদ সেলিম শেখ। সারাদিন কাজ করার পর দুজনে রেলওয়ের পরিত্যক্ত সেডে…

বিস্তারিত পড়ুন...

একটি সুস্বপ্ন কিংবা দু:স্বপ্নের গল্প

Posted in গল্প ব্যক্তিগত কথাকাব্য শোকগাঁথা

কলকাতা একটা অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছি আমি। আয়োজক সংগঠনের নাম হচ্ছে ‘উভয় বাংলা একত্রীকরণ জোট’। প্রায় ত্রিশ বছর ধরে সোস্যাল মিডিয়ায় নানাবিধ জনমত গঠনের পর আজ এ সংগঠনের প্রথম কংগ্রেস কলকাতার ধর্মতলায়। এতোদিন ফেসবুক টুইটার ব্লগে যারা দুই বাংলাকে একত্রিকরণের পক্ষে নানাবিধ যুক্তি তুলে ধরেছেন, তারা অনেকেই ধর্মতলার এ অনুষ্ঠানে যোগ…

বিস্তারিত পড়ুন...